২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাংবাদিক সাইফুল ইসলাম তালুকদার আর নেই


সাংবাদিক সাইফুল  ইসলাম তালুকদার  আর নেই

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের যুগ্ম-মহাসচিব এবং দৈনিক আমাদের সময় পত্রিকার বিশেষ সংবাদদাতা সাইফুল ইসলাম তালুকদার শনিবার মধ্যরাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে রাজধানীর একটি হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন (ইন্নালিল্লাহি... রাজিউন)। তাঁর বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর। তিনি স্ত্রী, ৩ কন্যা, ১ পুত্র, বিপুলসংখ্যক সহকর্মী, বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়-স্বজন এবং অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। খবর বাসসর।

সাইফুল ইসলামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠনসহ সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন পৃথক বিবৃতিতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। বিভিন্ন সংগঠন তাঁর মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা নিবেদন করে। সাইফুল ইসলাম তালুকদারের তৃতীয় জানাজা রবিবার দুপুরে জাতীয় প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত হয়। পরে তাঁর লাশ গ্রামের বাড়ি চাঁদপুরের ছোট সুন্দর গ্রামের পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার পক্ষ থেকে প্রধানমন্ত্রীর তথ্য ও গণমাধ্যম বিষয়ক উপদেষ্টা এবং সাংবাদিক নেতা ইকবাল সোবহান চৌধুরী ও তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনুর পক্ষ থেকে তার একান্ত সচিব শহীদুল হক ভুইয়া সাইফুল ইসলাম তালুকদারের মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানান। এর আগে মরহুমের মরদেহ ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে (ডিআরইউ) নিয়ে যাওয়া হয় এবং সেখানে দ্বিতীয় জানাজা অনুষ্ঠিত হয়।

এর আগে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে অনুষ্ঠিত জানাজায় ডিআরইউ সভাপতি সাখাওয়াত হোসেন বাদশা, সাধারণ সম্পাদক ইলিয়াস হোসেনসহ সংগঠনের কর্মকর্তা ও সদস্যসহ বিপুলসংখ্যক সাংবাদিক অংশ নেন। তার আগে রবিবার সকালে রাজধানীর গোপীবাগ মসজিদে মরহুমের প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হয়। সাইফুল ইসলাম তালুকদারের অকালমৃত্যুতে বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানসহ বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন, ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি, ঢাকা সাব এডিটরস কাউন্সিল, ল’ রিপোর্টার্স ফোরাম, রুরাল জার্নালিস্ট ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে পৃথক বিবৃতিতে শোক প্রকাশ এবং তাঁর মরদেহে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানো হয়েছে। বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের (বিএফইউজে) পক্ষ থেকে আজ সোমবার সারাদেশে সাইফুল ইসলাম তালুকদারের অকালমৃত্যুতে শোক জানাতে সদস্যরা কালো ব্যাজ ধারণ করার কর্মসূচী গ্রহণ করেছেন ।