২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চার সদস্যের বিশেষ সেলে মান্নাকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ক্ষমতাসীন নির্বাচিত সরকারকে উৎখাত করতে সেনাবাহিনীকে উস্কানি দেয়ার গুলশান থানায় দায়েরকৃত মামলাটির তদন্তভার দেয়া হচ্ছে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশকে। এ মামলায় দশ দিনের রিমান্ডে রয়েছেন নাগরিক ঐক্যের আহ্বায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না। তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চার সদস্য বিশিষ্ট একটি বিশেষ সেল গঠন করা হয়েছে। বিশেষ সেলের জিজ্ঞাসাবাদে সঠিক তথ্য প্রকাশ না করলে মাহমুদুর রহমান মান্নাকে জয়েন্ট ইন্টারোগেশন সেলে জিজ্ঞাসাবাদ করা হতে পারে। বৃহস্পতিবার দুপুরে মাহমুদুর রহমান মান্নার সঙ্গে তার স্ত্রী মেহের নিগার ও মেয়ে নিলম আইনগত জটিলতার কারণে দেখা করতে পারেননি।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, মান্না প্রবাসী একজনের সঙ্গে সরকার উৎখাতে ষড়যন্ত্র করার পরিকল্পনা করেন। প্রবাসী ওই আসামি ওয়ান ইলেভেনের ঘটনার সরাসরি সম্পৃক্ত। প্রবাসী আসামি মান্নাকে সেনাবাহিনীর সাবেক ও বর্তমানে কর্মরত লে. জেনারেল পদমর্যাদার ১৯ জন সিনিয়র কর্মকর্তার মধ্যে ১২ জনের সঙ্গে সরাসরি কথা বলেছেন বলে জানান। মান্নাকে বর্তমান সেনাবাহিনী প্রধানের সঙ্গেও কথা বলিয়ে দেয়ার আশ্বাস দেন ওই প্রবাসী আসামি।

দায়েরকৃত মামলার প্রেক্ষিতে গত ২৪ ফেব্রুয়ারি মাহমুদুর রহমান মান্নাকে রাজধানীর ধানম-ির স্টার কাবাব থেকে গ্রেফতার করে রাতেই গুলশান থানায় হস্তান্তর করে র‌্যাব। গত ২৫ ফেব্রুয়ারি গুলশান থানার ওই মামলায় ১০ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে ঢাকার সিএমএম আদালত। মান্নাকে ডিবি কার্যালয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে।

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, মাহমুদুর রহমানকে কথোপকথনকারী প্রবাসী ব্যক্তির সর্ম্পকে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। এছাড়া মামলার এজাহারে ১৯ জন সেনা কর্মকর্তার প্রসঙ্গে করা জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাদের শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। এমন ষড়যন্ত্রের পুরো প্রক্রিয়ার সঙ্গে আরও কেউ জড়িত কিনা সে বিষয়ে বিস্তর অনুসন্ধান চলছে।

এ ব্যাপারে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলাম জানান, মাহমুদুর রহমান মান্নার বিরুদ্ধে উঠা অভিযোগের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ চলছে। জিজ্ঞাসাবাদে অনেক তথ্য পাওয়া যাচ্ছে। প্রাপ্ত তথ্য সঠিক কিনা তা যাচাই-বাছাই চলছে। প্রবাসী আসামিকে শনাক্ত করার পাশাপাশি তার অবস্থান জানার চেষ্টা চলছে। তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদে পাওয়া তথ্য প্রকাশ করতে অপারগতা প্রকাশ করেছেন তিনি।

বৃহস্পতিবার দুপুর দেড়টার দিকে মাহমুদুর রহমান মান্নার স্ত্রী মেহের নিগার ও মেয়ে নিলম মান্না রিমান্ডে থাকা মাহমুদুর রহমানের সঙ্গে দেখা করতে ডিবি কার্যালয়ে যান। মাহমুদুর রহমান মান্নার স্ত্রী জানান, আমরা ডিবি কার্যালয়ে গিয়ে আমার স্বামীর সঙ্গে দেখা করার আগ্রহ প্রকাশ করি। এ ব্যাপারে ডিবির যুগ্ম কমিশনার মনিরুল ইসলামের সঙ্গে টেলিফোনে যোগাযোগ হয়। তিনি মাহমুদুর রহমান মান্না রিমান্ডে থাকায় এবং রিমান্ডের আসামির সঙ্গে তদন্ত সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি ব্যতীত অন্য কারো সাক্ষাত করানো আইনগত নিষেধাজ্ঞা থাকার কথা জানান। শেষ পর্যন্ত আইনগত জটিলতার কারণে আমরা সাক্ষাত করতে ব্যর্থ হয়ে ফিরে আসি।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: