২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৩ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

আমার স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্তি নিয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি করবেন না ॥ অধ্যাপক মোজাফ্্ফ


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ন্যাপ সভাপতি অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমদের স্বাধীনতা পদক গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। আদৌ তিনি এমন কোন ঘোষণা দিয়েছেন কিনা, এ নিয়েও চলছে জল্পনাকল্পনা। অপারগতা প্রকাশ করলে তিনি নিজেই তা বলতেন। তার পক্ষে কেন অপর ব্যক্তি এই ঘোষণা দেবেন? এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ খবর কেন মাত্র দু’টি পত্রিকা পেল তা নিয়েও প্রশ্ন পাঠক সমাজের। সংবাদ বিজ্ঞপ্তিটি সকল পত্রিকা অফিসে পাঠানো হয়নি। কি কারণে তিনি এই পদক গ্রহণে অপারগতা প্রকাশ করেছেন তাও উল্লেখ নেই প্রকাশিত বিজ্ঞপ্তিতে। বর্ষীয়ান এই রাজনীতিবিদ ন্যাপ সভাপতি মোজাফ্ফর আহমদের সহধর্মিণী আমেনা আহমদ বর্তমানে সংরক্ষিত আসনের মহিলা সাংসদ। সরকারের সঙ্গেও তাঁর রয়েছে সুসম্পর্ক। তারপরও কেন তিনি পদক নিতে অপারগতা প্রকাশ করবেন? এ প্রশ্ন এখন ঘুরপাক খাচ্ছে পাঠক সমাজে। এ ব্যাপারে ন্যাপ সভাপতির সঙ্গে যোগাযোগের চেষ্টা করেও তাকে পাওয়া যায়নি।

বুধবার ন্যাপের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তির বরাত দিয়ে পত্রিকায় প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২৫ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে স্বাধীনতা পুরস্কার-২০১৫ প্রদান করবেন। জাতীয় পর্যায়ে গৌরবোজ্জ্বল অবদানের জন্য সরকার অধ্যাপক মোজাফ্ফর আহমদসহ দেশের আট বিশিষ্ট ব্যক্তিকে এ পুরস্কারের জন্য মনোনীত করেছে। ন্যাপের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মোঃ ইসমাইল হোসেন স্বাক্ষরিত ওই সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ‘সম্প্রতি আমাকে (মোজাফ্ফর আহমদ) স্বাধীনতা পদক-২০১৫ প্রাপ্তদের তালিকায় মনোনীত করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে ইতোমধ্যে নানা কথা ছড়ানো হচ্ছে। পদক দিলে বা নিলেই সম্মানিত হয়, এই দৃষ্টিভঙ্গিতে আমি বিশ্বাসী নই। মানুষ তাঁর কর্মগুণে সম্মানিত হয়। নিছক দেশপ্রেম ও মানবতাবোধে উদ্বুদ্ধ হয়েই আমি রাজনীতিতে এসেছিলাম। কোন পদক বা পদ-পদবি আমাকে কোনভাবেই উদ্বুদ্ধ করেনি। নিতান্তই রাজনৈতিক কর্তব্যবোধে শত প্রতিকূল অবস্থা মোকাবেলা করে আমি আমার দায়িত্ব পালন করেছি মাত্র। সত্যিকার অর্থে যাঁরা মুক্তিযুদ্ধ করেছিলেন, জীবন উৎসর্গ করেছিলেন, তাঁরা কেউই কোন প্রাপ্তির আশায় মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেননি। আমি সম্মানের সঙ্গে ঘোষিত ‘স্বাধীনতা পদক-২০১৫’ গ্রহণ করতে অপারগতা প্রকাশ করছি। আমার স্বাধীনতার পদক প্রাপ্তির বিষয়ে ধূম্রজাল সৃষ্টি না করতে সব পক্ষকে বিশেষভাব অনুরোধ করছি।