২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বাংলাদেশে শান্তি ও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে ॥ আশাবাদ ব্যারোনেস ডি সুজার


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউস অব লর্ডসের স্পীকার ব্যারোনেস ডি সুজা আশা প্রকাশ করে বলেছেন, বাংলাদেশে শান্তি ও গণতন্ত্র অব্যাহত থাকবে। শনিবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাতে তিনি এ কথা বলেন। ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্য আয়ের দেশে উন্নীত হবে বলেও আশাবাদ জানান তিনি। শেখ হাসিনার সঙ্গে ব্যারোনেস ডি সুজার সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব এ কে এম শামীম চৌধুরী এ বিষয়ে সাংবাদিকদের জানান।

শামীম চৌধুরী বলেন, বৈঠকে গণতন্ত্র, গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা এবং কীভাবে তা আরও কার্যকর করা যায়- তা নিয়ে কথা হয়েছে। আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে বাংলাদেশে থাকতে অত্যন্ত আনন্দিত জানিয়ে ডি সুজা বলেন, একুশে ফেব্রুয়ারি বাংলাদেশের সব মানুষকে এক জায়গায় ঐক্যবদ্ধ করার অনুষ্ঠান। একুশের প্রথম প্রহরে শনিবার রাত ১২টার পরপর শহীদ বেদিতে ফুল দিয়ে ভাষা শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়েছেন তিনি। কমনওয়েলথ পার্লামেন্টারি এ্যাসোসিয়েশন (সিপিএ) এবং ইন্টার-পার্লামেন্টারি ইউনিয়নে (আইপিইউ) বাংলাদেশের প্রার্থীরা জয়লাভ করায় শেখ হাসিনাকে অভিনন্দন জানিয়ে হাউস অব লর্ডসের স্পীকার বলেন, এতে শেখ হাসিনার প্রচেষ্টা সফল হয়েছে।

বাংলাদেশ সিপিএ ও আইপিইউতে ভূমিকা পালন করায় সংসদীয় ব্যবস্থা শক্তিশালী হবে বলে মনে করেন তিনি। নারীর ক্ষমতায়নে বাংলাদেশে সরকারের নেয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের প্রশংসা করে ডি সুজা বলেন, শেখ হাসিনা নারী ক্ষমতায়ন ও নেতৃত্বের প্রতীক। বাংলাদেশে বিভিন্ন ক্ষেত্রে উন্নয়নের চিত্রও এ সময় প্রধানমন্ত্রী তুলে ধরেন।

তাঁর সরকারের মেয়াদে মূল্যস্ফীতি হ্রাস, প্রবৃদ্ধি বৃদ্ধি ও দারিদ্র্য বিমোচনে সফলতার কথা উল্লেখ করেন শেখ হাসিনা। বাংলাদেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নেরও প্রশংসা করেন হাউস অব লর্ডসের স্পীকার। তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে বাংলাদেশের উন্নয়নেরও প্রশংসা করেন তিনি।

বৈঠকে বাংলাদেশে বিদেশী বিনিয়োগের বিষয়েও আলোচনা হয় বলে জানান প্রধানমন্ত্রীর প্রেস সচিব। বিদেশী বিনিয়োগ আকৃষ্ট করতে ২০টি অর্থনৈতিক অঞ্চল করার কথাও বলেছেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠকে ঢাকায় যুক্তরাজ্যের রাষ্ট্রদূত রবার্ট গিবসন, স্পীকার শিরীন শারমিন চৌধুরী, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা গওহর রিজভী ও মুখ্য সচিব আবুল কালাম আজাদ উপস্থিত ছিলেন।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: