২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

আদমদীঘি ও দৌলতপুরে সংঘর্ষ ॥ নারীসহ আহত ৩০


নিজস্ব সংবাদদাতা, সান্তাহার, ৩ এপ্রিল ॥ বগুড়ার আদমদীঘি উপজেলার বিহিগ্রাম বাপ্পিহার পাড়ায় ইরি স্কিমের জমিতে স্থাপন করা সেচপাম্প তথা অগভীর ও গভীর নলকূপ সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে শুক্রবার সকালে এক রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে নারীসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের মধ্যে মোজাফ্ফর হোসেন, সিরাজুল ইসলাম, জিয়াউর রহমান, রাবেয়া বেগম ও মোজাম হোসেনসহ ৬ জনকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে এবং এমদাদুল হক ও জাহাঙ্গীর আলমকে আদমদীঘি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এই ঘটনায় দু’পক্ষের মধ্যে চাপা ক্ষোভ ও উত্তেজনা বিরাজ করছিল। শুক্রবার সকালে আশরাফ আলী পক্ষের লোকজন লাঠি, লোহার রড ও ধারালো সুলপিসহ নানা দেশীয় অস্ত্রে সজ্জিত হয়ে বাপ্পিহার পাড়ায় মোজাফ্ফর হোসেনের বসতবাড়িতে হামলা চালিয়ে মোজাফ্ফর হোসেনসহ তার লোকজনকে বেদম মারপিট করে। এ সময় উভয়পক্ষের লোকজন সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। এতে নারীসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়।

নিজস্ব সংবাদদাতা দৌলতপুর থেকে জানান, কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষে মহিলাসহ অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছে। আহতদের কুষ্টিয়া ও রাজশাহী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার রিফায়েতপুর ইউনিয়নের হাসানপুর গ্রামে সংঘর্ষের এ ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, রনজিত মেম্বর ও জাহাঙ্গীর মেম্বরের মধ্যে দীর্ঘদিন ধরে জমি সংক্রান্ত পূর্ব বিরোধ চলে আসছিল। এরই জের ধরে ঘটনার দিন সকালে রনজিত মেম্বরের বাড়ির লোকজন প্রতিপক্ষ জাহাঙ্গীর মেম্বরের জমির ওপর দিয়ে নিজ ক্ষেতে গেলে এনিয়ে উভয়ের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। একপর্যায়ে জাহাঙ্গীর মেম্বর ও তার সহযোগী মজনুর নেতৃত্বে ২০-২৫ জন দেশীয় বিভিন্ন প্রকার ধারাল অস্ত্র নিয়ে রনজিত মেম্বর ও তার লোকজনের ওপর হামলা চালায়। এ সময় উভয়পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ বাঁধে। প্রায় ঘণ্টাব্যাপী চলা সংঘর্ষে উভয়পক্ষের অন্তত ১৫ জন আহত হয়।