২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সঞ্চয়পত্র বিক্রি বেড়ে যাওয়ায় সরকার ঋণ নিচ্ছে না


অর্থনৈতিক রিপোর্টার ॥ চলতি অর্থবছরে বাজেট ঘাটতি মেটাতে ব্যাংক থেকে ৩১ হাজার ২২১ কোটি টাকা ঋণ নেয়ার লক্ষ্যমাত্রা ধরেছিল সরকার। কিন্তু সঞ্চয়পত্র বিক্রি অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে যাওয়ায় ব্যাংক ব্যবস্থা থেকে সরকারের ধার করার প্রয়োজন পড়ছে না। ফলে ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত নিট হিসাবে ব্যাংকিং খাত থেকে কোন অর্থ ধার করেনি সরকার।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্য অনুযায়ী, চলতি অর্থবছরের প্রথম আট মাসে (জুলাই-ফেব্রুয়ারি) সরকার ব্যাংক থেকে মোট যত টাকা ঋণ নিয়েছে তার থেকে বেশি আগের নেয়া ঋণের সুদ-আসল বাবদ পরিশোধ করেছে। গত অর্থবছরের একই সময়ের তুলনায় ব্যাংক থেকে সরকারের নিট ঋণ ছয় হাজার ৪৬০ কোটি টাকা ঋণাত্বক হয়েছে। অর্থাৎ এই সময়ে সরকার বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে নেয়া আগের ঋণের সুদ-আসল বাবদ নয় হাজার ৪৭৩ কোটি টাকা পরিশোধ করেছে। তবে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো থেকে এই সময়ে সরকার প্রায় সাড়ে তিন হাজার কোটি টাকা ঋণ নিয়েছে। সে হিসেবে জুলাই-ফেব্রুয়ারি সময়ে ব্যাংক থেকে সরকারের নিট ঋণের পরিমাণ ছয় হাজার ৪৬০ কোটি টাকা ঋণাত্বক হয়েছে।

সাধারণত সব সময়ই আগের একই সময়ের তুলনায় সরকারকে বেশি ঋণ নিতে দেখা যায়। অথচ এ বছর তার বিপরীত ঘটনা লক্ষ্য করা যাচ্ছে।

এ প্রসঙ্গে বেসরকারী নীতি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পলিসি রিসার্চ ইনস্টিটিউটের (পিআরআই) নির্বাহী পরিচালক আহসান এইচ মনসুর বলেন, চলমান সহিংস রাজনৈতিক কর্মসূচীর কারণে বিনিয়োগকারীদের মধ্যে অনেকক্ষেত্রে শঙ্কা কাজ করছে। এ কারণে নিরাপদ বিনিয়োগ হিসেবে সঞ্চয়পত্রের দিকে তারা ঝুঁকছেন। এছাড়া সঞ্চয়পত্রের উচ্চ সুদহারও তাদেরকে এখানে বিনিয়োগে উৎসাহিত করছে। এসব কারণে সঞ্চয়পত্র বিক্রি অতীতের সব রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে।

বিশিষ্ট এই অর্থনীতিবিদ মনে করেন, মূলত সঞ্চয়পত্র বিক্রি ব্যাপক হারে বাড়ার কারণে সরকারকে বাজেট ঘাটতি মেটাতে ঋণ নেয়ার প্রয়োজন পড়ছে না।