১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সন্ত্রাস-নাশকতা ছেড়ে সুস্থ ধারায় ফিরে আসুন


সংসদ রিপোর্টার ॥ সন্ত্রাস-নাশকতার মতো অন্ধকারের গলির পথ ছেড়ে সুস্থ গণতান্ত্রিক ধারার রাজনীতিতে ফিরে আসার জন্য বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানিয়ে সরকার ও বিরোধী দলের সংসদ সদস্যরা বলেছেন, খালেদা জিয়া আইনের উর্ধে নন, সংবিধান তাকে দায়মুক্তি দেয়নি। তাই হয় খালেদা জিয়া আদালতে আত্মসমর্পণ করবেন, নতুবা তাকে গ্রেফতার করে কারাগারে নিতে হবে। কোন গণতান্ত্রিক সরকার এ অশুভ সন্ত্রাস-জঙ্গী শক্তির সঙ্গে আলোচনা কিংবা আপোস করতে পারে না, হবেও না।

স্পীকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে বুধবার সংসদ অধিবেশনে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর সাধারণ আলোচনায় অংশ নিয়ে তারা এসব কথা বলেন। আলোচনায় আরও অংশ নেন সরকারী দলের আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন, আবদুর রহমান, মোজাম্মেল হোসেন, ডাঃ এনামুর রহমান, আমির হোসেন, আবদুল মজিদ ম-ল, মনোরঞ্জন শীল গোপাল, স্বতন্ত্র সংসদ সদস্য ইউসুফ আবদুল্লাহ হারুন, মনোয়ারা বেগম প্রমুখ। সাবেক প্রতিমন্ত্রী আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন বলেন, দেশের অগ্রগতি ও সমৃদ্ধির চাকা স্তব্ধ করে দিতে এবং দেশকে উগ্র সাম্প্রদায়িক জঙ্গী রাষ্ট্রে পরিণত করতে খালেদা জিয়া নতুন করে ষড়যন্ত্রে নেমেছেন। ষড়যন্ত্রকারীরা মরণ কামড় দিতে চাইছেন। মুক্তিযুদ্ধের ৯ মাস যিনি (খালেদা জিয়া) পাকিস্তানীদের মেহমানদারীতে ছিলেন, তার পক্ষে দেশের স্বাধীনতা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও অগ্রগতি মেনে নেয়া কখনই সম্ভব নয়। খালেদা জিয়া সংবিধান, আইন-কানুন কোন কিছুরই তোয়াক্কা করছেন না। খালেদা জিয়া আইনের উর্ধে নন, তাকে সংবিধান দায়মুক্তি দেয়নি। খালেদা জিয়া যদি দুর্নীতি করে না থাকেন, তাহলে আদালতে গিয়ে বলুন জিয়া অরফানেজ ট্রাস্টের টাকা কাকে দিয়েছেন? কোন খাতে খরচ করেছেন? আর এ অশুভ শক্তির কাছে মাথানত করা মানেই সন্ত্রাসী-জঙ্গী-নাশকতাকারীদের উৎসাহিত করা। সরকারী দলের আবদুর রহমান বলেন, জ্বালাও- পোড়াও করে, মানুষ মেরে খালেদা জিয়া কোনদিন যুদ্ধাপরাধীদের রক্ষা, নিজের ও পুত্রের দুর্নীতির মামলা থেকে রেহায় পাবেন না।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: