১৮ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৪ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিশ্বকাপে পাকিস্তানের লক্ষ্য পুনরাবৃত্তি!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ বিশ্বকাপ মাঠে গড়াতে মাত্র ৫ দিন বাকি। ইতোমধ্যেই বিশ্ব ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রক সংস্থার (আইসিসি) তত্ত্বাবধানে চলে গেছে অংশগ্রহণকারী ১৪ দল। এ বিশ্বকাপের সবচেয়ে বিরক্তিকর দল হিসেবে গোড়াতেই ছিটকে পড়া এবং সেটা না হলে শিরোপাও জিততে সক্ষম একটি দলই আছে- সেটা হচ্ছে পাকিস্তান। শুরু হয়ে গেছে প্রস্তুতি ম্যাচ। এসবের আগেই বড় সমস্যায় পড়েছে পাকরা। ইনজুরির ধাক্কায় পুরোপুরি বেসামাল হয়ে পড়েছে দলটি। পেসার জুনায়েদ খান ছিটকে গেছেন, ইনজুরির কারণে অভিজ্ঞ উমর গুল দলে ঠাঁই পাননি এবং সর্বশেষ নির্ভরযোগ্য ওপেনার মোহাম্মদ হাফিজও ছিটকে গেলেন। বোলিংয়ে আইসিসির নিষেধাজ্ঞা থাকায় শুধু ব্যাটসম্যান হিসেবে ছিলেন তিনি। তার বদলে আরেক ওপেনার নাসির জামশেদকে ডাকা হয়েছে। অনেকে অবশ্য সম্প্রতিই আইসিসির নিষেধাজ্ঞা উঠে যাওয়া অফস্পিনার সাঈদ আজমলকে হাফিজের বদলি হিসেবে চিন্তা করেছিলেন। তবে অধিনায়ক মিসবাহ-উল-হক নিজেই এ্যাকশন শুধরানো আজমলের ওপর আস্থা রাখতে পারছেন না। অনেকদিন ধরেই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে আজমল। পাকিস্তানের স্পিন স্তম্ভই শুধু নয় বোলিংয়ের অন্যতম শক্তি এ অফস্পিনার তার বোলিং এ্যাকশনে ত্রুটির কারণে আইসিসি কর্তৃক নিষিদ্ধ ছিলেন। গত ২৪ জানুয়ারি চেন্নাইয়ে দ্বিতীয়বারের মতো এ্যাকশনের পরীক্ষা দিয়ে উত্তীর্ণ হয়েছেন তিনি, ঘোষিত হয়েছেন বৈধ। আর তখন থেকেই বিশ্বকাপ খেলার একটি সুযোগ উন্মুক্ত হয়ে গেছে। ওপেনার হাফিজের ইনজুরির কারণে সেটা যেন আরও খোলাসা। এবার পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড (পিসিবি) চাইলেই তার পরিবর্তে আজমলকে বিশ্বকাপ দলে নিয়ে নিতে পারে। আজমল নিজেই বিশ্বকাপ দল ঘোষণার সপ্তাহ খানেক আগে নিজেকে সরে নিয়েছিলেন। তখন থেকেই তিনি খেলার বাইরে। স্পিন কোচ সাকলাইন মোস্তাকের অধীনে কাজ করে গেছেন নিজেকে শোধরাতে। অবশেষে সে সব শ্রম ফলপ্রসূ হয়েছে। আবারও আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ফেরার ছাড়পত্র পেয়ে গেছেন তিনি। তাই বিশ্বকাপে আজমল খেলতে পারেন এমন এক গুঞ্জন শুরু হয়ে গেছে। এ বিষয়ে অধিনায়ক মিসবাহ বলেন, ‘এ বিষয়ে অনেক যদি ও কিন্তু আছে। মূল বিষয় হচ্ছে এখন পর্যন্ত তিনি কোন ধরনের ক্রিকেট খেলেননি। ইতোমধ্যেই দল ঘোষণা করা হয়ে গেছে। কিছুদিন যেতে দেন তার নতুন অবস্থানটা কেমন দাঁড়ায় দেখা যাক।’

গত আগস্টে আজমলের বোলিংয়ে ত্রুটি ধরার পর আর কোন প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট খেলেননি তিনি। তবে ডিসেম্বরে কেনিয়ার বিরুদ্ধে দুটি আনঅফিসিয়াল ওয়ানডে খেলে মাত্র ১২.১ ওভার বোলিং করেছেন। মিসবাহ দাবি করেছেন আজমল নিজেই নিশ্চিত নয় তিনি খেলতে পারবেন কি পারবেন না এবং সে জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত আছেন কিনা। মিসবাহ বলেন, ‘এমন বড় রকমের একটি ইভেন্টে অংশ নেয়ার জন্য অন্তত কিছু ক্রিকেট খেলার অভ্যেস থাকতে হয়, সেটা আজমলের নেই।’ তবে হাফিজের পরিবর্তে দলে ঢোকার দারুণ এক সুযোগ হয়েছিল আজমলের। হাফিজ সম্প্রতিই নিউজিল্যান্ডের বিরুদ্ধে দুই ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের দ্বিতীয় ম্যাচে গোড়ালির ইনজুরিতে পড়েন।