২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সহিংসতা ও মানুষ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ


জনকণ্ঠ রিপোর্ট ॥ সহিংসতা ও পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে শেরপুরে ও নাটোরে বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে জাসদ। এছাড়া রূপগঞ্জে পরিবহন শ্রমিকরা মানবববন্ধ করেছে। খবর নিজস্ব সংবাদদাতা ও সংবাদদাতাদের।

শেরপুর ॥ হরতাল-অবরোধের নামে মানুষ পুড়িয়ে হত্যাসহ সন্ত্রাসী-জঙ্গী তৎপরতার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে রবিবার বিকেলে শেরপুর জেলা জাসদের উদ্যোগে শহরে বিক্ষোভ মিছিল বের করা হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পরে ডিসি অফিস গেটে সংক্ষিপ্ত সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা জাসদের সভাপতি মনিরুল ইসলাম লিটন, আসাদুজ্জামান লায়ন, টুকন সাহা, ডাঃ মোশারফ হোসেন, আকরাম হোসেন, আরিফুল হক প্রমুখ। বক্তারা হত্যা-সন্ত্রাসের দায়ে বিএনপি নেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে গ্রেফতারের দাবি জানান।

নাটোর ॥ সহিংসতা বন্ধ ও পেট্রোলবোমা মেরে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে কেন্দ্রীয় কর্মসূচীর অংশ হিসেবে নাটোরে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দল (জাসদ)। রবিবার দুপুরে শহরের আলাইপুর এলাকার মুসলিম ইনস্টিটিউটের সামনে থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি শুরু হয়ে শহরের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ করে মিছিলটি পুনরায় একই স্থানে গিয়ে শেষ হয়।

সেখানে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন নাটোর জেলা জাসদের সভাপতি ইমান উদ্দিন গাজী, কেন্দ্রীয় কমিটির শ্রমিক জোটের সাংগঠনিক সম্পাদক তফিজুল ইসলাম (পারুল) নাটোর জেলা যুব জাসদের আহ্বায়ক ইসতিয়ার আহম্মেদ প্রমুখ। এ সময় বক্তারা অবিলম্বে জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করার দাবি করেন এবং হরতাল অবরোধের নামে পেট্রোলবোমা মেরে সাধারণ মানুষ হত্যার তীব্রনিন্দা জানান।

রূপগঞ্জে ॥ নাশকতা ও অবৈধ হরতালের প্রতিবাদে স্থানীয় পরিবহন শ্রমিকরা মানববন্ধন কর্মসূচী পালন করেছেন। রবিবার দুপুরে গাউছিয়া মোড় রোড পরিচালনা কমিটির ব্যানারে উপজেলার গোলাকান্দাইল এলাকার ঢাকা-সিলেট মহাসড়কে এ মানববন্ধন কর্মসূচী পালিত হয়। এ সময় বক্তব্য রাখেন পরিবহন শ্রমিক নেতা কামরুল হাসান সুমন, ইলিয়াছ মিয়া লিটন, সোয়াদ মিয়া, আব্দুল জলিল, নুর মোহাম্মদ, পনির হোসেন, মাহমুদ আলী, জাকির হোসেন প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বিএনপি-জামায়াত হরতাল দিয়ে মানুষকে পুড়িয়ে মারছে। অবিলম্বে হরতাল ও অবরোধ প্রত্যাহারের দাবি জানান পরিবহন শ্রমিক নেতারা।