১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রানা প্লাজা ধসে বেঁচে যাওয়া শ্রমিকদের ৫৫ শতাংশ এখনও বেকার


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ সাভারের রানা প্লাজা ধসের ঘটনায় বেঁচে যাওয়া শ্রমিকদের প্রায় ৫৫ শতাংশ এখনও কর্মহীন রয়েছে। রানা প্লাজা ধসের দুই বছর পূর্তি উপলক্ষে বেসরকারী সংস্থা এ্যাকশন এইডের এক গবেষণায় এমন তথ্য উঠে আসে। শ্রমিকদের শারীরিক দুর্বলতা, মানসিক আঘাত, সন্তোষজনক চাকরি না পাওয়া এবং চাকরিদানে নিয়োগকর্তাদের অনীহাকে এর কারণ হিসেবে উল্লেখ করা হয়। এছাড়া তাদের মধ্যে কেউ কেউ অসুস্থতা ও পঙ্গুত্বের কারণে চাকরি করার ক্ষমতা হারিয়ে ফেলেছেন। শনিবার রাজধানীর ব্র্যাক সেন্টারে এক অনুষ্ঠানে এই তথ্য জানানো হয়। ‘রানা প্লাজা দুর্যোগের পর পঙ্গুত্বের সঙ্গে লড়াইকারীদের আর্থ-সামাজিক পুনরাবৃত্তি ও পুনর্বাসন’ প্রকল্পের আওতায় ইন্টারন্যাশনাল লেবার অর্গানাইজেশনের (আইএলও) সহায়তায় এ্যাকশন এইড এসব জরিপ চালায়।

অনুষ্ঠানে জানানো হয়, ওই দুর্ঘটনার ছয় মাস পরে ১ হাজার ৫০৯ জন শ্রমিকের ওপর সংস্থাটির পরিচালিত জরিপে দেখা যায়, তাদের মধ্যে ৭ দশমিক ১৬ শতাংশ শ্রমিক কাজে যোগদান করতে সক্ষম হয়েছেন। এক বছর পরে ১ হাজার ৪৩৬ জন শ্রমিকের ওপর সংস্থাটির পরিচালিত জরিপে দেখা যায়, তাদের মধ্যে ২৬ দশমিক ৩২ শতাংশ শ্রমিক কাজে যোগদান করেছেন। দুই বছরের পরের জরিপে দেখা যায় প্রায় ৫৫ শতাংশ এখনও চাকরিহীন রয়েছেন। চাকরিদাতারা শ্রমিকের সুস্থতা, শারীরিক সক্ষমতা, উৎপাদন ক্ষমতা, কারখানার পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নেয়ার মানসিক সমস্যা, পোশাক কারখানা ব্যতীত কাজ করার দক্ষতা না থাকা, সাভার এলাকার বাইরে কাজ করতে যেতে না পারা, প্রত্যাশিত ও প্রস্তাবিত বেতনের ব্যবধান এবং বেঁচে থাকা শ্রমিকদের বিশেষ চাহিদা বোঝার ক্ষেত্রে বোধগম্যতার অভাব তাদের চাকরি পাওয়ার ক্ষেত্রে চ্যালেঞ্জ হিসেবে দেখা দিয়েছে বলে গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়।

নিজ উদ্যোগে নতুন কিছু করার মতো সাহস ও দক্ষতার অভাব তাদের জন্য চ্যালেঞ্জ হিসেবে রয়েছে। এছাড়া ঝুঁকি নেয়ার সক্ষমতার সীমাবদ্ধতা, আয়ের নিরাপত্তার অনিশ্চয়তা, ব্যবসায়ের পারিপার্শ্বিক জ্ঞানের সীমাবদ্ধতা, ব্যাংক, আর্থিক বিষয়, ভ্যালু চেন, বাজারের ওপর সীমিত জ্ঞান ও ব্যবসায়ের জন্য উপযুক্ত এলাকার গুরুত্ব অনুধাবন অথবা উৎপাদন ক্ষমতাও এসব শ্রমিকের জন্য বড় ধরনের চ্যালেঞ্জ।

অনুষ্ঠানে বিকেএমইএ’র প্রথম সহ-সভাপতি মুহাম্মদ হাতেম বলেন, রানা প্লাজার ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমিকদের যোগ্যতা অনুসারে তারা চাকরি দিতে আগ্রহী। এ ব্যাপারে বিকেএমইএ ও বিজিএমইএ’র কাছে তালিকা দেয়া হলে তারা দ্রুততার সঙ্গে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে বলেও আশ্বস্ত করেন তিনি।

এ্যাকশন এইডের পরিচালক আসগর আলী সবরীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আলোচনায় অংশ নেন সংস্থার উপ-পরিচালক আমানুর রহমান, আইএলও‘র প্রোগ্রাম ম্যানেজার টমো পটিয়ানেন ও জিআইজেড প্রতিনিধি ড. জোসেন ইউকার্ট।

সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার

স্টাফ রিপোর্টার ॥ বর্তমান পরিস্থিতিতে সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের গণতান্ত্রিক পরিবেশ নেইÑএমন অভিযোগ তুলে তিন সিটি নির্বাচন থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার একাংশ। শনিবার তোপখানা রোডে মোর্চার কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এই ঘোষণা দেয়া হয়। তবে মোর্চার অপর অংশের মেয়র প্রার্থী জোনায়েদ সাকি এখনও নির্বাচনী মাঠে আছেন। নির্বাচনে অংশগ্রহণ ইস্যুকে কেন্দ্র করে মোর্চায় বিভক্তি দেখা দেয়।

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের প্রেক্ষিতে গণতান্ত্রিক বাম মোর্চার বক্তব্য দেশবাসীর কাছে তুলে ধরার লক্ষ্যে সংবাদ সম্মেলন করা হয়। ৫ জানুয়ারির প্রহসনমূলক নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের সম্মতি ও ভোট ছাড়াই রাষ্ট্র ক্ষমতা দখল করে দেশ চালাচ্ছে মহাজোট সরকার।