১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৬ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

এফবিআই আসছে এ সপ্তাহে ॥ ফারাবী ১০ দিনের রিমান্ডে


বিশেষ প্রতিনিধি ॥ বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক ব্লগার ও লেখক মুক্তমনা ব্লগের প্রতিষ্ঠাতা সফটওয়্যার ইঞ্জিনিয়ার অভিজিত রায় হত্যাকাণ্ডের মামলায় গ্রেফতারকৃত নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহ্্রীর নেতা শাফিউর রহমান ফারাবীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন আদালত। ফারাবীর পক্ষে জামিনের আবেদনের জন্য আদালতে কোন আইনজীবী উপস্থিত ছিল না। এই হত্যাকাণ্ডের মামলা তদন্তের সহায়তায় চলতি সপ্তাহেই ঢাকায় আসতে পারে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের তদন্ত সংস্থা এফবিআই। অভিজিৎ রায়কে হত্যার সময়ে জঙ্গীদের হাতে গুরুতর আহত চিকিৎসাধীন তার স্ত্রী বন্যা আরও উন্নত চিকিৎসার জন্য গেছেন যুক্তরাষ্ট্রে। ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ ও তার পরিবারের সূত্রে এ খবর জানা গেছে।

সূত্র জানান, মঙ্গলবার নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গী সংগঠন হিযবুত তাহ্্রীর নেতা শাফিউর রহমান ফারাবীকে ঢাকা মহানগর হাকিম বিচারক রেজাউল করিমের আদালতে হাজির করে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন করেন ঢাকা গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)। ডিবির পরিদর্শক ফজলুর রহমান ফারাবীকে ১০ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানালে রাষ্ট্রপক্ষে রিমান্ড আবেদনের শুনানি করেন আদালত পুলিশের অপরাধ তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের সহকারী কমিশনার মিরাশ উদ্দিন। শুনানি শেষে পুলিশের রিমান্ড আবেদন মঞ্জুর করেন আদালত। আদালতে ফারাবীর পক্ষে কোন আইনজীবী উপস্থিত হননি এবং তার জন্য কোন জামিনের আবেদনও জমা দেয়া হয়নি।

অভিজিৎ খুন হওয়ার পর অন্যান্যদের মধ্যে আলোচনায় আসে সামাজিক যোগাযোগের ওয়েবসাইটগুলোতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক ছাত্র শাফিউর রহমান ফারাবীর নাম।

অভিজিৎকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন অভিযোগ করে তার ফেইসবুক এ্যাকাউন্ট থেকে আসা একটি কমেন্ট শেয়ারে অভিযুক্ত হন তিনি। তিনি একজনকে উদ্দেশ করে ওই কমেন্টে বলেন, ‘অভিজিৎ রায় আমেরিকা থাকে। তাই তাকে এখন হত্যা করা সম্ভব না। তবে সে যখন দেশে আসবে তখন তাকে হত্যা করা হবে।’ এর আগে ফারাবী বাংলা বই বিক্রির ওয়েবসাইট ‘রকমারি ডটকম’ থেকে অভিজিৎ রায়ের বই সরাতেও হুমকি দিয়েছিলেন তাকে। উগ্রবাদীদের পক্ষে বিভিন্ন সময় কার্যক্রম পরিচালনাকারী ফারাবীকে সোমবার সকালে ঢাকার যাত্রাবাড়ী এলাকা থেকে ফারাবীকে গ্রেফতার করে র‌্যাব। র‌্যাবের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ফারাবীই লেখক অভিজিৎ রায় হত্যাকা-ের প্রধান সন্দেহভাজন। পরে র‌্যাব তাকে গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) কাছে হস্তান্তর করে।

মঙ্গলবার তদন্তকারী সংস্থা ডিবির আদালতে রিমান্ড আবেদনে বলা হয়, ফারাবীর ফেইসবুক স্ট্যাটাসগুলো যাচাই-বাছাই এবং অপরাধে তার সংশ্লিষ্টতা কতোটুকু- তা খতিয়ে দেখতে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা প্রয়োজন ফারাবীকে। সে আগেই অভিজিৎকে হত্যার হুমকি দিয়েছিলেন উল্লেখ করেন আদালতে। পুলিশের অপরাধ তথ্য ও প্রসিকিউশন বিভাগের সহকারী কমিশনার মিরাশ উদ্দিন আদালতকে বলেন, ‘উপ্রপন্থি সংগঠনের নেতা হত্যা মামলার আসামি জামিনে মুক্তি পেলে সাক্ষীদের ভয়ভীতি দেখিয়ে চাপ সৃষ্টি করতে পারে। তদন্তে বিঘœ ঘটাতে পারে। আবারও নৃশংস হত্যাকা- ঘটাতে পারে।’ ডিবি পুলিশ ফারাবীকে নিয়ে তার ‘সমমনা উগ্র ব্লগারদের’ ধরতে অভিযানে যেতে চায় বলেও আদালতকে জানানো হয়।

এফবিআই প্রতিনিধি দল আসছেন ॥ অভিজিৎ হত্যাকা-ের তদন্তে সহায়তা করার জন্য চলতি সপ্তাহেই ঢাকায় আসছেন যুক্তরাষ্ট্রের তদন্তসংস্থা এফবিআই। যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তার প্রস্তাবে বাংলাদেশ সরকার সায় দেয়ার পর এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে বলে ঢাকায় মার্কিন দূতাবাসের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।

যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক অভিজিৎ বইমেলা চলার মাঝামাঝিতে দেশে এসে ১০ দিনের মাথায় খুন হন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে জঙ্গীদের সন্ত্রাসী হামলায়। মার্কিন দূতাবাসের মুখপাত্র মনিকা শি জানিয়েছেন, বিষয়টি নিয়ে ঢাকা দূতাবাসে নিয়োজিত এফবিআই প্রতিনিধি ‘অভিজিতের পরিবার ও পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ রাখছে।’ হত্যাকা-ের তদন্তে যুক্তরাষ্ট্রের এফবিআই এর একটি ছোট প্রতিনিধি দল আসছে। মার্কিন মুখপাত্র বলেছেন, ‘অন্য দেশে বসবাসরত যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিকদের সুরক্ষা ও সহায়তা দেয়া’ বিশ্বব্যাপী মার্কিন দূতাবাসগুলোর ‘সবচেয়ে গুরুপূর্ণ দায়িত্বের অংশ হিসাবেই এফবিআই প্রতিনিধি দল আসছে। এটাকে বিবেচনায় রেখে সহায়তা দিয়ে থাকে যুক্তরাষ্ট্র। এফবিআইয়ের প্রতিনিধি দল তদন্তে কারিগরি সহায়তা দিতে পারবে বলে মনে করেন তিনি। আইনশৃঙ্খলা নিয়ে আমাদের দুই দেশের শক্তিশালী ও দীর্ঘদিনের সহযোগিতামূলক সম্পর্কের ধারাবাহিকতায় এই তদন্তে আমাদের সহযোগিতা করবেন বলে জানান যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মুখপাত্র।

ঢাকা মহানগর পুলিশের মুখপাত্র যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম দুপুরে নিজের দফতরে সাংবাদিকদের বলেন, ‘এফবিআই সদস্যরা চলতি সপ্তাহেই ঢাকা আসতে পারে বলে আমরা শুনেছি। তবে এখনও তারা আমাদের সঙ্গে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো যোগাযোগ করেনি।’

বন্যা যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে ॥ নিহত অভিজিৎ রায়ের স্ত্রী বন্যা চিকিৎসার জন্য যাচ্ছেন যুক্তরাষ্ট্রে। তবে বন্যার ‘ব্যক্তিগত গোপনীয়তার’ দিক বিবেচনায় নিয়ে এ বিষয়ে বিস্তারিত কিছু বলেননি যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মুখপাত্র। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের নাগরিক হওয়ায় আমরা তাকে সম্ভাব্য সব ধরনের কনস্যুলার সহায়তা দেয়া হবে বলে জানান যুক্তরাষ্ট্র দূতাবাসের মুখপাত্র।