২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

মধুর সমাপ্তি চান আফ্রিদি


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আগেও একাধিকবার অবসর নিয়েছেন শহিদ আফ্রিদি। পাকিস্তানের তারকা এই অলরাউন্ডার অভিমান ভেঙ্গে প্রতিবারই ফিরে এসেছেন। আরেকবার ঘোষণা দিয়ে রেখেছেন বিশ্বকাপের পর ওয়ানডে থেকে অবসর নেবেন। এ কারণে অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে চলমান আসরে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন ৩৫ বছর বয়সী এই তারকা। বুধবার সাক্ষাতকারে আফ্রিদি জানিয়েছেন, দীর্ঘ ১৯ বছরের ক্যারিয়ারটা তিনি শেষ করতে চান বিশ্বকাপে মধুর সমাপ্তির মধ্য দিয়ে।

এবার পঞ্চমবারের মতো বিশ্বকাপ খেলছেন আফ্রিদি। যে কারণে তার লক্ষ্য এখন একটাইÑপাকিস্তানের হয়ে শিরোপা জয়। শুক্রবার এ্যাডিলেড ওভালে অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলবে ১৯৯২ বিশ্বকাপের চ্যাম্পিয়নরা। ওই ম্যাচের আগে আফ্রিদি বলেন, দলের চাহিদা অনুযায়ী আমি পারফর্ম করতে চাই। সমর্থকদের প্রত্যাশা পূরণ করেই আমি ক্রিকেট থেকে চলে যেতে চাই। ক্যারিয়ারের একটি সফল সমাপ্তির অপেক্ষায় এখন মুখিয়ে আছি। অস্ট্রেলিয়ার বিরুদ্ধে পাকিস্তান সেরাটাই খেলবে বলে আমি আত্মবিশ্বাসী।

ওয়ানডে ক্রিকেটে আর মাত্র পাঁচ উইকেট পেলেই ৪০০ উইকেটের মালিক হবেন আফ্রিদি। এই মাইলফলক স্পর্শ করতে পারলে একমাত্র ক্রিকেটার হিসেবে ওয়ানডেতে ৮ হাজার রান ও ৪০০ উইকেটের গর্বিত অংশীদার হবেন। অবশ্য বর্তমানে আফ্রিদির বোলিং ফর্ম খুবই হতাশাজনক। চলমান বিশ্বকাপে ছয় ম্যাচে মাত্র দুই উইকেট পেয়েছেন তিনি। অবসরের সিদ্ধান্তে অটুট আছেন জানিয়ে আফ্রিদি বলেন, বিশ্বকাপের পর অবসরের বিকল্প আমি কোন কিছুই ভাবিনি। কারণ আমার কাছে মনে হয়েছে এখন নতুনদের এগিয়ে আসার পালা। বিশেষ করে ঘরোয়া ক্রিকেটে যারা ভাল খেলছে তাদের হাতেই তো পাকিস্তানের ভবিষ্যত অপেক্ষা করছে। তাই সময় হয়েছে নতুনদের সুযোগ দেয়ার। ক্যারিয়ারের শুরুতেই ওয়ানডে ইতিহাসে দ্রুততম সেঞ্চুরি করে বিশ্বব্যাপী ঝড় তোলেন আফ্রিদি। ১৯৯৬ সালে শ্রীলঙ্কার বিরুদ্ধে কেনিয়ার নাইরোবিতে নিজের দ্বিতীয় ওয়ানডেতে মাত্র ৩৭ বলে সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে যে রেকর্ড গড়েছিলেন তা অনেকদিন পর্যন্ত কেউ ভাঙ্গতে পারেনি। ২০১৪ সালে ৩৬ বলে সেঞ্চুরি করে সেই রেকর্ড ভাঙ্গেন নিউজিল্যান্ডের মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যান কোরি এ্যান্ডারসন। আর তার সেই রেকর্ড চলতি বছরের জানুয়ারিতে মাত্র ৩১ বলে সেঞ্চুরি করে রেকর্ড ভেঙ্গেছেন দক্ষিণ আফ্রিকার অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স।

অনেক উত্থান-পতন থাকলেও দেশের হয়ে খেলাটা সবসময়ই উপভোগ করেছেন আফ্রিদি। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, দেশের হয়ে ১৯ বছর খেলা চালিয়ে যাওয়া যথেষ্ট। অন্যদের তুলনায় এই সময়ে আমার অনেক ভাল কিংবা মন্দ সময় কাটলেও পাকিস্তানের হয়ে এত দীর্ঘ সময় খেলা চালিয়ে যাওয়ার বিষয়টি আমি কোনদিন ভাবতে পারিনি। পাঁচ বিশ্বকাপ খেলাও অনেক বড় বিষয়। ফর্মে থাকা বা না থাকা এখানে বড় বিষয় ছিল না, গুরুত্বপূর্ণ ছিল সমর্থকদের প্রত্যাশার চাপ। এটাই আমার ক্যারিয়ারের অনেক বড় একটি বিষয়। আমি এটা দারুণ উপভোগ করেছি।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: