১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

ইসরাইলের সঙ্গে নিরাপত্তা সহযোগিতা বন্ধ করে দেবে পিএলও


ফিলিস্তিনী মুক্তি সংস্থার (পিএলও) কেন্দ্রীয় পরিষদ ইসরাইলের সঙ্গে নিরাপত্তাবিষয়ক সহযোগিতার অবসান ঘটানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এ সিদ্ধান্ত ইসরাইল ও পিএলওর মধ্যে উত্তেজনার মাত্রা বাড়িয়ে দিতে পারে। এর আগে ইহুদী রাষ্ট্রই ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষের রাজস্বের উৎস বিচ্ছিন্ন করে দেয়। খবর এএফপি ও গার্ডিয়ানের।

পিএলও পরিষদ ‘দখলদার শক্তির’ সঙ্গে নিরাপত্তা বিষয়ে সব ধরনের সহযোগিতা বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এটি লিখিত চুক্তিগত বাধ্যবাধকতা পরিকল্পিতভাবে অমান্য করার দায়ে ইসরাইলকে দোষারোপ করে। পরিষদ জোর দিয়ে বলেছে যে, আন্তর্জাতিক আইনের অধীনে দখলদার শক্তি হিসেবে ইসরাইলেরই ফিলিস্তিনী ভূখ-ের সব দায়িত্ব গ্রহণ করা উচিত। ১৯৯৩ সালের অসলো স্বায়ত্তশাসন চুক্তিতে ওই সহযোগিতার বিধান করা হয়। ওই সহযোগিতার আওতায় গোয়েন্দা তথ্য বিনিময়ের কথা রয়েছে। পশ্চিম তীরের ইসলামপন্থী দল হামাস ও এর সদস্যদের ওপর নজরদারি চালাতে ওই তথ্য ইসরাইলের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে গণ্য করা হয়। চুক্তিটির বলেই ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষ গঠিত হয়েছিল।

বিএলও বৃহস্পতিবার রাতে এক বিবৃতিতে বলেছে, এর নির্বাহী কমিটি কেন্দ্রীয় কমিটির নেয়া ওই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বৈঠকে মিলিত হবে। পরিষদ পশ্চিম তীরের রামাল্লাহ শহরে দুই দিনের বৈঠকে মিলিত হয়েছিল। তবে এর তারিখ জানানো হয়নি।

ফিলিস্তিনীরা পশ্চিম তীরে দুই বছরের মধ্যে ইসরাইলী দখলদারির অবসান ঘটানোর আহ্বান জানিয়ে ডিসেম্বরে জাতিসংঘ নিরাপত্ত পরিষদে এক প্রস্তাব উত্থাপন করে। কিন্তু এ প্রস্তাবটিতে ভেটো দেয়া হয়। জানুয়ারিতে ফিলিস্তিনীরা আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতের সদস্যপদ গ্রহণ করে।

সেখানে তারা ইসরাইলের বিরুদ্ধে যুদ্ধাপরাধের অভিযোগ আনার পরিকল্পনা করছে। এসব পদক্ষেপের জবাবে ইসরাইল কর রাজস্ব বাবদ প্রতিমাসে আদায় করা ১২ কোটি ৭০ লাখ ডলার আটকে রাখে। এ রাজস্ব ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষকে পরিশোধ করার কথা। ফলে ফিলিস্তিনী কর্তৃপক্ষ এর হাজার হাজার কর্মচারীর বেতন দিতে অসমর্থন হয়ে পড়ছে এবং এর ঠিক অস্তিত্বই হুমকির মুখে পড়েছে।