২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

২৬ মার্চ তিস্তার পানিবণ্টন চুক্তি হতে পারে


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট থেকে ॥ অবশেষে তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি আলোর মুখ দেখতে যাচ্ছে। ভারতীয় পত্রপত্রিকায় এই খবর বেরিয়েছে। তবে চুক্তিটি হতে পারে ১০ বছরের জন্য অন্তর্বর্তীকালীন। প্রয়োজনে চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধিও হতে পারে। কোন্্ দেশ কত পানি পাবে তা আলোচনা করে ঠিক করা হবে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি অতিথি হয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আমন্ত্রণে ঢাকায় আসছেন। এই সময় স্থলসীমান্ত চুক্তি ও তিস্তা নদীর পানিবণ্টন চুক্তি হবে বলে দুই দেশের শীর্ষ পর্যায়ে আলাপ আলোচনা প্রায় চ’ড়ান্ত হয়েছে। এখন শুধু আনুষ্ঠানিকভাবে ঘোষণা দেয়ার অপেক্ষায় রয়েছে। পশ্চিমবঙ্গের প্রভাবশালী কয়েকটি বাংলা দৈনিকে খবর ছাপা হয়েছে, নিবন্ধও প্রকাশ করেছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী মোদি ২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসার বিষয়টিও নিশ্চিত করেছেন। এই সফরেই তিস্তা পানি চুক্তি হবার সম্ভাবনা রয়েছে। ভারত ১০ বছরের অন্তর্বর্তী পানি চুক্তি করতে চায়। তবে চুক্তির মেয়াদ বৃদ্ধি করা হতে পারে।

ভারতের পত্রপত্রিকা সূত্র জানায়, লোকসভার অধিবেশনে স্থলসীমান্ত চুক্তি অনুমোদন এবং তিস্তা নদীর পানি বণ্টন চুক্তি স্বাক্ষরের বিষয়ে আলোচনা হয়েছে। তিস্তার পানি বণ্টন সমস্যা দীর্ঘদিনের। এই সমস্যা ভারত আর ঝুলিয়ে রাখতে চায় না, এবারে নিষ্পত্তি চায়।

এবারে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা ব্যানার্জী উভয়েই তিস্তা চুক্তি করতে সম্মতি দিয়েছেন। তাই স্বাধীনতা দিবসে তিস্তা চুক্তি হতে যাচ্ছে বলে ভারতের পত্রপত্রিকায় খবর প্রকাশ হচ্ছে।