২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাংবাদিকদের ওপর হামলার প্রতিবাদে সিইউজের অবস্থান কর্মসূচী পালন


স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে চট্টগ্রামের আট সাংবাদিকের ওপর ছাত্রলীগ নামধারী সন্ত্রাসীদের হামলা এবং হামলার সঙ্গে জড়িত সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবিতে পুলিশ কমিশনারের অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচী পালন করেছে চট্টগ্রামের সাংবাদিকরা। সোমবার সকালে চট্টগ্রাম সাংবাদিক ইউনিয়নের (সিইউজে) উদ্যোগে এ কর্মসূচী পালন করা হয়।

কর্মসূচীর শেষ পর্যায়ে সাংবাদিকরা সিএমপি কার্যালয়ের প্রধান ফটক চত্বরে অবস্থান নিয়ে বসে পড়ে এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের দাবি জানায়। সিএমপি কার্যালয়ের প্রধান ফটকে সাংবাদিকদের অবস্থান কর্মসূচী পালনের ঘটনা অবহিত হয়ে সেখানে উপস্থিত হন নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী। তিনি সাংবাদিকদের আন্দোলনের সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করেন এবং সাংবাদিকদের সঙ্গে অবস্থান গ্রহণ করেন। পরে তিনি ঘটনার জন্যে দুঃখ প্রকাশ করে দোষীদের গ্রেফতারের দাবি জানান এবং সাংবাদিক নেতাদের সঙ্গে নিয়ে পুলিশ কমিশনার আবদুল জলিল ম-লের সঙ্গে তার দফতরে বৈঠক করেন। বৈঠকে নগর আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী পুলিশ কমিশনারকে ঘটনার সঙ্গে জড়িত সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের আহ্বান জনান। এ সময় পুলিশ কমিশনার জানান, সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে পুলিশী অভিযান চলছে। থানা পুলিশের পাশাপাশি ডিবি পুলিশও কাজ করছে। পুলিশ সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে আন্তরিক। পুলিশ প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘটনার জন্যে দুঃখ প্রকাশ করে সাংবাদিকরদের কর্মসূচী প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। এ প্রেক্ষিতে সিইউজের সভাপতি এজাজ ইউসুফী এক সপ্তাহের জন্যে কর্মসূচী স্থগিত রাখার ঘোষণা দেন।

এর আগে সকাল ১১টায় সিএমপি কার্যালয়ের সম্মুখে সিইউজের সভাপতি এজাজ ইউসুফীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সাংবাদিক সমাবেশ। সিইউজে সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌসের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিএফইউজের আবু তাহের মুহাম্মদ, আসিফ সিরাজ, মোহাম্মদ ফারুক, দিদারুল আলম, সিইউজের মোস্তাক আহমেদ, রতন কান্তি দেবাশীষ, চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ, আবসার মাহফুজ, মোহাম্মদ আলী, নিরূপম দাশগুপ্ত, শহীদুল্লাহ শাহরিয়ার, সবুর শুভ, দৈনিক বণিক বার্তার আলী হায়দার, মোহাম্মদ আলী পাশা, রোখসারুল ইসলাম, মিন্টু চৌধুরী, এনামুল হক, লতিফা আনসারী রুনা প্রমুখ।

সমাবেশে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক মেয়র এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী বলেন, আমি ওমরা হজ পালন করতে দেশের বাইরে ছিলাম। আমি অবহিত হয়েছি, সাংবাদিকদের ওপর হামলা হয়েছে, তাদের ক্যামেরা ভাংচুর করা হয়েছে। এ ধরনের নোংরা কাজকে কেউ সমর্থন করতে পারে না। তিনি বলেন, অন্যায় কাজকে প্রশ্রয় দিলে তারা আরও বেপরোয়া হয়ে উঠবে, মানুষের ওপর নির্যাতন চালাবে। সাংবাদিকদের ওপর হামলা কোনভাবেই মেনে নেয়া যায় না। ঘটনার জন্যে তিনি দুঃখ প্রকাশ করে অবিলম্বে সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারের জন্যে পুলিশ কমিশনারকে অনুরোধ জানান।

পরে পুলিশ কমিশনার কার্যালয়ে নগর আওয়ামী লীগের সভাপতি এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরীর উপস্থিতে অনুষ্ঠিত হয় সিইউজে এবং পুলিশ প্রশাসনের মধ্যে সভা। সভায় পুলিশ কমিশনার আবদুল জলিল ম-ল জানান, ঘটনার সঙ্গে যারা জড়িত ছিলেন তাদের কয়েকজনকে শনাক্ত করা গেছে। তাদের গ্রেফতারের জন্যে চেষ্টা চলছে। এ সময় তিনি সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে সাংবাদিকদের সহায়তা কামনা করেন এবং কর্মসূচী প্রত্যাহারের অনুরোধ জানান। এ প্রেক্ষিতে সিইউজের সভাপতি এজাজ ইউসুফী এক সাপ্তাহের জন্যে কর্মসূচী স্থগিত করেন এবং সন্ত্রাসীদের অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানান।

উল্লেখ্য, গত ৯ মার্চ লালদীঘি ময়দানে ২০ দলীয় জোটের পদযাত্রা অনুষ্ঠানের সমাবেশে দায়িত্ব পালনকালে ছাত্রলীগ নামধারী কতিপয় সন্ত্রাসী সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালায়। এ ঘটনা নিয়ে ওই দিনই সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে নিয়ে ঘটনার জন্য সাংবাদিক নেতাদের কাছে গিয়ে দুঃখ প্রকাশ করেন এবং সন্ত্রাসীদের গ্রেফতারে পুলিশের প্রতি নির্দেশ দেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: