২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ভয়াবহ সঙ্কটে উইন্ডিজ ক্রিকেট ॥ লয়েড


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ সঙ্কটে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট- এটা নতুন খবর নয়। বেশ কয়েক বছর ধরেই আর্থিক দৈন্যতায় ভুগছে ক্যারিবিয়রা। বেতন-ভাতা নিয়ে বোর্ডের সঙ্গে একাধিকবার দ্বন্দ্বে জড়িয়ে পড়েছেন ক্রিকেটাররা। যে সূত্রে বাতিল হয়েছে ভারত সফর, সঙ্কটা আরও বেড়েছে। খোলনচে বদলে আনকোড়া জেসন হোল্ডারকে অধিনাযক করে বিশ্বকাপে নামতে হয়েছে এক সময়ের মহাপরাক্রমশালী দেশটিকে। টেনে টুনে কোয়ার্টারে উঠলেও সেখানে নিউজিল্যান্ডের কাছে ভরাডুবি হয় ক্রিস গেইল-ড্যারেন সামিদের। এরই মাঝে দরজায় কড়া নাড়ছে ঘরের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ। সব মিলিয়ে সঙ্কটটা অনেক বেশি বলে মনে করছেন সাবেক কিংবদন্তি ক্লাইভ লয়েড। বর্তমানে যিনি দলটির প্রধান নির্বাচকও। ‘কে কিভাবে দেখছে জানি না, আমি মনে করি ওয়েস্ট ইন্ডিজ ক্রিকেট এখন ভয়বহ দুঃসময়ের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।’ সাবেক অধিনায়ক ও জীবন্ত কিংবদন্তির মতে, ক্যারিবীয় বোর্ডের প্রতি খেলোয়াড়দের ন্যূনতম শ্রদ্ধাবোধ নেই। ‘সমস্যা কেবল অর্থের নয়। বোর্ডের প্রতি খেলোয়াড়দেরও কোন শ্রদ্ধাবোধ নেই। নেই দেশের প্রতি ন্যূনতম কমিটমেন্ট!’ যোগ করেন তিনি। ইংল্যান্ড এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজে। ১৩ তারিখ এ্যান্টিগায় শুরু তিন ম্যাচ সিরিজের প্রথম টেস্ট। আইপিএলে অর্থকরির হাতছানিতে এরই মধ্যে গুরুত্বপূর্ণ ছয়-সাত ক্রিকেটার দেশ ছেড়েছে, বাড়তি চিন্তার এটাও কারণ। সব মিলিয়ে বর্তমান তো বটেই, ক্যারিবিয়ান ক্রিকেটের ভবিষ্যত নিয়েও শঙ্কায় ৭০ বছরের লয়েড।

‘ইংল্যান্ডের বিপক্ষে দল কিভাবে ভাল করবে? সাত-আট খেলোয়াড় তো আইপিএল খেলতে ব্যস্ত। এভাবে চললে ক্যারিবীয় ক্রিকেটে ভয়াবহ বিভক্তি দেখা দেবে। ক্যারিবীয় ক্রিকেটের অস্তিত্বকেও ফেলবে সঙ্কটের মুখে।’ বলেন লয়েড। উত্তরণের জন্য একটাই পথ দেখেন তিনি, দল সাজাতে হবে একেবারে নতুন করে। আসলেই ক্যারিবীয় ক্রিকেটের নাজুক অবস্থা। খেলোয়াড়-বোর্ড দ্বন্দ্ব, নতুন খেলোয়াড় উঠে আসছে না। হোল্ডিং মনে করছেন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজে তার দলের কোন আশাই নেই! উইন্ডিজ ক্রিকেটে অস্তিত্বের সঙ্কট বহুদিন ধরে। বেতন-ভাতা নিয়ে খেলোয়াড়দের সঙ্গে বোর্ডের তিক্ততা এতটা মাত্রা ছাড়িয়ে যায় যে, গত নবেম্বরে ভারত সফরের মধ্যপথে দেশে ফেরেন ক্রিকটাররা! ক্ষিপ্ত ভারত উইন্ডিজের কাছে ২৮ মিলিয়ন ডলার ক্ষতিপূরণ দাবি করে বসে।

একদিকে খেলোয়াড়দের বেতনই দিতে পারছে না, তার ওপর ভারতের ক্ষতিপূরণ। সব মিলিয়ে দেউলিয়াত্বের পথে হাঁটছে উইন্ডিজ বোর্ড, ‘ছেড়ে দে মা, কেঁদে বাঁচি অবস্থা’! সমাধান না হলে ২০১৬ সালে ভারতীয় দল ওয়েস্ট ইন্ডিজ সফর বাতিলের হুমকি দিয়ে রেখেছে। এভাবে চলতে থাকলে দেশটির নতুন প্রজন্ম ক্রিকেট থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে বলেও মনে করেন অনেকে!

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: