২০ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট ৭ ঘন্টা পূর্বে  
Login   Register        
ADS

বিশ্বকাপে রেকর্ডের ঘোষণা আফ্রিদির!


স্পোর্টস রিপোর্টার ॥ আসন্ন বিশ্বকাপেই দ্রুততম ওয়ানডে সেঞ্চুরির নতুন রেকর্ড গড়ার ঘোষণা দিলেন শহীদ আফ্রিদি। চার-ছক্কায় উন্মাতাল ভক্তরা তাই পাকিস্তানের খেলায় চোখ রাখতে পারেন, আবারও দ্রুততম সেঞ্চুরির রেকর্ডটি নিজের করে নিতে চান ‘বুম বুম’ আফ্রিদি। বিশ্বমঞ্চে পা রাখতে বুধবার সবার আগে সেখানে পৌঁছে গেছে মিসবাহ-উল হকের দল। লক্ষ্য আরও একটি ১৯৯২ সালের জন্ম দেয়া, আরও একবার দেশবাসিকে আনন্দে ভাসানো।

আফ্রিদির লক্ষ্য একটাই ব্রিসবেন, এ্যাডিলেড আর ক্রাইস্টচার্চে ব্যাট হাতে চার-ছক্কার ফুলঝুরি ছোটানো। ক্রেজি আফ্রিদি বলেন ‘নির্দিষ্ট করে রেকর্ড গড়ার জন্য খেলা যায় না। যখন বিশেষ একটি দিন আসে এবং আকাশসমান উঁচুতে আত্মবিশ্বাস থাকে, তখনই কেবল এ ধরনের রেকর্ড গড়া সম্ভব।’ নিজের উদ্দেশের কথা বলতে গিয়ে আফ্রিদি আরও যোগ করেন, ‘যদি সব ঠিকঠাক থাকে, তবে আমি ডি ভিলিয়ার্সের গড় রেকর্ডটাকে আরও উন্নত করতে চাই। হয়ত নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে বা বিশ্বকাপের অন্য কোন ম্যাচে তা হয়েও যেতে পারে!’ কদিন আগে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে মাত্র ৩১ বলে সেঞ্চুরির দ্রুততম রেকর্ড গড়েন স্বাগতিক দক্ষিণ আফ্রিকা অধিনায়ক এবি ডি ভিলিয়ার্স। এক সময় রেকর্ডটি আফ্রিদির দখলেই ছিল। ১৯৯৬ সালে নাইরোবিতে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে ৩৭ বলে সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছিলেন তিনি। আফ্রিদির সেই রেকর্ড টিকে ছিল দেড় যুগ। গত বছরের প্রথম দিনে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৩৬ বলে ১০০ রানের টর্নেডো ইনিংস খেলে নাম লেখান নিউজিল্যান্ডের কোরি এ্যান্ডারসন। সেটিই ভেঙ্গে ৩১ বলে সেঞ্চুরি করেন ডি ভিলিয়ার্স। ঘোষণাটা তাই আফ্রিদির মুখেই মানায়! এরপর আফ্রিদি ঘোষণা দিলেন আবারও রেকর্ডটা নিজের করে নিতে চান তিনি। এ জন্য বিশ্বকাপকেই বেছে নিতে চাইলেন এই পাঠান। ব্যাট হাতে দারুণ ফর্মেও আছেন আফ্রিদি। আরব আমিরাতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে অন্যরা ব্যর্থ হলেও নিজের স্টাইলে খেলেন এবারের বিশ্বকাপের অন্যতম অভিজ্ঞ তারকা।

সেই নব্বইয়ের দশকের মাঝামাঝি থেকে গত দেড় যুগে আধুনিক ক্রিকেটের অত্যন্ত সফল ও আকর্ষণীয় অলরাউন্ডারের নাম শহীদ আফ্রিদি। মাঠে দুরন্ত পারফর্মেন্সের পাশাপাশি ক্যারিয়ারজুড়ে ক্রেজি সব কর্মকা- ও কথাবার্তার জন্যও ব্যাপক আলোচিত তিনি। ১৯৯৬ সালে পাকিস্তানের হয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়া আফ্রিদি ৩৮১ ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। ৬ সেঞ্চুরি ও ৩৬ হাফ সেঞ্চুরির সাহায্যে ৭ হাজার ৬৫২ রান করেন তিনি। লেগস্পিন বোলিংয়ে উইকেট নিয়েছেন ৩৭৮। টেস্ট অবসরের পর ২০১০ সালে বাকি দুই সংস্করণেই আফ্রিদিকে পাকিস্তানের অধিনায়ক নির্বাচন করে পিসিবি। তার নেতৃত্বেই ফেবারিট না হয়েও ২০১১ ওয়ানডে বিশ্বকাপের সেমিতে উঠে চমক দেখিয়েছিল পাকিস্তান। বিশ্বকাপ খেলেই ওয়ানডে থেকে অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ৩৪ বছর বয়সী তারকা অলরাউন্ডার।

সম্পর্কিত:
পাতা থেকে: