২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আন্তর্জাতিক শিশুগ্রন্থ দিবস রূপকথার রাজপুত্রের জন্মদিন


রূপকথার রাজপুত্রকে জানো? হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসন। ডেনিশ, মানে ডেনমার্কের এই লেখক তাঁর রূপকথাগুলোর জন্যই অমর হয়ে আছেন। তাঁর বিখ্যাত কিছু কবিতাও আছে। সবচেয়ে বিখ্যাত কবিতাটার নাম জেগ এর এন স্ক্যান্ডিনেভ, ইংরেজী করলে হয় আই এম এ স্ক্যান্ডিনেভিয়ান।

হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসনের জন্ম হয় ১৮০৫ সালের ২ এপ্রিল, মঙ্গলবার, ডেনমার্কের ওডেন্স শহরে। হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসনের জন্মদিনটিকে ‘ইন্টারন্যাশনাল চিল্ড্রেন’স বুক ডে’ বা ‘আন্তর্জাতিক শিশুগ্রন্থ দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়। দিবসটি পালন করে ‘ইন্টারন্যাশনাল বোর্ড অব বুকস ফর ইয়াং পিপল’ নামের একটি আন্তর্জাতিক সংগঠন। সংগঠনটি হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসন এ্যাওয়ার্ড নামে একটা এ্যাওয়ার্ডও প্রদান করে। এ্যাওয়ার্ডটিকে বলা হয় শিশুসাহিত্যের নোবেল। হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসন এ্যাওয়ার্ড শুধু শিশুসাহিত্যিককেই দেয়া হয় না, সঙ্গে ছোটদের বইয়ের একজন ইলাস্ট্রেটর মানে আঁকিয়েও দেয়া হয়।

হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসন লিটারেচার এ্যাওয়ার্ড নামে আরও একটি এ্যাওয়ার্ড দেয়া হয় ডেনমার্ক থেকে। হ্যান্স ক্রিশ্চিয়ান এ্যান্ডারসন লিটারেচার এ্যাওয়ার্ড প্রদান শুরু হয়েছে ২০১০ সাল থেকে। আর প্রথমবার এটি জিতে নেন ‘হ্যারি পটার’-এর লেখিকা জে কে রাওলিং।

১৮৩৫ সাল এ্যান্ডারসনের জীবনের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বছরগুলোর একটি। এ বছরই প্রকাশিত হয় তাঁর প্রথম রূপকথার বইÑ ফেইরি টেইলস, টোল্ড ফর চিল্ড্রেন।

পৃথিবীর কোথায় কোথায় এই রূপকথার রাজপুত্রের মূর্তি আছে জানো? তিনি ছিলেন ড্যানিশ লেখক। তাঁর জীবনের গুরুত্বপূর্ণ বছরগুলো কাটিয়েছিলেন ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে। সুতরাং, সেখানে তাঁর মূর্তি তো থাকতেই হবে। সেখানে অবশ্য ঠিক তাঁর নিজের মূর্তি নেই, আছে তাঁর বিখ্যাত মৎস্যকন্যার মূর্তিÑ স্ট্যাচু অব দি লিটল মারমেইড। তাঁর নিজের মূর্তি আছে আমেরিকার নিউইয়র্ক আর ক্যালিফোর্নিয়ায়।

জাপানে তাঁর নামে একটা আস্ত থিম পার্কই আছে। পোল্যান্ডে তাঁর নামে আছে একটা আস্ত থিয়েটার, যেখানে অভিনয়ের পাশাপাশি পাপেট শোও হয়। ২০০৬ সালে চীনের সাংহাই শহরে রীতিমতো এলাহীকা- হয়ে গেছে। সেখানে প্রায় ১৩ মিলিয়ন ডলার খরচ করে একটা থিম পার্ক বানানো হয়েছে। পার্কটি শুধু তাঁর নামেই করা হয়নি, এটির সব রাইড তাঁর জীবন আর রূপকথার গল্প নিয়ে বানানো হয়েছে।