২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

পাবনায় মাদ্রাসা এমপিওভুক্ত হলেও বঞ্চিত কলেজ শিক্ষকরা


নিজস্ব সংবাদদাতা, পাবনা, ১৫ মার্চ ॥ বেসরকারী কলেজে অনার্স-মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত ৩ হাজার প্রভাষক ২২ বছরেও এমপিওভুক্ত হয়নি। দীর্ঘকাল সরকারী বেতনভাতা না পেয়ে এসব শিক্ষকরা মানবেতর জীবন কাটাতে বাধ্য হচ্ছেন।

সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৬ সালে বেসরকারী কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স চালু করা হয়। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন বর্তমানে ৩৯২টি বেসরকারী কলেজে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে ৩ হাজার প্রভাষক কর্মরত রয়েছেন। ১৯৮২ সালের জনবল কাঠামোয় ইন্টারমিডিয়েট পর্যায়ে একজন, ডিগ্রী পর্যায়ে বিষয়ভিত্তিক একজন শিক্ষক এমপিওভুক্তির বিধান থাকায় অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত এসব শিক্ষকরা বেতনভাতা থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিধান মোতাবেক অধিভুক্ত অনার্স ও মাস্টার্স কলেজে চাকরিরত শিক্ষকদের প্রতিষ্ঠান থেকে মাসিক ১১ হাজার টাকা বেতনভাতা দেয়ার কথা থাকলেও তাদের দেয়া হচ্ছে ২ থেকে ৫ হাজার টাকা। যদিও এসব কলেজ ছাত্র বেতন আদায় করছে মাসিক ৪শ’ থেকে ৫শ’ টাকা। সরকার ২০১০ সালে ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের আওতায় ফাজিল ও কামিল শ্রেণীর শিক্ষকদের জনবল কাঠামোর আওতায় এনে এমপিওভুক্ত করলেও অনার্স ও মাস্টার্স কোর্সে নিয়োগপ্রাপ্ত শিক্ষকদের সে সুবিধা থেকে বঞ্চিত করা হয়েছে। দীর্ঘকাল বেতন ভাতা না পেয়ে এসব শিক্ষক-কর্মচারীদের পরিবারে মানবিক বিপর্যয় নেমে এসেছে। ভুক্তভোগী শিক্ষকরা অবিলম্বে জনবল কাঠামো পরিবর্তন করে তাদের এমপিওভুক্তিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।