২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

গাজীপুরে মা-মেয়েকে কুপিয়ে হত্যা ॥ ছিনতাইকারীর হাতে গৃহবধূ খুন


নিজস্ব সংবাদদাতা, গাজীপুর, ৩১ মার্চ ॥ গাজীপুরোর কাপাসিয়ায় বৃদ্ধা সূর্যি বেগম ও তাঁর মেয়েকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। সোমবার রাতে ঘরে ঢুকে ঘুমন্ত অবস্থায় তাঁদের কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এদিকে কালিগঞ্জে মঙ্গলবার সকালে গৃহবধূ মিনারা বেগমকে (৪০) রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে এক ছিনতাইকারী।

পুলিশ ও এলাকাবাসী জানায়, কাপাসিয়ার পাবুর এলাকায় অসুস্থ বৃদ্ধা সূর্যি বেগম (৭৫) ও তাঁর মেয়ে স্বামী পরিত্যক্তা মাবিয়া বেগম (৫৫) সোমবার রাতে খাবার খেয়ে একই ঘরে ঘুমিয়ে পড়েন। গভীর রাতে দুর্বৃত্তরা ঘরে ঢুকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাদের হত্যা করে। পরে ঘরে থাকা একটি ট্রাঙ্কের তালা ভেঙ্গে ৪/৫ হাজার টাকা নিয়ে পালিয়ে যায়। মঙ্গলবার সকালে ঘুম থেকে তাঁদের উঠতে দেরি দেখে সূর্যি বেগমের পূত্রবধূ তাঁদের ডেকে তুলতে গিয়ে ঘরের দরজা খোলা দেখতে পায়। পরে সে ঘরের ভেতরে ঢুকে রক্তাক্ত ও এলোপাতাড়ি কোপানো অবস্থায় সূর্যি বেগম ও তাঁর মেয়ে মাবিয়া বেগমের লাশ দেখতে পেয়ে চিৎকার দিলে এলাকাবাসী এগিয়ে আসে। খবর পেয়ে কাপাসিয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে নিহত মা ও মেয়ের লাশ উদ্ধার করে গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। কারা কেন এ খুনের ঘটনা ঘটিয়েছে তা এখনও জানা যায়নি। এ ঘটনায় এখন পর্যন্ত কাউকে আটক করা সম্ভব হয়নি।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার মোঃ হারুন-অর রশিদ ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে জানান, মাদকাসক্তরা টাকার জন্য এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে। তবে অতিসত্বর দায়ীদের খুঁজে বের করা হবে।

এদিকে কালীগঞ্জের সাওরাইদ এলাকায় মঙ্গলবার সকালে গৃহবধূ মিনারা বেগমকে রড দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করেছে এক ছিনতাইকারী।

কালীগঞ্জ থানার ওসি মোস্তাফিজুর রহমান জানান, মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে সাওরাইদ গ্রামের প্রবাসী শাহাবুদ্দিনের স্ত্রী মিনারা বেগম (৪০) বাড়ির পাশে কাজ করছিলেন। এ সময় এলাকার চিহ্নিত ছিনতাইকারী নুরে আলম (২৫) ওই গৃহবধূর গলা থেকে চেন ছিনিয়ে নিয়ে পালানোর চেষ্টা করলে তিনি চিৎকার দেন। এ সময় নূরে আলম লোহার রড দিয়ে মিনারা বেগমের মাথায় আঘাত করে পালিয়ে যায়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনি মহিলা মারা যান। খবর পেয়ে কালিগঞ্জ থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে গৃহবধূর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিক্যাল কলেজে হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। ছিনতাইকারী নূরে আলমকে গ্রেফতার করতে পারেনি পুলিশ।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: