২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাকৃবির ৪৮ শিক্ষকের পদত্যাগপত্র জমা


বাকৃবি সংবাদদাতা ॥ নৈতিক স্খলন, নারী কেলেঙ্কারি, স্বেচ্ছাচারিতা, নিয়োগে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে বাংলাদেশ কৃষি বিশ্বদ্যিালয়ের (বাকৃবি) উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ রফিকুল হকের পদত্যাগের দাবিতে প্রশাসনের বিভিন্ন দায়িত্ব থেকে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের ৪৮ জন শিক্ষক। মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে রেজিস্ট্রার বরাবর ওই পদত্যাগপত্র জমা দেয়া হয়েছে বলে জানিয়েছেন শিক্ষক ফোরামের সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক ড. মোঃ এনামুল হক। এদিকে ক্যাম্পাসে শান্তি-শৃঙ্খলা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার দাবিতে মানববন্ধন করেছে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগ।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ রফিকুল হকের বিরুদ্ধে নৈতিক স্খলন, নারী কেলেঙ্কারি, স্বেচ্ছাচারিতা ও দুর্নীতির প্রতিবাদে উপাচার্যের নিয়োগকৃত ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা, প্রক্টর, কো-অর্ডিনেটর, বিশ্ববিদ্যালয় রিসার্চ সিস্টেমের পরিচালক, হল প্রভোস্ট , হাউজ টিউটরসহ ৮০ জন শিক্ষকের পদত্যাগের কথা জানান আওয়ামীপন্থী শিক্ষকদের ওই সংগঠন। তারই ধারাবাহিকতায় মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ৪৮ জন শিক্ষকের পদত্যাগপত্র রেজিস্ট্রারের কাছে জমা দেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক। পদত্যাগ করার কথা থাকলেও ছাত্রবিষয়ক উপদেষ্টা এবং প্রক্টর কেউ পদত্যাগপত্র জমা দেননি বলে জানা গেছে।

এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি-শৃঙ্খলা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার দাবিতে দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে কেন্দ্রিয় গ্রন্থাগারের সামনে মানববন্ধন করে শাখা ছাত্রলীগ। শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মোঃ মুর্শেদুজ্জামান খানের সভাপতিত্বে এবং সাধারণ সম্পাদক সাইফুল ইসলামের সঞ্চালনায় বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি বিজয় বর্মণ, ওয়াহাব রিন্টু, লিমন দেব প্রমুখ। মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আপনারা (শিক্ষকরা) ব্যক্তিগত স্বার্থ চিন্তা বাদ দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের শান্তি-শৃঙ্খলা ও শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে কাদা ছোড়াছুড়ি বন্ধ করুন। কারও ব্যক্তিগত বিষয় নিয়ে মাতামাতি না করে বিশ্ববিদ্যালয়ের মানসম্মানের দিকে নজর দেয়ারও অনুরোধ জানান।

পদত্যাগপত্র জমার বিষয়টি নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার আবদুল খালেক বলেন, প্রশাসনের বিভিন্ন পদে দায়িত্ব পালনরত ৪৮ জন শিক্ষক তাদের প্রশাসনিক দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি চেয়ে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। পদত্যাগপত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। তবে এখনও দাফতরিকভাবে কোন সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: