১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৮ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

মানিকগঞ্জে অপহৃত শিশু সান্তাহারে উদ্ধার, গ্রেফতার ১


নিজস্ব সংবাদদাতা, সান্তাহার, ৭ এপ্রিল ॥ মানিকগঞ্জে বাড়ির কাজের ছেলের হাতে অপহৃত আড়াই বছরের শিশু আল রাফিকে বগুড়ার সান্তাহার জংশন স্টেশন থেকে উদ্ধার করেছে জিআরপি পুলিশ। সেই সঙ্গে গ্রেফতার করেছে অপহরণকারী নান্টু ওরফে সুজন নামের এক যুবককে। সোমবার রাত একটার দিকে এ উদ্ধার ও গ্রেফতারের ঘটনা ঘটে। মঙ্গলবার সান্তাহার রেলওয়ে থানা পুলিশ শিশু আল রাফি ও অপহরণকারীকে নিয়ে মানিকগঞ্জের শিবালয় থানায় গেছে। জানা গেছে, বগুড়ার শাহজাহানপুর উপজেলার সইলডুবরি গ্রামের মৃত নবির উদ্দিনের ছেলে নান্টু ওরফে সুজন (২৬) মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর উপজেলার চৌবাড়িয়া গ্রামের রোস্তম আলীর বাড়িতে ৩/৪ বছর ধরে কাজ করে আসছিল। দীর্ঘদিন ধরে কাজ করায় সে ওই পরিবারের বিশ্বস্ত হয়। শনিবার গৃহকর্তা রোস্তম আলী সপরিবারে শ্বশুরবাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার শিবালয় উপজেলার মৌশুরিয়া গ্রামে বেড়াতে যায়। সঙ্গে কাজের ছেলে নান্টুকেও নিয়ে যায়। ওইদিন বিকেলে নান্টু গৃহকর্তার ছেলে আল রাফিকে চকলেট কিনে দেয়ার কথা বলে তাকে নিয়ে বাড়ি থেকে বের হওয়ার পর আর ফেরেনি। পরে মোবাইল ফোনে শিশু আল রাফিকে অপহরণ করেছে জানিয়ে নান্টু শিশুর পিতার নিকট ২ লাখ টাকার মুক্তিপণ দাবি করে।

এ ঘটনার পর শিশুর পিতা রোস্তম আলী শিবালয় থানায় সাধারণ ডায়েরি করেন। সোমবার রাত একটার দিকে শিশুটিকে নিয়ে সান্তাহার জংশন স্টেশনের ৪নং প্লাটফর্মে বগুড়াগামী ট্রেনের জন্য অপেক্ষা করছিল। এক সময় শিশুটি কান্নাকাটি শুরু করলে, ওই প্লাটফর্মে অপেক্ষমাণ অন্য যাত্রীরা স্টেশনে অবস্থিত জিআরপি পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ওই শিশু এবং শিশুটিকে সঙ্গে রাখা যুবক নান্টুকে থানায় নিয়ে গিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করলে অপহরণের ঘটনা ফাঁস হয়ে যায়। পুলিশ তাৎক্ষণিকভাবে নান্টুকে গ্রেফতার করে।

রাজশাহী শিক্ষাবোর্ড চেয়ারম্যানকে অপসারণ দাবি

শিক্ষকদের মানববন্ধন

স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ রাজশাহী মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান ড. অধ্যাপক আবুল হায়াতকে ১৫ দিনের মধ্যে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্টের রাজশাহী জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ। মঙ্গলবার রাজশাহী শিক্ষাবোর্ডের সামনে মানববন্ধন কর্মসূচী থেকে শিক্ষক নেতৃবৃন্দ এ দাবি জানান। পরে জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে শিক্ষামন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দেয়া হয়।

মানববন্ধনে বক্তারা বলেন- বোর্ড চেয়ারম্যান ড. অধ্যাপক আবুল হায়াত যোগদানের পর থেকে শিক্ষাবোর্ডকে আত্মীকরণ করে ফেলেছেন। শিক্ষকরা তাঁর সঙ্গে দেখা করতে গেলে খারাপ আচরণ করেন। এ সব কারণে বোর্ডের কাজকর্ম স্থবির হয়ে পড়েছে।

এ সময় বক্তব্য দেন, জাতীয় শিক্ষক-কর্মচারী ফ্রন্ট রাজশাহী জেলা শাখার আহ্বায়ক অধ্যক্ষ শফিকুর রহমান বাদশা, যুগ্ম-আহ্বায়ক অধ্যক্ষ রাজকুমার সরকার, অধ্যক্ষ আব্দুল বারী, অধ্যাপক আব্দুর রাজ্জাক প্রমুখ।