২২ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

খালেদার অফিসে ঢিল ছুড়ল ক্ষুব্ধ যুবক


স্টাফ রিপোর্টার ॥ হরতাল-অবরোধের নামে নাশকতা চালিয়ে মানুষ হত্যার প্রতিবাদ জানাতে এবার বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে ইটের বড় টুকরো দিয়ে ঢিল ছুড়েছেন এক বিক্ষুব্ধ যুবক। ভাইকে পুড়িয়ে মারার প্রতিবাদে তিনি খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ের প্রধান ফটকের সামনে দাঁড়িয়ে ঢিল ছুড়ে মারেন। ইটের টুকরা ছোড়ার সময় তাকে বলতে শোনা যায়, ‘খালেদা জিয়া কই, তিনি আমার ভাইকে পুড়িয়ে মেরেছেন।’ তার প্রথম ঢিলটি এ কার্যালয়ের দ্বিতীয় তলার দেয়ালে ঝুলিয়ে রাখা খালেদা জিয়ার ছবির ওপরে পড়ে। এর পর দ্বিতীয় ঢিলটি মারতে গেলে পুলিশ তাকে আটক করে নিয়ে যায়। এই বিক্ষুব্ধ যুবকের নাম পরাণ (৪০)। তার বাড়ি সিরাজগঞ্জ জেলার কাজীপুরে। এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে মোবাইল নেটওয়ার্ক সচল হয়েছে।

জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুর দেড়টায় যুবকটি বিএনপি চেয়ারপার্সনের গুলশান কার্যালয়ের গেটের সামনে গিয়ে প্রথমে আন্দোলনের নামে তার ভাইকে পুড়িয়ে মারার প্রতিবাদে বিভিন্ন বাক্য উচ্চারণ করে। এক পর্যায়ে ২টি বড় ইটের টুকরো নিয়ে সে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের ভেতরে ঢিল মারে। দ্বিতীয় ঢিলটি মারার আগেই সেখানে কর্তব্যরত গোয়েন্দা পুলিশ তাকে ধরে নিয়ে যায়। তবে খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে ঢিল মারার কারণ জানতে চাইলে পরাণ জানায়, হরতাল-অবরোধকারীদের বোমা হামলায় তার ভাই অগ্নিদগ্ধ হয়ে মারা গেছে। সে ক্ষোভেই খালেদা জিয়ার কার্যালয়ে ঢিল নিক্ষেপ করেছে।

মোবাইল নেটওয়ার্ক সচল ॥ খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ে মোবাইল নেটওয়ার্ক সচল হয়েছে। সিটিসেল ও টেলিটকের নেটওয়ার্ক আরও ক’দিন আগে থেকে সচল হলেও মঙ্গলবার থেকে গ্রামীণফোনের নেটওয়ার্কও সচল হয়েছে। তবে জানতে চাইলে ৩৯ দিন ধরে গুলশান কার্যালয়ে অবস্থান করা বিএনপি চেয়ারপার্সনের মিডিয়া উইং কর্মকর্তা শামসুদ্দিন দিদার বলেন, মাঝে মাঝে মোবাইল নেটওয়ার্ক পাওয়া গেলেও অধিকাংশ সময়ই পাওয়া যায় না। তাই গুলশান কার্যালয়ে মোবাইল নেটওয়ার্ক চালু হয়েছে তা এখনও বলা যায় না। পুরোপুরি নেটওয়ার্ক পাওয়া গেলেই কেবল তা বলা যাবে।

সৈনিক লীগের বিক্ষোভ ॥ বেলা ১১টার দিকে বিএনপি চেয়ারপার্সনের কার্যালয়ের অনতিদূরে গুলশান দুই নম্বর গোলচত্বরে হরতাল অবরোধ প্রত্যাহারের দাবি ও জ্বালাও-পোড়াও করে মানুষ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভ সমাবেশ করে সৈনিক লীগের নেতাকর্মীরা। ওখান থেকে বিভিন্নœ ধরনের প্রতিবাদী সেøাগানসহ মিছিল নিয়ে তারা খালেদা জিয়ার কার্যালয়ের দিকে যেতে চাইলে পুলিশ বাধা দেয়। এর পর সেখানে অবস্থান করেই তারা বিক্ষোভ প্রদর্শন করতে থাকে।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: