১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

অবৈধ খেলোয়াড়, কাতারকে সতর্ক করল ফিফা


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্ব ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা (ফিফা) সভাপতি সেপ ব্লাটার কাতারকে সতর্ক করে দিয়েছেন। সাধারণত মধ্যপ্রাচ্যে তাদের প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে খেলোয়াড় আমদানি করে জাতীয় দল গড়ে কাতার। অতীতেও এমন করেছে দেশটি। ২০২২ বিশ্বকাপের আয়োজক কাতার। কিছুদিন আগেও বিশ্ব হ্যান্ডবল চ্যাম্পিয়নশিপস আসরেও তারা এমনটাই করেছে। কিন্তু বিশ্বকাপে এ ধরনের পদক্ষেপ নেয়ার ক্ষেত্রে কাতারকে বিরত থাকার আহ্বান জানিয়েছেন ব্লাটার।

মাত্র ২২ লাখ জনবসতি অধ্যুষিত দেশ কাতার। সে কারণে প্রতিযোগিতামূলক কোন আসরে দল গড়ার জন্য বেশ সমস্যায় পড়তে হয় দেশটিকে। এ কারণে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় কাতার প্রতিবেশী দেশগুলো থেকে আমদানি করা খেলোয়াড়দের নিয়ে দল গড়ে থাকে। এ বিষয়ে ব্লাটার বলেন, ‘মাত্র ২.২ মিলিয়ন মানুষের এ দেশটি ২০২২ বিশ্বকাপে জাতীয় ফুটবল দল গড়ার ক্ষেত্রে অনেক বড় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়বে। যাই হোক এটা খুব দ্রুতই নিজেদের খেলোয়াড় নিয়ে দল গড়ার ক্ষেত্রে সহজ কোন পদক্ষেপ হবে না।’ ব্লাটার কাতারকে সতর্ক করে দিয়ে জানিয়েছেন বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থা কোনভাবেই এ ধরনের কার্যকলাপ অনুমোদন করবে না। যদিও আন্তর্জাতিক হ্যান্ডবল ফেডারেশন কিছুদিন আগে সেটা অনুমোদন করেছিল। এমন একটি দল নিয়েই কাতার গত সপ্তাহে শেষ হওয়া বিশ্ব হ্যান্ডবল চ্যাম্পিয়নশিপস আসরের ফাইনাল খেলেছিল। কিন্তু ব্লাটার এটাকে জাতীয় দল হিসেবে সাংঘর্ষিক একটি বিষয় মনে করছেন।

কাতার ওই আসরে বসনিয়া-হার্জেগোভিনা, ফ্রান্স, স্পেন, কিউবা এবং মন্টিনিগ্রো থেকে খেলোয়াড় নিয়েছিল। এদের অনেকেই আবার নিজ দেশের জাতীয় দলেও খেলেছেন। তবে হ্যান্ডবল ফেডারেশন একজন খেলোয়াড়কে একাধিক দেশের হয়ে আন্তর্জাতিক টুর্নামেন্টে খেলার অনুমোদন দেয়। ব্লাটার এ বিষয়ে আরও বলেন, ‘আসল ব্যাপার হচ্ছে ক্রীড়া সবসময় সামাজিক বন্ধন দৃঢ় করে এবং বিভিন্ন সংস্কৃতিকে একীভূত করে। সেটা যাই হোক এবার বিশ্ব হ্যান্ডবল চ্যাম্পিয়নশিপস আসরে যা হয়েছে তাকে নামমাত্র একটি আয়োজনে পরিণত করেছে এ ধরনের অযৌক্তিক কার্যকলাপ।’ ফিফার আইন অনুসারে যে কোন খেলোয়াড়কে জাতীয় দলে খেলতে হলে সেই দেশে জন্ম নিতে হবে কিংবা অন্তত তার বাবা-মাকে সেখানে জন্ম নিতে হবে। এসব যদি না হয় সেক্ষেত্রে অন্তত ওই দেশে সেই খেলোয়াড়কে ৫ বছর ধরে বাস করতে হবে খেলার যোগ্যতা অর্জনের জন্য।’ ব্লাটারের এমন মন্তব্য এবং ফিফা আইনের কারণে ২০২২ বিশ্বকাপে দল গড়তে বেশ হিমশিম অবস্থা হবে কাতারের। তবে এখনও ৭ বছর সময় আছে। এর মধ্যেই নিজেদের গুছিয়ে নিতে পারলে ভাল, নয় তো একেবারেই অগোছালো ও দুর্বল একটি দল নিয়ে বিশ্বকাপের মতো একটি বড় ইভেন্টে অংশ নিতে হবে কাতারকে স্বাগতিক দল হয়েও।