২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ চায় বিএনপি


স্টাফ রিপোর্টার ॥ বর্তমান অচল অবস্থা নিরসনে জাতিসংঘের হস্তক্ষেপ চেয়েছে বিএনপি। তাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, আওয়ামী লীগ ও বিএনপির মধ্যে সংলাপ অনুষ্ঠানে জাতিসংঘের যে কোন উদ্যোগকে স্বাগত জানাবে তারা। দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান টাইমস অব ইন্ডিয়াকে দেয়া এক সাক্ষাতকারে দেশের অচল অবস্থা সম্পর্কে বলেন, একমাত্র আলোচনার মাধ্যমে চলমান সঙ্কটের সমাধান হতে পারে। গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সঙ্কট উত্তরণের একমাত্র পথ আলোচনা। আলোচনা ব্যর্থ হলে পরবর্তী পদক্ষেপও হবে আলোচনা। সংলাপের কোন বিকল্প নেই।

তিনি চলমান সহিংস আন্দোলনের বিষয়ে বলেন, গণতান্ত্রিক আচরণ ও মূল্যবোধের অভাবে দীর্ঘ সময় ধরে সৃষ্ট রাজনৈতিক দ্বন্দ্বের ফল হচ্ছে এই সহিংসতা। সহিংসতাকে রোগ নয় রোগের উপসর্গ আখ্যা দিয়ে বলেন, চলমান এ সহিংসতার সঙ্গে বিএনপির কোন সম্পৃক্ততা নেই।

তিনি বলেন, বর্তমান অবস্থায় সংলাপে বসার গণতান্ত্রিক পরিবেশ দেশে নেই। বিএনপির অনেক জ্যেষ্ঠ নেতাসহ প্রায় ১০ হাজার নেতাকর্মী মিথ্যা মামলায় গ্রেফতার আছেন। এ অবস্থায় সংলাপে জাতিসংঘ কোন উদ্যোগ নিলে বিএনপি তাকে স্বাগত জানাবে। তিনি বলেন, ভূরাজনৈতিক দিক থেকে বাংলাদেশ দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়া এবং চীনের মধ্যে সেতুবন্ধন হওয়ায় এখানের কোন সমস্যায় ইউরোপ ও উত্তর আমেরিকার মতো এ অঞ্চলের প্রভাবশালী দেশগুলোর উদ্বেগের কারণ রয়েছে। এ কারণে বাংলাদেশের বর্তমান অচলাবস্থার দ্রুত সমাধান আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়েরও স্বার্থসংশ্লিষ্ট উল্লেখ করেন তিনি।

তিনি বিএনপিসহ ২০ দলীয় জোটের চলমান আন্দোলনে নাশকতার জন্য সরকারকে দায়ী করে বলেন, বিএনপিকে বদনাম দেয়ার জন্য এ ধরনের নাশকতা করা হচ্ছে। অথচ এর সঙ্গে জড়িত একজন চিহ্নিত অপরাধীর বিরুদ্ধেও সরকার কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি। শাসক দলের সহায়তায় অপরাধীরা নাশকতার মতো ঘটনা ঘটাচ্ছে বলে উল্লেখ করা হয়।

এদিকে প্রতিদিনের মতো বুধবার অজ্ঞাত স্থান থেকে পাঠানো এক বিবৃতিতে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর মৌখিক নির্দেশ সিভিল প্রশাসন ও আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে দায়মুক্তির গ্যারান্টি দিতে পারে না।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: