২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

৭২ ঘণ্টার হরতাল ফের আজ থেকে


স্টাফ রিপোর্টার ॥ আজ থেকে আবারও শুরু হচ্ছে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০ দলীয় জোটের টানা ৭২ ঘণ্টার হরতাল কর্মসূচী। রবিবার সকাল ৬টা থেকে শুরু হচ্ছে এ কর্মসূচী। আগামী বুধবার সকাল ৬টায় ৭২ ঘণ্টার এ হরতাল কর্মসূচী শেষ হবে। গত শুক্রবার রাতে বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব সালাউদ্দিন আহমেদ এক বিবৃতিতে হরতাল কর্মসূচী পালনের ঘোষণা দেন। এর আগে গত সপ্তাহের রবিবার থেকে বৃহস্পতিবার পর্যন্ত টানা হরতাল কর্মসূচী পালন করে ২০ দলীয় জোট। এদিকে জোটের পক্ষে শনিবার এক বিবৃতিতে সালাউদ্দিন আহমেদ বলেন, ৫ জানুয়ারির নির্বাচনের মাধ্যমে সরকারই রাজনৈতিক ভুল করেছে। সে ভুলের খেসারত আওয়মী লীগ ও তাদের দোসরদের দিতে হবে। জনগণ এর দায় নেবে না। পঞ্চদশ সংশোধনীর মাধ্যমে দেশে যে রাজনৈতিক সমস্যার জন্ম দিয়েছে বর্তমান সরকার সংশোধনী বাতিল করে সমস্যার সমাধান তাদেরই করতে হবে।

গুলশান কার্যালয়ে বিক্ষোভ অব্যাহত ॥ এদিকে বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার গুলশান কার্যালয়ের সামনে সাধারণ শ্রমিক ও খেটে খাওয়া মানুষের বিক্ষোভ অব্যাহত রয়েছে। শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে তৃণমূল দিনমজুর সমিতির ব্যানারে প্রায় এক ঘণ্টা বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন শ্রমজীবী ও খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষেরা। এ সময় তাঁদের হাতে ছিল ঝুড়ি, কোদাল, খুন্তি, হাতুড়ি, বাটালসহ ক্ষেতে-খামারে কাজ করার বিভিন্ন যন্ত্রপাতি। তাঁরা গুলশান-২ এর ৮৬ নম্বর সড়কে বিএনপি কার্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ প্রদর্শন করেন। হরতাল অবরোধ প্রত্যাহারের দাবিতে সেøাগান দেন ‘ভাত দে কাপড় দেয়, নইলে অবরোধ তুলে নে’।

তৃণমূল দিনমজুর সমিতির সভাপতি জহিরুল হক মিন্টুর নেতেৃত্বে শতাধিক নারী-পুরুষ এ বিক্ষোভ কর্মসূচীতে অংশ নেন। এ সময় তাঁরা ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, হরতাল-অবরোধে মজুরদের কাজ থাকে না। পেটের দায়ে আজ রাস্তায় নেমেছি। খালেদা জিয়াকে অবিলম্বে হরতাল-অবরোধ প্রত্যাহার করতে হবে। সংগঠনের সভাপতি জহিরুল হক মিন্টু বলেন, আমাদের কাজ নেই, খাবার নেই। অন্য পন্থায় আন্দোলন করুন। অবিলম্বে হরতাল-অবরোধ বন্ধ করুন। নইলে আপামর জনতা বেগম জিয়াকে কোনদিনই গুলশান কার্যালয় থেকে বের হতে দেবে না। এসব কর্মসূচী শ্রমিকদের ধ্বংসের মুখে নিয়ে যাচ্ছে। এজন্য প্রতিবাদ জানাতে আমরা এখানে এসেছি।

বিক্ষোভ সমাবেশে শ্রমিকরা বলেন, রাজনৈতিক সমস্যা রাজনৈতিক আলাপ-আলোচনার মাধ্যমে সমাধান করুন। কিন্তু আন্দোলনের নামে দিনমজুর শ্রমিকদের পেটে লাথি মারবেন না। আর যেন কোন মানুষকে পেট্রোলবোমার আঘাতে মরতে না হয়। আমরা স্বাভাবিক মৃত্যুর গ্যারান্টি চাই। বিক্ষোভে অংশ নেয়া আমেনা খাতুন বলেন, বেগম খালেদা জিয়ার কাছে আমাদের একটাই আবেদন, হরতাল দেবেন না। অবরোধ তুলে নিন। অবরোধ-হরতালের কারণে আমরা কাজ পাচ্ছি না। সংসার চালাতে গিয়ে আমরা হিমশিম খাচ্ছি।

এর আগে এসএসসি পরীক্ষার মধ্যে অবরোধ তুলে নিতে গুলশানের আশপাশের কয়েকটি স্কুলের শিক্ষার্থীরা এরমধ্যে খালেদার কার্যালয়ের সামনে বিক্ষোভ, মানববন্ধন করে ও স্মারকলিপি দেয়।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট ছাত্রদলের ॥

এদিকে আজ থেকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট আহ্বান করেছে জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল। শনিবার সংগঠনের সভাপতি রাজিব আহসান এবং সাধারণ সম্পাদক মোঃ আকরামুল হাসান এক বিবৃতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে সহাবস্থান নিশ্চিত না করা এবং উপাচার্য আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিকের পদত্যাগের দাবিতে এই ঘর্মঘটের ডাক দেন।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: