১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিসিসিআই দ্বিধাবিভক্ত! ভারতের সফর অনিশ্চিত


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ক্রিকেট বোধ হয় এখন আর ভদ্রলোকের খেলার জায়গায় নেই। ‘ডিপ্লোমেসিটা’ ঢুকে পড়েছে অনেক আগেই, সেটি এখন আরও ছাড়িয়ে যাওয়ার উপক্রম! ভারত ক্রিকেট দল দ্বিপক্ষীয় সিরিজ খেলতে বাংলাদেশে আসবে কি নাÑঅকল্পনীয়ভাবে তার সঙ্গে জড়িয়ে গেছে দু’দেশের জাতীয় রাজনীতিও! ঘটনার শুরু ভারত-বাংলাদেশ কোয়ার্টার ফাইনালে আম্পায়ারদের বিতর্কিত সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়ে। পরবর্তীতে সংস্থাটির ঐতিহ্য ও নিয়ম ভেঙ্গে সভাপতি মুস্তফা কামালকে উপেক্ষা করে চেয়ারম্যান এন শ্রীনিবাসনের চ্যাম্পিয়ন অস্ট্রেলিয়ার হাতে ট্রফি তুলে দেয়া ...। কামালের পদত্যাগ। পূর্বাপর বিশ্ব ক্রিকেটের আলোচিত ঘটনা এটি।

পরিস্থিতি যা, তাতে শ্রীনিবাসনের ‘ইগো’ রক্ষায় আগামী জুনে পূর্ব নির্ধারিত বাংলাদেশ সফর বাতিলের পাঁয়তারা করছে ইন্ডিয়ান বোর্ড (বিসিসিআই)! অন্যদিকে কোনভাবেই বন্ধুপ্রতীম বাংলাদেশের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি চাইবে না নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন ভারত জাতীয় সরকার। তার ওপর পদত্যাগের ঘোষণার সময়ই মুস্তফা কামাল পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছেন, তার লড়াই বিসিসিআইর বিপক্ষে নয়, লড়াই আইসিসি ও শ্রীনিবাসনের অন্যায়ের বিরুদ্ধে। ভারত আদৌ বাংলাদেশ সফর করবে কি নাÑ এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে দ্রুত বিশেষ সভায় বসতে যাচ্ছে বিসিসিআই। ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের সূত্রমতে মাঠ ও মাঠের বাইরের অনেক অঙ্কই থাকবে ওই সভায়! যেখানে শ্রীনি ও তার দোসররা চাইবেন সফর বাতিল হোক। বিরোধীরা সেটি নাও চাইতে পারেন। ‘শ্রীনিপন্থীরা বিসিসিআইকে জোর করতে পারে যাতে সফরটি বাতিল করা হয়। কারণ শ্রীনি আইসিসিতে বিসিসিআইর প্রতিনিধি। আর কামাল তাকেই ধুয়ে দিতে চাইছেন।’ বলেন বিসিসিআইর এক কর্মকর্তা।

তিনি আরও যোগ করেন, ‘বিসিসিআইর ভেতরেও এখন অনেকে শ্রীনির বিরোধী আছেন। তারা এই প্রস্তাবের বিরোধিতা করবেনই। তারা যুক্তি দেবেন, কামালের সমস্য শ্রীনি ও আইসিসির সঙ্গে বিসিসিআই বা ভারত সরকারের সঙ্গে নয়। তবে শ্রীনির যা স্বভাব তাতে বাংলাদেশ সফর বাতিল করতে হয়ত ভারত সরকারকেও প্রভাবিত করতে চাইবেন তিনি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সরকারের কয়েক মন্ত্রী বিসিসিআইয়ে আছেন, বিরোধীরা তাদের দলভুক্ত করে শ্রীনিকে চাপে ফেলতে সর্বোচ্চ চেষ্টাটাই করবেন।

অন্যদিকে ‘শ্রীনি-কামাল’ ইস্যু আসন্ন পাকিস্তান, এমন কি ভারতের বাংলাদেশ সফরেও প্রভাব ফেলবে না বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। ‘আমার কাছে এই মুহূর্তে পাকিস্তানের বাংলাদেশ সফরই অধিক গুরুত্বপূর্ণ। আর মুস্তফা কামালের বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে কথা বলতে হবে। তবে এটা বলব, বিশ্বকাপ ট্রফি দিয়ে শ্রীনি অন্যায়ই করেছেন। আমি এর প্রতিবাদ জানিয়েছি। আশা করব ভারতের দ্বিপক্ষীয় সিরিজে এর কোন প্রভাব পড়বে না। কিছুদিনের মধ্যে আমি ভারতে যেতেও পারি।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: