২৩ নভেম্বর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই ঘন্টায়  
Login   Register        
ADS

শেখ জামাল-ব্রাদার্স মুখোমুখি আজ


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ শক্তির বিচারে প্রতিপক্ষ ব্রাদার্স ইউনিয়ন লিমিটেডের চেয়ে অনেক এগিয়ে শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাব লিমিটেড। ভৌগোলিক অবস্থান, শক্তিমত্তা, খেলার ধরন, ক্লাবের ইতিহাস এবং খেলার ধরনে কোন মিলই নেই ক্লাব দুটির। তবে একটি জায়গায় এসে এই দুই ফুটবল ক্লাব মিলে গেছে একটি বিন্দুতে। সেটি হচ্ছে ফেডারেশন কাপে উভয় দলই শিরোপা জিতেছে দু’বার করে! ব্রাদার্স জিতেছে সেই ১৯৯১ ও ২০০৫ সালে। সে তুলনায় শেখ জামালের শিরোপা জয়ের স্মৃতি বেশ টাটকাই। তাদের অর্জন ২০১১ এবং ২০১৩ সালে। এই আসরের বর্তমান বা সর্বশেষ চ্যাম্পিয়ন তারাই। আচ্ছা, এই দুই ক্লাবকে নিয়ে এত ভণিতার মানেটা কিÑ ফুটবলপ্রেমীরা নিশ্চয়ই প্রশ্ন করতে পারেন। হ্যাঁ, ভণিতা না করে যে কোন উপায় নেই। কেননা, চলমান ফেডারেশন কাপের প্রথম কোয়ার্টার ফাইনাল অনুষ্ঠিত হবে আজ। বঙ্গবন্ধু জাতীয় স্টেডিয়ামে বিকেল সোয়া ৫টায় অনুষ্ঠিত এ ম্যাচে মুখোমুখি হবে জামাল-ব্রাদার্স।

‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন হিসেবে শেষ আটে নাম লিখিয়েছে কোচ মারুফুল হকের দল জামাল। ২ খেলায় তাদের সংগ্রহ ৬ পয়েন্ট, করেছে টুর্নামেন্টের সবচেয়ে বেশি ১১ গোল। বিপরীতে হজম করেছে মাত্র ১ গোল। টুর্নামেন্টের একমাত্র হ্যাটট্রিকটিও তাদের। করেছেন হাইতিয়ান ফরোয়ার্ড ওয়েডসন এ্যানসেলমে। গ্রুপে তারা হারায় ফেনী সকার ক্লাবকে ৪-১ এবং টিম বিজেএমসিকে ৭-০ গোলে (এই স্কোর এ আসরের এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি ব্যবধানে জয়ের রেকর্ড)। পক্ষান্তরে ভারতীয় কোচ সৈয়দ নঈমউদ্দিনের ব্রাদার্স হচ্ছে ‘ডি’ গ্রুপের রানার্সআপ। ২ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ২ পয়েন্ট। গোল করেছে ২টি, খেয়েছেও সমান গোল। তারাই এ টুর্নামেন্টের একমাত্র দল, যারা কোন ম্যাচে না জিতেই উঠেছে শেষ আটে! প্রথম ম্যাচে তারা ১-১ গোলে ড্র করে রহমতগঞ্জ মুসলিম ফ্রেন্ডস সোসাইটির সঙ্গে। এরপরের ম্যাচেও একই ব্যবধানে ড্র করে ঢাকা মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাব লিমিটেডের সঙ্গে।

এ আসরে গতবারও ব্রাদার্স গ্রপ রানার্সআপ হয়ে কোয়ার্টারে উন্নীত হয়েছিল। সেবার মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কাছে ২-০ গোলে হেরে বিদায় নিয়েছিল গোপীবাগের দলটি। পক্ষান্তরে এবারের মতো জামাল সেবারও ছিল ‘এ’ গ্রুপের চ্যাম্পিয়ন। কোয়ার্টারে তারা হারিয়েছিল মোহামেডানকে ৩-১ গোলে। সেবার অবশ্য কোন ম্যাচে মুখোমুখি হয়নি জামাল-ব্রাদার্স।

শেখ জামালের ম্যানেজার আনোয়ারুল করিম হেলাল টুর্নামেন্ট শুরুর আগে বলেছিলেন, ‘শেখ জামাল সবসময় চ্যাম্পিয়ন হওয়ার মতো দল গড়ে। এবারও তার ব্যতিক্রম হয়নি। আমরা গত মৌসুমের বেশিরভাগ খেলোয়াড়কে নিয়েই দল গড়েছি। নতুনদের মধ্যে পাঁচজনকে এনেছি। এবারও চ্যাম্পিয়ন হওয়ার জন্যই খেলব।’ আর ক্লাবের অধিনায়ক নাসির উদ্দিন চৌধুরী বলেছিলেন, ‘শেখ জামাল চায় সব ট্রফি জিততে এবং ভাল ফুটবল খেলতে। এবারও সেই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে চাই।’

পক্ষান্তরে ব্রাদার্সের ম্যানেজার লিটন খান বলেছিলেন, ‘শুধু একটা কথাই বলব। এই টুর্নামেন্টে ব্রাদার্স ইউনিয়ন খেলবে ব্রাদার্সের মতোই।’ অধিনায়ক কেস্টার এ্যাকন বলেছিলেন, ‘আমাদের এ মৌসুমের দল অনেক ভাল হয়েছে গত মৌসুমের চেয়ে। এ আসরে আমরা ভাল খেলব বলে আশা করি। আমাদের প্রস্তুতি ভাল। ফুটবলে অনেক কিছুই ঘটে। আমরাও তা করে দেখাতে পারি।’

১৯৪৯ সালে গঠিত ব্রাদার্স ইউনিয়ন কি আজকের ম্যাচে ২০১০ সালে গঠিত শক্তিশালী শেখ জামাল ধানম-ি ক্লাবকে হারিয়ে অঘটন ঘটিয়ে শেষ চারে যাওয়ার পাশাপাশি এ টুর্নামেন্টে নিজেদের প্রথম জয় কুড়িয়ে নিতে পারবে? নাকি ঘরোয়া ফুটবলে ৫ বারের শিরোপাধারী ব্রাদার্সকে পরাভূত করে ঘরোয়া ফুটবলে ৭ ট্রফি জয়ের অধিকারী শেখ জামাল টুর্নামেন্টের ফেবারিট ও প্রথম দল হিসেবেই প্রত্যাশিত জয় পেয়ে নিশ্চিত করবে সেমিফাইনালে খেলা এবং শিরোপা করায়ত্তের পথে এগিয়ে যাবে আরও একধাপ? উৎসুক ফুটবলপ্রেমীরা তা স্বচক্ষে অবলোকন করার জন্য প্রতীক্ষায় আছেন তৃষ্ণার্ত চাতক পাখির মতো।