২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

নেইমারের মামলার পেছনে রিয়ালের হাত!


নেইমারের মামলার পেছনে রিয়ালের হাত!

স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ মামলা করলেন একজন সমর্থক। অথচ নেইমারকে নিয়ে মামলার পেছনে নাকি হাত আছে রিয়াদ মাদ্রিদের! বার্সেলোনায় নেইমারের ট্রান্সফার নিয়ে কর ফাঁকির মামলার পেছনে চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদের হাত আছে বলেই মনে করেন কাতালান ক্লাবটির সভাপতি জোসেপ মারিয়া বার্তোমেউ। স্পেনের একটি টেলিভিশনে নেইমারের ট্রান্সফার আর বার্সেলোনার বিরুদ্ধে ওঠা দুর্নীতির অভিযোগ ও নিজেদের অবস্থান নিয়ে কথা বলেন ক্লাবটির সভাপতি। তিনি জানান, ‘আমরা কোন ভুল করিনি এবং আমরা সত্য বলতে থাকব। নেইমারের চুক্তি হয় খ্যাতনামা আইনজীবীদের মাধ্যমে। বেশি টাকা দিয়ে অন্য ক্লাবগুলো নেইমারের সঙ্গে চুক্তি করতে চেয়েছে। কিন্তু তারা সেটা করতে পারেনি এবং এটা তাদের ভাল লাগেনি। কেউ এখন সীমানা ছাড়াচ্ছে। আমি বলছি না, এর পেছনে মাদ্রিদ আছে। কিন্তু নেইমারের বাবা আমাকে বলেছে যে, দুটি প্রস্তাব ছিল; বার্সা ও মাদ্রিদ। মাদ্রিদ তাকে কিনতে চেয়েছিল এবং তার জন্য বেশি টাকা দিতে প্রস্তুত ছিল।’

বার্সেলোনা আর ক্লাবটির পরিচালকদের ২০১৪ কর বছরে ২৮ লাখ ইউরো কর ফাঁকি দেয়ার অভিযোগের বিষয়ে বার্তোমেউকে ১৩ ফেব্রুয়ারি জিজ্ঞাসাবাদ করা হবে। গত মৌসুমের শুরুতে নেইমার ৫ কোটি ৭০ লাখ ইউরো ট্রান্সফার ফির বিনিময়ে বার্সেলোনায় যোগ দেয় বলে প্রথমে জানিয়েছিল বার্সেলোনা। চুক্তি নিয়ে স্বচ্ছতার প্রশ্ন তুলে একজন সমর্থক বিষয়টি আদালতে নিয়ে যান। এরপরই বিষয়টি নিয়ে ধোঁয়াশার সৃষ্টি হয়। কারণ নেইমারকে দলে নিতে কত টাকা খরচ হয়েছে এবং তা কাকে দেয়া হয়েছে, সে ব্যাপারে বার্সেলোনা কখনও পরিষ্কার করে কিছু জানায়নি। এ নিয়ে বার্সার সাবেক সভাপতি সান্দ্রো রোসেলের বিরুদ্ধে আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগ ওঠে। এরই প্রেক্ষিতে ২০১৪ সালের জানুয়ারি মাসে পদত্যাগ করেন তিনি। রোসেলের পদত্যাগের পর বার্সেলোনার সভাপতির আসনে বসেন বার্তোমেউ। এরপর বার্সা কর্তৃপক্ষ জানায়, এই ফরোয়ার্ডকে দলে নিতে তাদের মোট ৮ কোটি ৬২ লাখ ইউরো খরচ হয়েছিল। যার একটা বড় অংশ দেয়া হয়েছিল নেইমার ও তার পরিবারকে। বার্তোমেউ মনে করেন, নেইমারের ভাল খেলাটা কারও সহ্য হচ্ছে না বলেই এমন হয়রানির শিকার হতে হচ্ছে বার্সেলোনাকে। জানিয়েছেন, ‘এক বছর আগে নেইমার ভাল খেলছিল এবং তখন হঠাৎ করে এই ধরনের গুঞ্জন আসল। সম্ভবত কেউ একজন তাকে পছন্দ করে না। এখন আবার সে ভাল খেলছে এবং আরেকটা বিচারিক প্রক্রিয়া এলো। এক বছর আগে ক্যাম্পন্যুতে আমরা ‘লিবার্টি কনসার্ট’ করতে দেই, আমরা সেনিয়েরার রং (কাতালান পতাকা) নিয়ে খেলি। এটা সম্ভবত (তাদের) পছন্দ নয়।’

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: