১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

লালমনিরহাটে অপকর্মের হোতা এসআই তদন্তের আগেই বদলি


নিজস্ব সংবাদদাতা, লালমনিরহাট, ২৭ ফেব্রুযারি ॥ লালমনিরহাটে পুলিশের গাড়িতে পেট্রোলবোমা মেরেও রক্ষা পেয়ে যায় দুর্বৃত্তরা। এই বোমাবাজদের হয়ে কাজ করেছে লালমনিরহাট সদর থানায় কর্মরত পুলিশের এসআই লেবু মিয়া। ছাত্রাবস্থায় যিনি ছিলেন ছাত্র শিবিরের একজন দুর্ধর্ষ ক্যাডার। বর্তমানে লাভজনক পোস্টিং নিয়ে জামায়াত, শিবির ও উগ্রমৌলবাদী অধ্যুষিত রাজশাহী বিভাগের নাটোর জেলার সিংড়া থানায় যোগ দিয়েছে। ইসলামী ব্যাংকের মানিলন্ডারিং ও আদালত অবমাননায় এই পুলিশ কর্মকর্তার পাঁচদিনের সাজা হয়। খোদ পুলিশ প্রশাসনে তার সঙ্গে জঙ্গী কানেকশনের সম্পৃক্ততা তদন্ত শুরু করে। কিন্তু অদৃশ্য খুঁটির জোরে তদন্ত থেমে যায়। বদলি করা হয় রংপুর রেঞ্চ হতে রাজশাহী রেঞ্চে বাড়ির পাশে।

১০ম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আগের রাতে (৪ জানুয়ারি) জেলা সদরের মহেন্দ্রনগর ম-লেরহাট কুর্শামারী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভোট কেন্দ্রে টহলরত পুলিশের পিকাপে বিএনপি, জামায়াত, শিবির, উগ্রমৌলবাদীরা ও দুর্বৃত্তরা পেট্রোলবোমা মারে। এই পিকাপ ভ্যানে এসআই লেবু মিয়াসহ ৮ জনের একটি পুলিশ টিম ছিল। বর্তমানে লালমনিরহাটের কালীগঞ্জ থানায় কর্মরত পুলিশের সদস্য নাম প্রকাশ না করার শর্তে জানায়, এসআই লেবু মিয়ার কাছে একটি মোবাইল ফোন আসে, তিনি দ্রুত গাড়ি থেকে নেমে গাছের আড়ালে চলে যান। সেই সময় পিকাপে অন্ধকারে পেট্রোলবোমা ও ককটেল চার্জ করে দুর্বৃত্তরা। কয়েকজন দগ্ধ হয়। কয়েকজন নিজেদের বাঁচাতে ফায়ার ওপেন করে। পরে সতীর্থদের নিরাপদে লালমনিরহাট সদর হাসপাতালে পাঠায়। পরিস্থিতি শান্ত হলে এসআই লেবু মিয়া এসে হাজির হয়। বিষয়টি পুলিশের উর্ধতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়।

লালমনিরহাটের পুলিশ সুপার মুজাহিদুল ইসলাম জানান, লেবু মিয়ার বিরুদ্ধে বিভাগীয় তদন্ত করার নির্দেশ এসেছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় থেকে। তদন্ত শুরুর আগেই তাকে রংপুর রেঞ্জ থেকে রাজশাহী রেঞ্জে বদলি করার নির্দেশ আসে। প্রয়োজনে তদন্ত করে রাজশাহীতে রিপোর্ট পাঠিয়ে দেয়া হবে বলে জানান।