২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সবাইকে আনন্দের জোয়ারে ভাসাতে চাই


সবাইকে আনন্দের জোয়ারে ভাসাতে চাই

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে আজ জিতলেই কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে বাংলাদেশ। সেই আশাতেই আছে বাংলাদেশের ১৬ কোটি প্রাণ। মাশরাফিবাহিনীও সেই আশাই করছে। এখন শুধু জয়ের অপেক্ষা। জিতলেই আনন্দের সীমা থাকবে না। প্রথমবারের মতো বিশ্বকাপের কোয়ার্টার ফাইনালে উঠে যাবে বাংলাদেশ। মাশরাফি সেই আনন্দই সবাইকে দিতে চান। বলেছেন, ‘সবাইকে আনন্দ দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টাটাই করব আমরা।’ আনন্দ দেয়া মানেই জয় তুলে নেয়ার প্রত্যাশা করছেন মাশরাফি। এ্যাডিলেডে আজ খেলতে নামার আগে রবিবার শেষদিনের অনুশীলন সেরে নেন মাশরাফি, সাকিব, তামিম, মুশফিকরা। অনুশীলন শেষে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন মাশরাফি। সেখানেই একের পর এক প্রশ্নে মাশরাফি এমন কথাই জানান।

দলে ইমরুলের থাকার সম্ভাবনা কতটুকু এ প্রশ্নে মাশরাফি বলেছেন, ‘ইমরুল শনিবার এসে পৌঁছেছে, অনুশীলনও করেছে। অনুশীলনে ভাল করেছে। অবশ্যই ওর সুযোগ আছে খেলার। আমাদের ওপেনার এনামুল ইনজুরি আক্রান্ত। এনামুলের জায়গায় এসেছে ইমরুল। খেলার সুযোগ অবশ্যই আছে ইমরুলের। আশা করব ইমরুল আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে খেলবে। এই সুযোগটা ওর জন্য খুব গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ও বিশ্বকাপ টুর্নামেন্টে ছিলই না। যেহেতু একটা সুযোগ পেয়েছে এটা কাজে লাগানোর ভাল একটা অপশন সে (ইমরুল) পাচ্ছে।’

ইংল্যান্ডের জন্য এ ম্যাচটা ডু অর ডাই ম্যাচ। এই ম্যাচে স্নায়ুর চাপ থাকবে। মাশরাফি বলেছেন, ‘২টি দিকই আছে। আমরা যদি শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ম্যাচটা জিততে পারতাম, তাহলে অনেক রিলাক্স থাকতে পারতাম। স্নায়ু চাপের কথা বললে আমি বলব ইংল্যান্ড আমাদের চেয়ে এই ধরনের ম্যাচ আরও বেশি খেলেছে। আমাদের এসব নিয়ে চিন্তা না করাই ভাল। আমরা জানি আমাদের খুব ভাল সুযোগ আছে। আমাদের কাজ হবে আমাদের ব্যাটিং-বোলিং-ফিল্ডিং ৩ বিভাগে মনোযোগ দেয়া। এটা করতে পারলেই চাপ অনেক কমে যাবে। আর কারা চাপে থাকবে এটা বলা খুব কঠিন। তবে আমি আমাদের কথা বলতে পারি, আমরা খুব এক্সসাইটেড খেলার জন্য। আমরা আমাদের সেরা খেলাটা খেলার জন্যই অপেক্ষা করছি।’ ইংল্যান্ডের খারাপ সময় যাচ্ছে, আমাদের লক্ষ্য পূরণে এই জিনিসটা কতটুকু আলোচনায় আসছে? মাশরাফি বলেছেন, ‘এগুলো খুব স্বাভাবিক, এসব নিয়ে আলোচনা সব সময়ই হয়। সবাই চিন্তা করেছে আফগানিস্তান-স্কটল্যান্ড বাদে বাকি ৪টি দলের যে কাউকে হারাতে পারলেই আমাদের সুযোগ থাকবে, আমাদের সামনে সেই সুযোগটাই এসেছে। ইংল্যান্ডকে যেভাবে সমালোচনা করা হচ্ছে আমি জানি না তারা কী চিন্তা করছে। আমরাও আসলে ভাল-খারাপের ভেতর দিয়েই গিয়েছি। এই টুর্নামেন্টে আমাদের যেমন যাওয়ার কথা ছিল সেভাবেই যাচ্ছে। আশা করি সোমবার ম্যাচটাও আমরা যেন এভাবে খেলতে পারি।’ সমীকরণ নিয়ে দলের মধ্যে আলাপ-আলোচনা হচ্ছে কিনা, এই ম্যাচটা জিততে কতটা প্রস্তুতি আছে বাংলাদেশের? মাশরাফি বলেছেন, ‘যে সমীকরণ আমরা টুর্নামেন্টে শুরুর আগে জানতাম সেটাই কিন্তু এখন আমাদের সামনে এসেছে। এখন সব কিছুই নির্ভর করে আমরা কেমন খেলব তার ওপর। আমাদের সবাই খুব আত্মবিশ্বাসী নতুন এই চ্যালেঞ্জ নেয়ার জন্য। অবশ্যই চাপ কিছুটা থাকবে। এটা স্বাভাবিকভাবেই থাকে। প্রায় ১৬ কোটি মানুষ দেশে অপেক্ষা করছে, এখানেও সবাই অপেক্ষা করছে ভাল কিছু দেখার জন্য। এখানে চাপটা থাকবে এটাই স্বাভাবিক। এই চাপ থেকে বের হয়ে ভাল কিছু করার মাঝেই আনন্দ। আমার বিশ্বাস সবাই এই আনন্দটুকু পেতে চাচ্ছে। সবাইকে আনন্দ দেয়ার সর্বোচ্চ চেষ্টাটাই করব আমরা।’

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: