২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

স্বপ্নিল বিদায়ের অপেক্ষায় ভেট্টোরি


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ড্যানিয়েল ভেট্টেরি যেন সিনেমার কোন চরিত্র। বয়স ৩৬। আন্তর্জাতিক ক্রিকেটেই আছেন ১৮ বছর। জীবনের অর্ধেকটা সময়ই পার করে দিলেন মাঠে। ক্লাব ক্রিকেট ধরলে সময়টা আরও বেশি। সাফল্য-ব্যর্থতা, উত্থান-পতন, ইনজুরি-নেতৃত্ব, এ সময় সব কিছুই দেখেছেন। শত প্রতিকূলতা জয় করে বল হাতে দিনের পর দিন উইকেট তুলে নিয়ে হয়েছেন কিংবদন্তি। সেই ভেট্টোরি দেশের হয়ে শেষ ওয়ানডে খেলতে যাচ্ছেন আজ। তাও আবার তার দেশ নিউজিল্যান্ড যখন প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের ফাইনালে! ভেট্টোরি নিজে যদিও অবসরের ঘোষণা দেননি। তবে অধিনায়ক ব্রেন্ডন ম্যাককুলামের কথায় তা পরিষ্কার। ‘নিউজিল্যান্ডের মাটিতে সম্ভবত শেষ ম্যাচ খেলে ফেলেছে ভেট্টোরি। ম্যাচ শেষে ওর সঙ্গে মাঠে নেমেছিলাম। ওকে দেখে বুঝতে পারলাম, ওটা এখন একটা স্মৃতি, যা সারজীবন মনে রাখবে। ফাইনালে ওঠায় আরও একটা সুযোগ। এর চেয়ে ভাল কিছু আর হতে পারত না। আশা করি মেলবোর্নে দুর্দান্তভাবে শেষ করে ওর জন্য জমকালো পার্টির আয়োজন করতে পারব। তারপর আমার সারারাত উৎসব করব!’ সেমিতে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জয়ের পর বলেন কিউই অধিনায়ক। গোটা নিউজিল্যান্ডই তা চাইছে, সেটা হতে পারে প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপ জয়ের মধ্য দিয়ে। প্রায় দুই বছর আগে ভেট্টোরি নিজেই বলেছিলেন, নিউজিল্যান্ডের হয়ে খেলার আশা প্রায় ছেড়ে দিয়েছেন। সেই তিনি দুর্ধর্ষ কিউইদের বিশ্বকাপ স্কোয়াডের মহাগুরুত্বপূর্ণ সদস্য! পিঠের ব্যথা নিয়েই খেলেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে। জানিয়েছেন প্রয়োজনে ইনজেকশন নিয়ে ফাইনালে মাঠে নামবেন এবং অবসরের কথা ভেবে মনোযোগ সরাতে চাইছেন না ভেট্টোরি। ‘আমি কি ভাবছি সেটা গুরুত্বপূর্ণ নয়। গুরুত্বপূর্ণ হলো আমি খেলাটি উপভোগ করছি কি না। আপাত বিশ্বকাপের ফাইনালটা উপভোগ করতে চাই। দেশবাসীর মতো গত ১৮ বছর আমি এই দিনটির অপেক্ষাতেই ছিলাম। আশা করছি স্বপ্ন পূরণ হবে।’ বিশ্বকাপে ভেট্টোরির খেলাটা মোটেই টেনে-হিচড়ে জোর করে চালিয়ে যাওয়ার মতো নয়। ৮ ম্যাচে ১৮ উইকেট নিয়ে আসরের ষষ্ঠ সর্বাধিক শিকারি তিনি। স্পিনারদের মধ্যে সবার ওপরে! ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে কোয়ার্টার ফাইনালের কথা নিশ্চই ভুলে যাননি ক্রিকেটপ্রেমীরা। ব্যাট হাতে অসময়ে ঝড় তোলা জোনাথন কার্টার ও জেসন হোল্ডারকে ফিরিয়ে দিয়ে ক্যারিবীয়দের কবরে ঢুকিয়ে দিয়েছিলেন তিনি। সবাই জানেন অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশন স্পিনারদের জন্য কতটা কঠিন। অথচ প্রতি ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ সময়ে উইকেট তুলে নিয়ে দলকে সাহায্য করছেন বাঁহাতি অর্থোডক্স স্পিনার। কেবল বোলিংই নয়, টেলএ্যান্ডে ব্যাট হাতেও দুর্দান্ত। ভেট্টোরির অপরাজিত ১৬ রানের সৌজন্যেই গ্রুপ পর্বে বাংলাদেশের বিপক্ষে নাটকীয় জয় পেয়েছিল নিউজিল্যান্ড। ১৯৯৭ সালের শুরুর দিকে টেস্ট-ওয়ানডে দিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে আগমন। ১১৩ টেস্টে ৩৬২ ও ২৯৪ ওয়ানডেতে শিকার ৩০৫। যথাক্রমে ৪৫৩১ ও ২২৪০ রান ভেট্টোরিকে বসিয়েছে অলরাউন্ডারের আসনে। টেস্টে সেঞ্চুরি রয়েছে ৬। আধুনিক নিউজিল্যান্ডের সেরা এক ক্রিকেট চরিত্রের বিদায় পূর্ণতা পেতে পারে কেবল শিরোপা জয়ের মধ্য দিয়ে। যা বাস্তবায়নে মরিয়া ম্যাককুলামরা।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: