২৪ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিতর্কিত বাংলা চলচ্চিত্র


সংস্কৃতি ডেস্ক ॥ বাংলা চলচ্চিত্রের ইতিহাসে নতুন বিতর্কের জন্ম দিয়ে ওপার বাংলার অমিতাভ চক্রবর্তী। এই পরিচালকের ‘কসমিক সেক্স’ নামের একটি চলচ্চিত্র গত সোমবার একটি ওয়েবসাইটে মুক্তি দেয়া হয়েছে। দেহতত্ত্বের মতো জটিল বিষয়কে দর্শকদের সামনে উপস্থাপন করা হয়েছে এতে। এর আগে কিউ পরিচালিত ‘গান্ডু’ অনলাইনে মুক্তি পাওয়ার পর শোরগোল পড়ে গিয়েছিল। পুতুল মাহমুদের প্রযোজনায় অমিতাভ চক্রবর্তীর এ চলচ্চিত্রের বিষয় ভাবনায় অনেকটাই সাবালক।

দেহতত্ত্বের সাধনবস্তুকেই চলচ্চিত্রে তুলে আনার প্রয়াস পরিচালকের। এতে ‘কৃপা’ নামের চরিত্রের মধ্য দিয়েই পরিচালক দেখাতে চেষ্টা করেছেন ভিন্ন এক দর্শন। বাউলদের ঈশ্বর সাধনার এক অধ্যায় দেহসাধনাও। শরীরই এখানে সাধনক্ষেত্র। শরীরই যৌনতা অতিক্রম করে পৌঁছে দিতে পারে আধ্যাত্মিকতায়। যৌনতা আর আধ্যাত্মিকতার মধ্যে সেতুর মতো আছে এই দর্শন। সাধারণের কাছে তা সহজবোধ্য নয়, এতটাই গোপন ও জটিল সে তত্ত্ব। অজ্ঞতার কারণেই অনেকের কাছেই যৌনতা ও এই সাধন সমার্থক হয়ে ওঠে। এই জটিল তত্ত্বকেই তুলে এনেছেন পরিচালক।

চলচ্চিত্রটির মুখ্য ভূমিকায় অভিনয় করেছেন, ঋ, আয়ুষ্মান মিত্র, মুরারী মুখোপাধ্যায়, পাপিয়া ঘোষাল প্রমুখ। তাদের মধ্যে ‘গান্ডু’র মতো এও লজ্জা না ঢেকেই ক্যামেরার সামনে এসেছেন ঋ। চলচ্চিত্রে অভিনয়ের সুবাদে ওসিয়ান সিনেফ্যান ফেস্টিভ্যালে সেরা অভিনেত্রীর পুরস্কারও জিতেছেন তিনি। প্রসঙ্গত, ওপার বাংলায় চলচ্চিত্র মুক্তি নিয়ে নানা পরীক্ষা-নীরিক্ষা চলছে। বিগত দিনে প্রেক্ষাগৃহের আগে টেলিভিশনে মুক্তি পায় অভিজিৎ গুহ ও সুদেষ্ণা রায় পরিচালিত চলচ্চিত্র ‘একলা চলো’। পরিচালক অমিতাভ চক্রবর্তী এর আগে বাংলার ফকিরদের নিয়ে ‘বিশার ব্লুজ’ তথ্যচিত্রটি নির্মাণ করে প্রশংসিত হন। দেহতত্ত্বের গূঢ় সাধনবস্তু নিয়ে নির্মিত তার এবারের চলচ্চিত্রে আপত্তিকর বেশকিছু দৃশ্য রয়েছে। ট্রেলার উন্মুক্ত হওয়ার পর এসব দৃশ্য দেখে বিতর্কের সৃষ্টি হয়।