২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চট্টগ্রামে ১৪ দলের সমাবেশে সাংবাদিকদের ওপর ছাত্রলীগের হামলা


স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে চলমান সহিংসতার প্রতিবাদে ১৪ দল আয়োজিত সমাবেশে বুধবার ছাত্রলীগের কর্মীরা উপস্থিত সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালিয়েছে। এতে ৩-৪ জন টিভি সাংবাদিক আহত হয়েছেন। এ সময় ছাত্রলীগের কর্মীরা সাংবাদিকদের কয়েকটি ক্যামেরাও ভাংচুর করে। সাংবাদিক লাঞ্ছনার ঘটনার পর সাংবাদিকরা একযোগে ছাত্রলীগের সংবাদ বয়কট করে। ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে দোষীদের বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন।

জানা গেছে, বুধবার বিকেলে লালদীঘি ময়দানে মহানগর আওয়ামী লীগ ও ১৪ দল সহিংসতা বিরোধী পদযাত্রা ও প্রতিবাদ সমাবেশে সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বক্তব্য রাখার সময় টিভি ক্যামেরা সাংবাদিকরা পেশাগত দায়িত্ব পালনকালে ছাত্রলীগ কর্মীদের দ্বারা প্রতিবন্ধকতার শিকার হন। টিভি ফুটেজ গ্রহণে সুবিধার্থে ছাত্রলীগ কর্মীদের অবস্থান নিয়ে টিভি সাংবাদিকদের সঙ্গে বাগ্্বিত-া হয়। একপর্যায়ে উচ্ছৃঙ্খলা ছাত্রলীগ কর্মীরা সাংবাদিকদের ওপর হামলা চালায়। তারা শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করে চ্যানেল টুয়েন্টিফোরের ক্যামেরা পার্সন সফিক আহমেদ সাজিব, এশিয়ান টিভির লতিফা রুনাসহ আরও কয়েকজন টিভি এবং ফটো সাংবাদিককে। এ সময় বিক্ষুব্ধ ছাত্রলীগ কর্মীরা কয়েকটি ক্যামেরাও ভাংচুর করে। ছিনিয়ে নেয় কয়েকজনের মোবাইল ফোন। এ ঘটনার পর তাৎক্ষণিকভাবে সাংবাদিকরা ঐ অনুষ্ঠান বয়কর করার সিদ্ধান্ত নেয়। এরপর তারা প্রেসক্লাবে চলে আসে। এ ঘটনার পর পরই আওয়ামী লীগের মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দিন ঘটনার জন্য দুঃখ প্রকাশ করেছেন। সাংবাদিকদের ওপর হামলার ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়েছেন চট্টগ্রাম প্রেসক্লাব সভাপতি কলিম সরওয়ার, সাধারণ সম্পাদক মহসিন চৌধুরী, সিইউজের সভাপতি এজাজ ইউসুফী, সাধারণ সম্পাদক হাসান ফেরদৌস, টিভি জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েসনের সভাপতি শামসুল হক হায়দরি এবং সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী ফরিদ।

সন্ধ্যার পর চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আওয়ামী লীগ এবং ছাত্রলীগের সিনিয়র নেতারা উপস্থিত হলে সাংবাদিক নেতারা ভবিষ্যতে যে কোন আওয়ামী লীগের সভা সমাবেশে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করার দাবি জানান। প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সমবেদনা জানাতে ছুটে আসেন সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, সংরক্ষিত আসনের এমপি ওয়াসিকা এ খান এবং আওয়ামী লীগ, ছাত্রলীগ ও যুবলীগের সিনিয়র নেতারা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: