২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

সাংবাদিক পেটানোয় রমনার দুই ওসি, এসআইয়ের বিরুদ্ধে মামলা


কোর্ট রিপোর্টার ॥ ইংরেজী দৈনিক নিউ এজ পত্রিকার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধিকে পেটানোর ঘটনায় রমনা থানার ওসি মশিউর রহমান, ওসি (তদন্ত) আলী হোসেন এবং এসআই মেহেদী হাসান সুমনসহ অজ্ঞাত আরও ৮-১০ জন পুলিশ সদস্যের বিরুদ্ধে ঢাকা সিএমএম আদালতে মামলা করা হয়েছে। মঙ্গলবার আদালতে হাজির হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র নির্যাতিত শিক্ষার্থী নাজমুল হুদা সুমন এ মামলা দায়ের করেন। ঢাকা মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট মোহাম্মাদ আনোয়ার সাদাত শুনানি শেষে ডিবির জয়েন্ট কমিশনারকে আগামী ১০ মার্চের মধ্যে অভিযোগ তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১ ফেব্রুয়ারি বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে বাদী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র নাজমুল হুদা সুমন তার বন্ধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র খায়রুজ্জামানকে নিয়ে মোটরসাইকেলে বিজয়নগরের রাজমনি সিনেমা হলের সামনে এলে ট্রাফিক পুলিশ তাদের থামায়। দুই জন মোটরসাইকেলে ওঠা নিষিদ্ধ জিজ্ঞাস করেই কোন উত্তর দেয়ার সুযোগ দেয়ার আগেই তাদের ওপর চড়াও হয়। বাদী সাংবাদিক পরিচয় দিলে ঘটনাস্থলে উপস্থিত এসআই মেহেদী হাসান বাদী সুমন ও তার বন্ধুকে বেধড়ক মারধর শুরু করেন।

আরও এক সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষ

২১ আগস্ট হামলা

কোর্ট রিপোর্টার ॥ ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা মামলায় রাষ্ট্রপক্ষের চার্জশীটভুক্ত আরও এক সাক্ষীর সাক্ষ্য শেষ হয়েছে।

মঙ্গলবার মোঃ মাকসুদ ১০৬ নম্বর সাক্ষী হিসেবে ট্রাইব্যুনালে সাক্ষ্য দেন। তিনি সুরতহালের সাক্ষী। ওই ঘটনায় নিহত ২৪ জনের মধ্যে চারজন মৃতের সুরতহাল রিপোর্ট তার সামনে তৈরি করে পুলিশ।

পুরান ঢাকার কেন্দ্রীয় কারাগারের সামনে স্থাপিত অস্থায়ী ঢাকার ১ নম্বর দ্রুত বিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক শাহেদ নুর উদ্দিন প্রথমে এ সাক্ষীর জবানবন্দী গ্রহণ করেন। এরপর আসামিপক্ষের আইনজীবীরা তাকে জেরা করেন। আগামী ১১ ও ১২ ফেব্রুয়ারি সাক্ষ্যগ্রহণের পরবর্তী দিন ধার্য হয়েছে। রাষ্ট্রপক্ষে মামলা পরিচালনা করেন সৈয়দ রেজাউর রহমান।