২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

কক্সবাজারে পাহাড় কেটে মাটি লুট


এইচএম এরশাদ, কক্সবাজার ॥ জেলার চকরিয়া খুটাখালীতে দিবালোকে পাহাড় কেটে মাটি লুটের মহোৎসব চলছে। দীর্ঘ এক মাস ধরে বনবিভাগের বিশাল আয়তনের একটি পাহাড় কেটে মাটি লুটে নেয়া হলেও তা বন্ধে কোন ধরনের ব্যবস্থা নেয়নি বনবিভাগ। এমনকি রহস্যজনকভাবে পাহাড় কাটার এ ঘটনাটি অগোচরে রয়ে গেছে স্থানীয় প্রশাসন ও পরিবেশ অধিদফতর কর্তৃপক্ষের। মাটি লুটে নেয়ার পর পাহাড়টি বর্তমানে মরুভূমিতে পরিণত হয়েছে। খুটাখালী পুরাতন ইউনিয়ন পরিষদ সড়কের পূর্ব দিকে একটু ভেতরে পিয়াজ্জ্যাকাটা (পূর্বপাড়া) গ্রামে চলছে পাহাড় কেটে মাটি লুটের এ ঘটনা। জানা গেছে, বছর দুয়েক আগে কক্সবাজার উত্তর বনবিভাগের ফুলছড়ি রেঞ্জের অধীন খুটাখালী বনবিটের একটি পাহাড় প্রভাব দেখিয়ে দখলে নেয় ওই গ্রামের মৃত ঠা-া মিয়া চেয়ারম্যানের পরিবার। গত এক মাস আগে ঠা-া মিয়া চেয়ারম্যানের পুত্র কামাল উদ্দিন এস্কেভেটার দিয়ে পাহাড়টি কেটে পিকআপ গাড়িতে করে লুটে নিয়ে গেছে পাহাড়ের সব মাটি। স্থানীয়রা অভিযোগ করেছে, এ জঘন্য কাজে জড়িতরা স্থানীয়ভাবে প্রভাবশালী হওয়ায় পাহাড় কাটার সময় এলাকার কেউ তাদের বাধা দিতে সাহস করেনি। ফলে ওই সুযোগে তারা প্রকাশ্য দিবালোকে পাহাড়টি কেটে মাটি লুটে নিয়ে সাবাড় করে দিয়েছে। বাধা দেয়ার যেন কেউ নেই। স্থানীয় পরিবেশ সচেতন মহলের দাবি, উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পাহাড় কাটা বন্ধে কক্সবাজার পরিবেশ অধিদফতরের কর্মকর্তারা ব্যাপক তোড়জোড় চালালেও খুটাখালী পিয়াজ্জ্যাকাটার পাহাড়টি কাটার ঘটনায় এ পর্যন্ত জড়িতদের বিরুদ্ধে কোন ধরনের প্রদক্ষেপ নেয়নি। কক্সবাজার পরিবেশ অধিদফতরের সহকারী পরিচালক সরদার শরিফুল ইসলাম বলেন, খুটাখালী পিয়াজ্জ্যাকাটা এলাকায় পাহাড় কাটার ব্যাপারে পরিবেশ অধিদফতরকে কেউ অবহিত করেনি। তাই এ ব্যাপারে কোন ব্যবস্থা নেয়াও সম্ভব হয়নি।