২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৫ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

মেজর হাফিজের বিবৃতি ভুয়া কি-না, খোদ মিডিয়া উইংয়েরই সংশয়


স্টাফ রিপোর্টার ॥ ‘বিএনপির নামে যে কর্মসূচী ঘোষণা করা হচ্ছে তাতে দেশনেত্রীর সমর্থন আছে কি-না নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না’ এমন বক্তব্যসহ বিবৃতি এসেছে বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব) হাফিজ উদ্দীনের নামে। তবে বিএনপির মিডিয়া উইং থেকে দাবি করা হয়েছে, বিবৃতিটি ভুয়া। গত কদিন ধরে ‘আন্ডার গ্রাউন্ড’ থেকে দফায় দফায় পাঠানো বিবৃতি নিয়ে ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার মধ্যেই সোমবার বিবৃতি পাল্টা বিবৃতির ঘটনা ঘটেছে।

সোমবার সন্ধ্যা ৬টা ৯ মিনিটে রহভড়@নহঢ়নফ.ড়ৎম মেইল ঠিকানা থেকে গণমাধ্যমে একটি মেইল আসে। যেখানে ভাইস চেয়ারম্যান মেজর অব হাফিজ উদ্দীন বলেছেন, বিএনপির নামে যেসব কর্মসূচী ঘোষণা করা হচ্ছে তাতে দেশনেত্রীর সমর্থন আছে কি-না নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। মেজর হাফিজের নামে পাঠানো ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, বিএনপি কোন সহিংস কার্যকলাপের পক্ষে নয়। শহীদ জিয়ার ১৯ দফা কর্মসূচী বিএনপি মূলমন্ত্র। সেখানে সহিংসতার জায়গা নেই। কিছু নেতার কারণে দল জিয়াউর রহমানের আর্দশ থেকে বিচ্যুত হয়েছে। বিবৃতিতে বলা হয়, গুলশানের কার্যালয়ে বিএনপি নেতাদের কেউই খালেদা জিয়ার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারছেন না। তার টেলিফোন, ফ্যাক্স, ইন্টারনেট সবকিছু বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তার সঙ্গে নেতাকর্মীরা যোগাযোগ করতে পারছেন না। এ অবস্থায় বিএনপির নামে যেসব কর্মসূচী ঘোষণা করা হচ্ছে, তাতে দেশনেত্রীর সমর্থন আছে কি-না নিশ্চিত হওয়া যাচ্ছে না। দীর্ঘসময় অনিয়ন্ত্রিত ও সহিংস কর্মসূচীর ফলে জনমনে যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে তা আমাদের অনুধাবন করা জরুরী। সংলাপই সঙ্কট উত্তরণের একমাত্র পথ। সরকারকে আলোচনায় বসতে হবে এবং সংলাপের উদ্যোগ নিতে হবে। বিএনপির নামে যারা এসব করছে তাদের সঙ্গে বিএনপির সম্পর্ক নেই। মুক্তিযোদ্ধাদের দল বিএনপি বাংলাদেশের জন্য ক্ষতিকর রাজনীতি করতে পারে না। দেশবিরোধী কোন অপশক্তি বিএনপির নামে নাশকতা চালাচ্ছে তাদের বিরুদ্ধে সচেতন হতে হবে। এদের দায় বিএনপি নিতে পারে না। বিষয়টি নিয়ে বিব্রত বিএনপির মিডিয়া উইং-এর সদস্য শায়রুল কবির খান বলেন, প্রথম কথা হচ্ছে মেজর হাফিজ তার বনানী বাসায় নেই। দ্বিতীয় কথা হচ্ছে, তিনি জানিয়েছেন- তাঁর বক্তব্য দেয়ার প্রয়োজন হলে তিনি প্রচার বিভাগের সহায়তায় বিবৃতি পাঠাবেন। তৃতীয় কথা হচ্ছে, এর আগে কয়েকবার মিডিয়ার সঙ্গে কথা বলেছেন তিনি। সব সময় প্রকাশ্যেই কথা বলেন তিনি। এছাড়া যে ই-মেইল ঠিকানা থেকে বিবৃতি পাঠানো হয়েছে, এটি বিএনপির কোন মেইল নয় বলে দাবি করেন শায়রুল কবির খান।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: