২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অভিজিৎ হত্যায় মোটেও অনুতপ্ত নয় ফারাবী


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ব্লগার ও লেখক, মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা, সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার অভিজিৎ রায় হত্যায় নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহরীর নেতা শফিউর রহমান ফারাবীর তথ্য অনুযায়ী আনসার বাংলা-৭ আপে টুইট করেছিল হিযবুত তাহরীর। নিষিদ্ধ জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহরীরের সদস্যরাই হত্যা করেছে লেখক ও ব্লগার ড. অভিজিৎ রায়কে। হিযবুত তাহরীরের উগ্রপন্থী গ্রুপের সদস্যরা দীর্ঘদিন ধরে ফলো করে আসছে অভিজিৎ রায়কে। তাঁকে ফলো করার বিষয়টি ব্লগ ও ফেসবুকে বিভিন্ন সময়ে মন্তব্য করত শফিউর রহমান ফারাবী। জিজ্ঞাসাবাদে ফারাবী বলেছে, অভিজিৎ হত্যাকা-ে মোটেও অনুতপ্ত নয় তিনি। এই হত্যাকা-ের তদন্তে নেমে এ ধরনের তথ্য পেয়েছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

তদন্ত সূত্রে জানা গেছে, অভিজিৎ হত্যা নিশ্চিত হওয়ার পর হিযবুত তাহরীরের সদস্যদের নির্দেশে বিদেশ থেকে দায় স্বীকার করে টুইটারে টুইট করা হয় ‘আনসার বাংলা-৭’ জঙ্গী সংগঠনের নামে। জিজ্ঞাসাবাদে এ ধরনের তথ্য দিয়েছে ফারাবী। হিযবুত তাহরীর নেতা শফিউর রহমান ফারাবীকে ১০ দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। বুধবার ছিল ১০ দিনের রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদের প্রথম দিন।

ফারাবীকে জিজ্ঞাসাবাদের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ডিবি পুলিশের এক কর্মকর্তা বলেন, বিভিন্ন সময়ে ফেসবুকে অভিজিৎ রায়কে হত্যার হুমকি দিয়েছিল ফারাবী। হত্যার জন্য উস্কানিও ছিল তার। হিযবুত তাহরীর সদস্যদের মধ্যে ড. অভিজিৎ রায় ও তাঁর স্ত্রী ডা. রাফিদা আহমেদ বন্যার ছবি ও আমেরিকার ঠিকানা পর্যন্ত সরবরাহ করেছেন। এ সব কারণে হত্যাকা-ে মূল সন্দেহভাজন হিসেবে দেখা হচ্ছে তাকে। ফারাবীকে নানা বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদও করা হচ্ছে। ফেসবুকে নিজের লেখাই তুলে ধরা হচ্ছে তার সামনে। এজন্য নিজের মন্তব্যগুলো অস্বীকার করতে পারছে না সে।

ডিবি সূত্র জানায়, চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নের সময় শিবিরের রাজনীতির সঙ্গে জড়িয়ে পড়ে ফারাবী। পরে শিবির থেকে বের হয়ে যোগ দেয় নিষিদ্ধঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহরীরে। এই জঙ্গী সংগঠনে সক্রিয় থাকতেই ব্লগে ফারাবী ধর্মীয় লাইনে বিভিন্ন ধরনের মতবাদ প্রচার করতে থাকে। তবে শিবিরের সঙ্গে যোগাযোগ আছে তার।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) উপকমিশনার কৃষ্ণপদ রায় সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন সময় ফারাবী বিভিন্ন ধরনের তথ্য দিচ্ছে। তার দেয়া তথ্যগুলো যাচাই-বাছাই করা হচ্ছে। ফারাবী জিজ্ঞাসাবাদে জানিয়েছে, অভিজিৎ রায়কে কুপিয়ে নৃশংসভাবে হত্যার ঘটনায় সে অনুতপ্ত নয়। অভিজিৎকে যেখানে পাওয়া যাবে সেখানেই হত্যা করা হবেÑ এটা আগে থেকেই সিদ্ধান্ত নিয়েছিল হিযবুত তাহরীরের সদস্যরা। অভিজিৎকে হত্যার জন্য হিযবুতের উগ্রপন্থী গ্রুপের শতাধিক ব্লগার একে অপরের সঙ্গে যোগাযোগ করে আসছিল। এই যোগাযোগের সময় ফেসবুক ও ব্লগে হত্যার সপক্ষে ধর্মীয় আইন দিয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছিল তারা। ফারাবী বলেছে, তার পূর্বপরিচিত ছিলেন অভিজিৎ। বিভিন্ন ব্লগে লেখালেখি করতেন তারা। অভিজিৎ তার ব্যক্তিগত শত্রু ছিলেন না। তিনি ধর্মবিরোধী লেখালেখি করতেন। এসব লেখালেখি আবার প্রচার করতেন। এজন্যই তারা হত্যার হুমকি দিয়েছিল তাঁকে। তার প্রকাশিত বইগুলো বন্ধের জন্য সক্রিয় ছিল তারা। ধর্মবিরোধী লেখার কারণেই তাঁকে হত্যার হুমকি দেয়া হয়েছিল। হত্যাকা-ের সঙ্গে সরাসরি সে জড়িত ছিল না। তবে এই হত্যাকা-ের সমর্থক ফারাবী।

অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার তদন্ত তদারকি কর্মকর্তা ডিবির সহকারী কমিশনার হাসান আরাফাত সংবাদমাধ্যমকে জানিয়েছেন, অভিজিৎ হত্যাকা-ে জড়িত থাকার কথা এখনও স্বীকার করেনি ফারাবী। তবে ফেসবুক ও ব্লগে অভিজিৎ হত্যার সপক্ষে তথ্য দিয়েছিল সে। তাকে নানা তথ্য-উপাত্তের ভিত্তিতে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে বলে জানান তদন্ত তদারকি কর্মকর্তা।

মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ডিবি ইন্সপেক্টর ফজলুর রহমান সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, অভিজিৎ হত্যাকা- ছাড়াও জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহরীর ও আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। ফারাবীকে জিজ্ঞাসাবাদের বাইরেও গোয়েন্দা নজরদারি করা হচ্ছে জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহরীর ও আনসারুল্লাহ বাংলা টিমের দিকে। অভিজিৎ হত্যাকা-ের আগে ও পরে তাদের কার্যক্রমও খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তবে ফারাবী ছাড়া মামলায় নতুন কাউকে আটক বা গ্রেফতার করার খবর দিতে পারেননি তদন্ত কর্মকর্তা।

প্রসঙ্গত গত ২৬ ফেব্রুয়ারি রাতে একুশে বইমেলা থেকে ফেরার পথে ঢাকা বিশ^বিদ্যালয়ের টিএসসি সড়ক™^ীপের পাশে দুর্বৃত্তরা লেখক ও ব্লগার ড. অভিজিৎ রায়কে চাপাতি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করে। একই সময় দুর্বৃত্তদের চাপাতির আঘাতে আহত হন অভিজিতের স্ত্রী ডা. রাফিদা আহমেদ বন্যা। তাঁরা দুইজনই বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক। উন্নত চিকিৎসার জন্য মঙ্গলবারই যুক্তরাষ্ট্রের উদ্দেশে ঢাকা ত্যাগ করেছেন খুন হওয়া অভিজিতের স্ত্রী বন্যা।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: