১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাঙ্গাকারা-মাহেলার জন্য জিততে চান ম্যাথুস


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ‘আমরা এ নিয়ে অনেক আলোচনা করেছি। আমরা তাদের (কুমার সাঙ্গাকারা ও মাহেলা জয়াবর্ধনে) জন্য এই টুর্নামেন্ট স্মরণীয় করে রাখতে চাই।’ কথাগুলো অলরাউন্ডার এ্যাঞ্জেলো ম্যাথুসের। আজ দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে বিশ্বকাপ ক্রিকেটের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনাল ম্যাচ খেলার আগে মঙ্গলবার এই মন্তব্য করেন শ্রীলঙ্কান অধিনায়ক।

শেষ আটের গুরুত্বপূর্ণ লড়াইয়ের আগে লঙ্কান শিবিরে সবচেয়ে বড় অনুপ্রেরণার নাম সাঙ্গাকারা ও জয়াবর্ধনে। বিশ্বকাপ শেষে ওয়ানডে ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর কথা এই দুই বন্ধুর। দুই মহাতারকার বিদায়কে স্মরণীয় করে রাখতেই বিশ্বকাপ জিততে চায় এশিয়ার দ্বীপদেশটি। শ্রীলঙ্কা আজ হেরে গেলে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলে ফেলবেন সাঙ্গাকারা ও জয়াবর্ধনে। আর ম্যাচটি জিতলে বিশ্বকাপ জিতে ক্যারিয়ার শেষের সুযোগ থাকবে।

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে ঘুরে ফিরে আসছে এই বিষয়টিই। লঙ্কান দলের মধ্যেও এ বিষয়ে কথা হচ্ছে। মঙ্গলবার সংবাদ সম্মেলনে শ্রীলঙ্কা অধিনায়ক ম্যাথুস বলেন, আমাদের মধ্যে এ নিয়ে অনেক আলোচনা হয়েছে। আমরা জয় ছাড়া কিছুই ভাবছি না। ১৯৯৬ সালে ওয়ানডে বিশ্বকাপে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার পর সর্বশেষ দুই বিশ্বকাপেও ফাইনালে খেলে শ্রীলঙ্কা। কিন্তু দুর্ভাগ্য তাদের, ২০০৭ সালে ফাইনালে অস্ট্রেলিয়ার কাছে হারের পর ২০১১ বিশ্বকাপে ভারতের কাছে হেরে রানার্সআপ হয়ে সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের। এ কারণে এবার শিরোপা ছাড়া কিছুই ভাবছে না দলটি। দলের দুই বিদায়ী মহানায়ক সাঙ্গা-মাহেলার জন্য হলেও লঙ্কানরা চ্যাম্পিয়ন হতে চায়।

বিদায় বেলাটা সাঙ্গাকারা আলোয় আলোকিত করে যাচ্ছেন। এখন পর্যন্ত বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক তিনিই। আর এই পথে টানা চারটি সেঞ্চুরি করে নতুন ইতিহাস গড়েছেন বাঁহাতি এই ব্যাটসম্যান। ওয়ানডে ক্রিকেটে টানা চারটি শতক এর আগে কেউ করেননি। জয়াবর্ধনে সেভাবে আলো ছড়াতে না পারলেও চলমান বিশ্বকাপে একটি শতরানের দেখা পেয়েছেন তিনিও। তবে দক্ষিণ আফ্রিকার বিরুদ্ধে তিনি জ্বলে উঠবেন বলেই বিশ্বাস ম্যাথুসের। লঙ্কান অধিনায়ক বলেন, আমি নিশ্চিত, মাহেলা বড় ম্যাচের খেলোয়াড়।

প্রোটিয়াদের বিরুদ্ধে ম্যাচে দর্শক সমর্থন নিজেদের অনুকূলে থাকবে বলে আশা করছেন ম্যাথুস। কারণ হিসেবে তিনি বলেছেন, আমরা গ্রুপ পর্বে স্বাগতিক অস্ট্রেলিয়ার গ্রুপে ছিলাম। তাদের বিভিন্ন ভেন্যুতে খেলেছি। মেলবোর্ন বা সিডনি যেখানেই আমরা খেলি না কেন, দর্শক সমর্থন আশা করছি আমাদেরই বেশি থাকবে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: