২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিএসএমএমইউর নয়া রেজিস্ট্রার অধ্যাপক আসাদুল ইসলাম


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের নতুন রেজিস্ট্রার হলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রার ও ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগের অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আসাদুল ইসলাম। তিনি গত বুধবার এ দায়িত্ব গ্রহণ করেন। অধ্যাপক সায়েদুর রহমানের স্থলাভিসিক্ত হলেন তিনি।

অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আসাদুল ইসলাম ১৯৫৯ সালের ৩০ জুন খুলনা বিভাগের ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের কানাইডাঙ্গা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তাঁর পিতার নাম মকছেদ আলী খান এবং মাতার নাম মোছাঃ রোমেলা বেগম। তিনি ১৯৮৬ সালে বরিশালের শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ থেকে এমবিবিএস পাস করেন। চিকিৎসা বিজ্ঞানে সাবেক আইপিজিএম এ্যান্ড আর (বর্তমানে বিএসএমএমইউ) থেকে ১৯৯৮ সালে উচ্চতর ডিগ্রী (ডিবিএসএ্যান্ডটি) অর্জন করেন। তিনি চট্টগ্রামের কামারখালী ইউনিয়ন সাব-সেন্টারে মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে কর্মজীবন শুরু করেন। এরপর কুষ্টিয়া, মেহেরপুর ও ঢাকার বিভিন্ন হাসপাতালে মেডিক্যাল অফিসার হিসেবে রোগীদের চিকিৎসা সেবার মহান পেশায় যুক্ত থেকে দায়িত্ব পালন করেছেন।

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ে তিনি ব্লাড ট্রান্সফিউশন মেডিসিন বিভাগে মেডিক্যাল অফিসার, সহকারী অধ্যাপক ও সহযোগী অধ্যাপক হিসেবে চিকিৎসাসেবা দিয়েছেন এবং বর্তমানে শিক্ষকতা করছেন। অধ্যাপক ডাঃ মোঃ আসাদুল ইসলাম এ বিভাগে ২০১৩ সালের ৩০ জুন অধ্যাপক হিসেবে নিযুক্ত হন। তিনি ২০০৯ সাল থেকে শিক্ষকতার পাশাপাশি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল বিশ্ববিদ্যালয়ের অতিরিক্ত রেজিস্ট্রারের দায়িত্ব পালন করেছেন। ইতোমধ্যে দেশ-বিদেশের চিকিৎসাবিষয়ক বিভিন্ন জার্নালে তাঁর ৫০টির মতো গবেষণা ও চিকিৎসা বিজ্ঞান সংক্রান্ত বিভিন্ন প্রবন্ধ, নিবন্ধ প্রকাশিত হয়েছে। বাংলাদেশে রক্ত পরিসঞ্চালন সার্ভিসের উন্নয়নের জন্য নিরাপদ রক্ত পরিসঞ্চালন কর্মসূচী, নিরাপদ রক্ত আইন প্রণয়ন ২০০২, নিরাপদ রক্ত পরিসঞ্চালন বিধিমালা ২০০৮, ন্যাশনাল ব্লাড পলিসি ও ন্যাশনাল স্ট্যান্ডার্ড অব ব্লাড ট্রান্সফিউশনসহ অন্যান্য কার্যক্রমে অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছেন। তার অক্লান্ত পরিশ্রমে বাংলাদেশে ব্লাড টান্সফিউশন সোসাইটি অব বাংলাদেশ (বিটিএসবি)-এর কার্যক্রম শুরু হয় এবং বর্তমানে তিনি বিটিএসবি-এর সহ-সভাপতি।

তিনি ইন্টারন্যাশনাল সোসাইটি অব ব্লাড ট্রান্সফিউশন (আইএসবিটি)-এর সক্রিয় সদস্য। বর্তমানে তিনি ন্যাশনাল সেইফ ব্লাড ট্রান্সফিউশন এক্সপার্ট কমিটির সাধারণ সম্পাদক ও এশিয়ান এ্যাসোসিয়েশন অব ট্রান্সফিউশন মেডিসিন (এএটিএম)-এর বাংলাদেশ চ্যাপ্টারের সেক্রেটারির দায়িত্ব পালন করছেন। পারিবারিক জীবনে তিনি স্ত্রী ও দুই সন্তানের জনক।