২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

রাজশাহী ওয়াসা পদ্মার পানি শোধনের উদ্যোগ নিয়েছে


স্টাফ রিপোর্টার, রাজশাহী ॥ চীন সরকারের ঋণ সহায়তায় প্রায় চার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে পানি শোধনাগার নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছে রাজশাহী ওয়াসা। এ প্রকল্প বাস্তবায়ন হলে রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন এলাকা ছাড়াও কাটাখালি ও নওহাটা পৌরসভা এবং আশপাশের ১১টি ইউনিয়নের মানুষ সুবিধা পাবে। রাজশাহী ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক ধীরেন্দ্র নাথ সরকার জানান, ২০১১ সালে রাজশাহী ওয়াসা প্রতিষ্ঠার এক বছর আগে তৎকালীন সিটি মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন মেগা এ প্রকল্পের পরিকল্পনা করেন। সে সময় তিনি সহযোগিতার জন্য চীন সরকারের কাছে প্রস্তাব পাঠান। বর্তমান সরকারের সহযোগিতায় প্রকল্পটি বাস্তবায়নে অর্থ সহায়তা দিতে চেয়েছে চীন সরকার। তিনি বলেন, এ প্রকল্পের মাধ্যমে পদ্মা নদী থেকে পানি নিয়ে শোধন করে তা সরবরাহ করা হবে। এ শোধনাগারটি স্থাপনের জন্য প্রাথমিকভাবে স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে গোদাগাড়ী উপজেলার ফরহাদপুর। এছাড়াও বিকল্প স্থান হিসেবে পবার হরিপুর ও চারঘাট উপজেলার ইউসুফপুর রয়েছে। ধীরেন্দ্র নাথ আরও বলেন, এ শোধনাগার থেকে পানি সরবরাহের এলাকা ধরা হয়েছে সিটি কর্পোরেশন ছাড়াও কাটাখালি ও নওহাটা পৌরসভা এবং এর আশপাশের ১১টি ইউনিয়ন। আর গোদাগাড়ীতে প্রকল্পটি স্থাপন করা হলে গোদাগাড়ী পৌরসভাও এ প্রকল্পের আওতায় আসবে বলে জানান তিনি। সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন বলেন, ৯০ দশকে কোন পরিকল্পনা ছাড়াও রাজশাহী নগরীতে ১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে চারটি পানি শোধনাগার করা হয়। যা কয়েক বছরের মধ্যেই বন্ধ হয়ে যায়। এছাড়াও ২০১১ সালে ৩৪ কোটি টাকা ব্যয়ে মহানগরীর শ্যামপুরে পদ্মা নদীর কোল ঘেঁষে স্থাপন করা হয় শহীদ এএইচএম কামারুজ্জামান পানি শোধনাগার। কিন্তু পদ্মায় চর পড়ে যাওয়ায় পানির অভাবে এক বছরের মাথায় ওই শোধনাগারটিও বন্ধ হয়ে যায়। অতীতের এ অভিজ্ঞতা কাজে লাগিয়ে এমন স্থানে এ মেগা প্রকল্পটি স্থাপন করতে হবে যেখানে সাধারণত পদ্মা গতিপথ পরিবর্তন না হয়।