২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

প্রার্থিতা বাতিল চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মিন্টুর রিট


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র পদে মনোনয়নপত্র বাতিল চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট আবেদন করেছেন বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আবদুল আউয়াল মিন্টু। রবিবার দুপুরে হাইকোর্টের সংশ্লিষ্ট শাখায় তার আইনজীবী ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন এ রিট আবেদন করেন। আবেদনের পর ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন সাংবাদিকদের বলেন, আজ সোমবার বিচারপতি ফারাহ মাহবুব ও বিচারপতি কাজী ইজারুল হক আকন্দের সমন্বয়ে গঠিত বেঞ্চে শুনানি হতে পারে। রিটে প্রধান নির্বাচন কমিশনার, স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় সচিব, রিটার্নিং অফিসার, বিভাগীয় রিটার্নিং অফিসারসহ সংশ্লিষ্টদের বিবাদী করা হয়েছে। পরে ব্যারিস্টার এহসানুর রহমান ও রাগিফ রউফ চৌধুরী সাংবাদিকদের বলেন, আব্দুল আওয়াল মিন্টুর প্রার্থিতা কেন ফেরত দেয়া হবে না রিটে তা জানতে চাওয়া হয়েছে । তারা বলেন, আমরা আব্দুল আউয়াল মিন্টুর মেয়র পদের প্রার্থিতা ফেরত পাওয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেছি। গত শুক্রবার নির্বাচন কমিশন মিন্টুর মনোনয়নপত্র বাতিল করে রায় দিয়েছে। তাই আমরা নির্বাচন কমিশনের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে প্রার্থিতা ফেরত পাওয়ার নির্দেশনা চেয়ে হাইকোর্টে একটি রিট আবেদন করেছি। শনিবার সন্ধ্যায় আপীল শুনানি করে বিভাগীয় নির্বাচন কমিশনার তার প্রার্থিতা বাতিল করে রায় ঘোষণার পর মিন্টুর আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন সাংবাদিকদের বলেন, মনোনয়ন ফর্মে সমর্থক হিসেবে উল্লিখিত আব্দুর রাজ্জাক উত্তর সিটি কর্পোরেশনের বাসিন্দা। তিনি ভোটারই নন। নির্বাচন কমশিন বলছে, আব্দুর রাজ্জাক যে ইউনিয়নের (উত্তরা ১৩ নং সেক্টর) বাসিন্দা তা উত্তর সিটির মধ্যে পড়ে না। আইনজীবীদের প্রশ্ন, ওই ইউনিয়ন উত্তরের মধ্যেই পড়ে। কারণ, তারা উত্তর সিটিতেই ট্যাক্স দেন। তাদের নাম ভোটার তালিকায় আসেনি এটা নির্বাচন কমিশনের ভুল। তাড়াহুড়া করে নির্বাচন করতে গিয়েই এ ভুল হয়েছে বলে মনে করেন মিন্টুর আইনজীবী মাহবুব উদ্দিন খোকন। তার মক্কেল সরকারী দল সমর্থিত হলে নির্বাচন কমিশন তুচ্ছ এ বিষয়টি সংশোধন করে নিত। তিনি রাজনৈতিক প্রতিহিংসার শিকার হয়েছেন। তার আইনজীবীদের অভিযোগ, আমরা বার বার কাগজপত্র ও প্রমাণ দেখানোর পরও কেন মনোনয়ন বাতিল হলো তা বলতে পারছি না। ব্যারিস্টার মাহবুব উদ্দিন খোকন তখন বলেছিলেন, রিটার্নিং অফিসার আইন না পড়েই বিধি না জেনে মিন্টুর মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন। আমরা আইনী লড়াই চালিয় যাব এবং উচ্চ আদালতে আপীল করব।