১৮ ডিসেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অবরোধ-হরতালের নামে সহিংসতা বর্জন করুন ॥ বিএনপি জোটকে নিশা দেশাই


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বিএনপি জোটের ডাকা অবরোধ ও হরতালের নামে চলমান সহিংসতা বর্জন করতে রাজনৈতিক দলগুলোর প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়াবিষয়ক যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী নিশা দেশাই বিসওয়াল। পাশপাশি বিরোধীদের শান্তিপূর্ণ কর্মকাণ্ডের পরিবেশ তৈরিতে সরকারের দায়িত্ব রয়েছে বলেও মন্তব্য করেন তিনি। বৃহস্পতিবার ওয়াশিংটন ডিসিতে মধ্য ও দক্ষিণ এশিয়া নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের হালনাগাদ নীতির বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এ সব আহ্বান জানান তিনি।

বাংলাদেশের রাজনৈতিক সহিংসতা অবসানে যুক্তরাষ্ট্রের উদ্যোগের বিষয়ে এক সাংবাদিক জানতে চাইলে নিশা দেশাই বলেন, রাজনৈতিক সহিংসতার বিষয়ে আমাদের গভীর উদ্বেগ রয়েছে। প্রতিটি রাজনৈতিক দলেরই দায়িত্ব হচ্ছে সব ধরনের সহিংসতা বর্জন করা। সরকারের পক্ষে বিরোধী দলের কার্যক্রম শান্তিপূর্ণভাবে চালানোর পরিবেশ তৈরি করাটাও সমান গুরুত্বপূর্ণ। এভাবেই সকলকে রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় অন্তর্ভুক্তির পন্থা অবলম্বন করার দায়িত্ব সরকারকে নিতে হবে। গণতান্ত্রিক রাষ্ট্র হিসেবে বাংলাদেশে কার্যকর একটি বিরোধী রাজনৈতিক দল থাকাটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ বলে মন্তব্য করেন যুক্তরাষ্ট্রের এই কর্মকর্তা।

সংবাদ সম্মেলনে দুর্নীতি মামলায় বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে আদালতের গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি ও নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্নাকে সেনাবাহিনীকে উস্কানির মামলায় গ্রেফতারের বিষয়টি তুলে ধরেন দুই সাংবাদিক। উত্তরে প্রায় একই ধরনের বক্তব্য তুলে ধরেন যুক্তরাষ্ট্রের সহকারী পররাষ্ট্রমন্ত্রী। নিশা দেশাই বলেন, এ বিষয়ে সুনির্দিষ্টভাবে কোনকিছু বলার সুযোগ নেই, ধারণাপ্রসূতভাবে কিছু বলতে চাই না। তবে আমরা আশা করছি, অভিযোগ গঠনে যাতে আইনগত সব প্রক্রিয়া যথাযথভাবে অনুসরণ করেই করা হয়।

মান্নার গ্রেফতারের বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি ব্যক্তি বিশেষের মামলার ব্যাপারে কিছু বলতে চাই না। কী কারণে কিংবা কোন পরিস্থিতিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে তা নিয়ে বিস্তারিত জানা নেই। তবে আমি যুক্তরাষ্ট্রের আগের অবস্থানই ব্যক্ত করতে চাই যে, বাংলাদেশের মতো গণতান্ত্রিক একটি রাষ্ট্রে গণমাধ্যমের মৌলিক স্বাধীনতার প্রয়োজন রয়েছে এবং গণতান্ত্রিক পরিবেশে সুশীল সমাজের প্রতি শ্রদ্ধাবোধ থাকতে হবে। বাংলাদেশের সামগ্রিক পরিস্থিতিতে এসবই যুক্তরাষ্ট্রের প্রত্যাশা বলে উল্লেখ করেন নিশা।

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরির বক্তব্যের ধারাবাহিকতায় নিশাও বাংলাদেশের পরিস্থিতিকে ‘অভ্যন্তরীণ’ উল্লেখ করে বলেন, এটি এমন একটি বিষয়, যা অভ্যন্তরীণভাবেই নিষ্পত্তি করা দরকার।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: