২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট পূর্বের ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

নেতৃত্ব নিয়ে ভাবেন না বেইলি


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচ। ব্যাট হাতে অধিনায়ক খেললেন ৫৫ রানের চমৎকার ইনিংস, দল জিতল ১১১ রানের বিশাল ব্যবধানে। শতভাগ ফিট থাকা সত্ত্বেও সেটিই হয়ে থাকল বিশ্বকাপে তার একমাত্র ম্যাচ! এমনটা ভাবা যায়? ভাবনাতীত ঘটানাই ঘটে জর্জ বেইলির ক্ষেত্রে। সুস্থ হয়ে ফিরে নেতৃত্ব দিয়েছেন মাইকেল ক্লার্কÑ বিশ্বকাপ শিরোপা শোভা পেয়েছে তারই হাতে। উইকেটের পেছনে ব্র্যাড হ্যাডিন থাকায় ‘অধিনায়ক বেইলিকে’ দেয়ার মতো জায়গা খুঁজে পাননি অস্ট্রেলিয়ান নির্বাচকরা! তবে এ নিয়ে এতটুকু হতাশা নেই। ‘গত ছয় সপ্তাহ দলের হয়ে মাঠে নামিনি। তবু কল্পনাতেও কখনও নিজেকে অধিনায়ক ভাবি না আমি। দলের সঙ্গে থাকাটাই বড় বিষয়। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে সম্প্রতি কয়েক বছর আমি ক্রিকেটটা দারুণভাবে উপভোগ করছি। দেশের হয়ে খেলা সবসময়ই গর্বের।’ বলেন ৩২ বছর বয়সী বেইলি। ২০১২ সালের ফেব্রুয়ারিতে টি২০তে অভিষেক ম্যাচেই বেইলিকে অধিনায়ক করে ক্রিকেট বিশ্বকে চমকে দিয়েছিল ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া (সিএ)। ব্যাট হাতে দারুণ নৈপুণ্যে ওয়ানডের নিয়মিত সদস্য হয়ে উঠেছিলেন। ইনজুরিপ্রবণ ক্লার্কের পরিবর্তে নেতৃত্ব দিয়েও ছিলে দারুণ সফল। ২৯ ম্যাচের ১৬ জয়। সুতরাং স্বাভাবিক নিয়মে বেইলিরই নেতৃত্ব দেয়ার কথা। কিন্তু দুরন্ত পারফর্মেন্সর পাশাপাশি বয়সে তরুণ হওয়ায় সুযোগটা পেয়ে যেতে পারেন ২৫ বছরের স্মিথ। ফাইনালে অপরাজিত ৫৬ রানের চমৎকার ইনিংস খেলে বিশ্বজয়ে প্রত্যক্ষ ভূমিকা রাখেন নিউসাউথওয়েলস প্রতিভা। এক সময় শেন ওয়াটসনকেই ভাবা হতো অস্ট্রেলিয়ার নতুন প্রজন্মের নেতা, বেশ কিছুদিন ক্লার্কের ডেপুটিও ছিলেন তিনি। মাঠের নৈপুণ্যের পাশাপাশি আচরণে সমস্যা থাকায় এখন আর নেতৃত্বের রেসে নেই ওয়াটসন! পরিস্থিতি যা, তাতে ওয়ানডেতে ক্লার্কের স্থলাভিষিক্ত হচ্ছেন স্মিথই। বেইলি যেন অস্ট্রেলিয়া ক্রিকেটের ‘অনসাং’ হিরো। তাকে দেখে অনেকের স্টুয়ার্ট ম্যাকগিলের কথা মনে পড়বে। বিশ্বের অন্যতম ভয়ঙ্কর স্পিনার হয়েও যিনি শেন ওয়ার্নের ছায়ায় ঢাকা পড়ে ছিলেন। ইনজুরি, বিশ্রাম বা ওয়ার্নের অন্য সব অনুপস্থিতিতে ৪৪ টেস্টে ২০৮ উইকেট তুলে নিয়েছিলেন লেগস্পিনর ম্যাকগিল। অনেকের মতে, ওয়ার্নের সময়ে জন্ম না হলে সে সময় বিশ্বের ‘নাম্বার ওয়ান’ হতেন তিনিই। হ্যাডিনের তারকা-ইমেজের চাপে অনেকটা বয়স করে জাতীয় দলে সুযোগ পান বেইলি। টি২০ দিয়ে শুরু। এরপর ব্যাট হাতে অবিশ্বাস্য নৈপুণ্যে জায়গা করে নেন ওয়ানডেতে। গত দুই বছরে বেশিরভাগ সময় ইনজুরিতে বাইরে ছিলেন ক্লার্ক। এ সময়ে ওয়ানডেতেও সামনে থেকে নেতৃত্ব দেন বেইলি। সেই তিনি বিশ্বকাপে এক ম্যাচ খেলে আর নেই, এখন দলে ফিরতে হাপিত্যেশ করছেন! ক্লার্কের সঙ্গে হ্যাডিনও রঙ্গিন পোশাক তুলে রাখায় উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে হয়ত জায়গাটা ফিরেন পাবেন বেইলি।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: