১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অন্তত দুই ক্রুর ককপিটে থাকা বাধ্যতামূলক করা হবে


ইউরোপের আল্পস পর্বতমালায় জার্মান উইংসের বিমান বিধ্বস্ত হয়ে ১৫০ জনের মৃত্যুর পর বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থার ঘোষণা দিয়েছে জার্মান এভিয়েশন এ্যাসোসিয়েশন। সংগঠনটি বলছে বিমানের অন্তত দুজন ক্রু সবসময় বিমানের ককপিটে থাকার নিয়ম বাধ্যতামূলক করা হবে। খবর বিবিসির।

ভার্জিন এয়ার ও ইজিজেটসহ বেশকটি ইউরোপীয় এয়ারলাইনার ইতিমধ্যেই এই ব্যবস্থা নেবার ঘোষণা দিয়েছে। বিমানটির সহকারী পাইলটই ইচ্ছাকৃতভাবে বিমানটি ধ্বংস করেছেন বলে উদ্ধার করা ডাটা রেকর্ডার থেকে জানা যাচ্ছে। এর পরই এমন ঘোষণা এলো। একজন ফরাসি তদন্ত কর্মকর্তা বলছেন ঘটনার সময় বিমানের পাইলট ককপিটের বাইরে গিয়েছিলেন। তখন কো পাইলট ককপিটের দরজা বন্ধ করে দেন। পাইলটের কোন ডাকে তিনি সাড়া দেননি। দেড়শ আরোহীকে সঙ্গে নিয়ে কো-পাইলট আন্দ্রিয়াস লুবিৎয কেন স্বেচ্ছায় আল্পসের দিকে বিমান উড়িয়ে নিয়ে বিধ্বস্ত করলেন তার জবাব খুঁজতে তাকে নিয়ে এখন চলছে চুলচেরা বিশ্লেষণ। লুবিৎয-এর বাড়ি গিয়ে তল্লাশি চালানো হয়েছে কিন্তু সেখানে সন্দেহজনক কিছু চোখে পড়েনি তদন্তকারীদের। উগ্র কোনও গোষ্ঠীর সঙ্গেও তার কোনও সংশ্লিষ্টতার প্রমাণ এখনও পাওয়া যায়নি। লুবিৎয-এর প্রতিবেশীরা বলছেন, তিনি শান্ত ও বন্ধুবৎসল ছিলেন। তিনি এত বড় একটা কা- ঘটাতে পারেন সেটি তাদের কাছে বোধগম্য নয়। মঙ্গলবার স্পেনের বার্সেলোনা থেকে ১৪৪ জন যাত্রী ও ৬ জন ক্রু নিয়ে জার্মানির ডুসেলডর্ফ যাবার পথে বিমানের সহকারী চালক বিমানটিকে স্বেচ্ছায় উড়িয়ে নিয়ে আল্পসের পাথুরে পর্বতের গায়ে আছড়ে পড়েন বলে তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন। এতে আরোহীদের সকলের মৃত্যু হয়।