২১ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

দুই বছর নিষিদ্ধ এ্যাথলেট রিটা


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ অবশেষে যা হওয়ার তাই হলো। নিজের প্রদান করা রক্তের দুটি নমুনাতেই নিষিদ্ধ ওষুধের উপস্থিতি নিশ্চিত হয়েছিল বিশ্ব ম্যারাথনের চ্যাম্পিয়ন কেনিয়ার রিটা জেপটুর। তাঁর রক্তে অবৈধ উদ্দীপক ওষুধ ইপিও’র উপস্থিতি নিশ্চিত হয়। শেষ পর্যন্ত তাকে দুই বছরের জন্য সব ধরনের এ্যাথলেটিক্স ইভেন্ট থেকে নিষিদ্ধ করা হয়েছে। এ্যাথলেটিক্স কেনিয়ার গবর্নিং বডি এ নিষেধাজ্ঞা দিয়েছে তাকে। আন্তর্জাতিক এন্টি ডোপিং আইন ও ধারা অনুসারে সর্বনিম্ন শাস্তিটাই পেয়েছেন রিটা। গত বছর ৩০ অক্টোবর থেকে কার্যকর হওয়া এ নিষেধাজ্ঞা শেষ হবে আগামী বছর ২৯ অক্টোবর। ৩৩ বছর বয়সী জেপটুর রক্তে গত সেপ্টেম্বরে নিষিদ্ধ ইপিও শনাক্ত করা হয়। বোস্টন ও শিকাগো ম্যারাথনে দু’বার বিজয়ী এ কেনিয়ার মহিলা দৌড়বিদ ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়ার বিষয়টি পুরো বিশ্বকেই হতবাক করে দেয়। সে সময় রিটা নিজেও বিস্ময় প্রকাশ করেন এবং দ্বিতীয়বার নমুনা নিয়ে পরীক্ষণের জন্য আবেদন করেন। লুসানে নিজে গিয়েই নতুন করে রক্তের নমুনা সরবরাহ করেন তিনি দ্বিতীয়বার পরীক্ষার জন্য। কিন্তু ‘বি’ নমুনার পরীক্ষাটাও গত ডিসেম্বরে পজিটিভ হয়। আবার পাওয়া যায় নিষিদ্ধ রক্ত উদ্দীপক ড্রাগ ইপিও। এ্যাথলেটিক্স কেনিয়া (একে) এ বিষয়টি নিয়ে এখন দারুণ সমস্যার মধ্যে রয়েছে। কারণ গত ৫ বছরে এ পর্যন্ত ৩২ জন এ্যাথলেট প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে গিয়ে কিংবা এর বাইরে ডোপ টেস্টে ব্যর্থ হয়েছেন। তবে রিটার বিষয়টি হওয়ার পর এখন সতর্ক হয়েছে একে। তারা নতুন করে এন্টি ডোপিং অরগানাইজেশন (এনএডিও) গঠন করেছে। দেশের অন্যান্য ক্রীড়া সংগঠনের মতোই একে ও এনএডিও’র সঙ্গে চুক্তি করেছে।

দেশের মধ্যে এখন যত ডোপ কেলেঙ্কারি ঘটবে সে বিষয়ে এনএডিওকে নৈতিকভাবে সার্বিক সমর্থন দেবে একে এবং তাদের নেয়া যে কোন পদক্ষেপও মেনে নেবে।

সর্বাধিক পঠিত:
পাতা থেকে: