১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জন্মশতবর্ষে শিল্পাচার্য


ইমদাদুল হক সূফী সম্পাদিত শিল্প-সাহিত্য বিষয়ক লিটল ম্যাগাজিন ‘দেশ প্রসঙ্গ’র বর্তমান সংখ্যাটি সাজানো হয়েছে শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিনকে নিয়ে। লিখেছেন বাংলাদেশের প্রতিথযশা লেখকরা। শুরুতেই রয়েছে অধ্যাপক আবুল মনসুরের লেখা ‘অসামান্য জয়নুল আবেদিন’। তিনি লিখেছেন, ‘... এদেশে শিল্প-আন্দোলনের জনক হিসেবে একটি ঢালাও স্থান নির্দেশ করেই আমরা ক্ষান্ত হয়েছি। ফলত উপেক্ষিত হয়েছেন মানুষ জয়নুল, অসাধারণ শিক্ষক জয়নুল, সংগঠক জয়নুল এবং অসামান্য বাঙালী জয়নুল...।’

নগরবিদ ও শিল্প-সমালোচক অধ্যাপক নজরুল ইসলাম শিক্ষক ও সংগঠক জয়নুল আবেদিনের স্মৃতিচারণ করে লিখেছেনÑ ‘জয়নুল আবেদিন : ব্যক্তিগত স্মৃতিচারণ ও শতবর্ষের শ্রদ্ধা নিবেদন’। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের চারুকলা অনুষদের সাবেক ডীন অধ্যাপক মতলুব আলী জয়নুল আবেদিনকে মনে করেন, ‘ক্রমবিকশিত বাংলাদেশ শিল্পাঙ্গনের ধারাবাহিক চেতনার উৎস হিসেবে।’ তাঁর প্রবন্ধের শিরোনামেই এ বিষয়টি এসেছে।

অধ্যাপক সৈয়দ আজিজুল হক শিল্পাচার্যকে আমাদের নতুন দৃষ্টিকোণ থেকে দেখতে সহায়তা করেছেন। তিনি লিখেছেন, ‘শিল্পাচার্য জয়নুল আবেদিন চেতনে-অবচেতনে প্রান্তিক’। বাংলাদেশের অন্য একজন বিশিষ্ট শিল্প-সমালোচক মইনুদ্দীন খালেদ তাঁর লেখার মাধ্যমে আমাদের সামনে তুলে ধরেছেন জয়নুল আবেদিনের কাজের একটি দর্শনগত দিক। তাঁর লেখার শিরোনাম, ‘জয়নুল প্রতিভা : কেন্দ্রে মানুষ’।

শিল্পচার্য জয়নুল আবেদিন সংগ্রহশালা’ সম্পর্কে চারুকলার শিক্ষক দুলাল গাইনের মাধ্যমে আমরা জানতে বিস্তারিত জানতে পারি।

এছাড়াও ‘দেশ প্রসঙ্গ’র বর্তমান সংখ্যায় কাঁথা-শিল্প সম্পর্কে সুমনা বিশ্বাসের গবেষণামূলক একটি মূল্যবান লেখা রয়েছে। রয়েছে মনিজিঞ্জির সান্যালের গল্প ‘স্পর্শ’ এবং চিত্রশিল্পী সৈয়দ হাসান মাহমুদের কাজ নিয়ে একটি সমালোচনা।

বর্তমান সংখ্যাটি বেশ ভাল হয়েছে; দু-একটি বিষয় যুক্ত করলে আরও ভাল হতো। শিল্পাচার্য প্রতিষ্ঠিত ‘সোনারগাঁ লোকশিল্প জাদুঘর’ নিয়ে একটি লেখা এবং জাহানারা আবেদিনের একটি সাক্ষাৎকার সংযুক্ত করলে সংখ্যাটি আরও সমৃদ্ধ হতো। আশা করি, আগামীতে ‘দেশ প্রসঙ্গ’ আরও ভাল ভাল কাজ দেশকে উপহার দেবে।

দুলাল চক্রবর্তী