১৯ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

অগ্নিদগ্ধদের পুনর্বাসনে বিত্তশালীদের এগিয়ে আসার আহ্বান স্বাস্থ্যমন্ত্রীর


স্টাফ রিপোর্টার ॥ অগ্নিদগ্ধদের পুনর্বাসনে বিত্তশালীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম। তিনি বলেন, আগুনে পোড়া রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসাসহ সুস্থ করে তোলার জন্য সরকার সব ধরনের উদ্যোগ নিচ্ছে। এ ধরনের আক্রান্ত ব্যক্তিদের স্বাভাবিক অবস্থা ফিরে পাওয়ার জন্য দরকার উন্নতমানের প্লাস্টিক সার্জারি। তাঁদের কর্মসংস্থানসহ পুনর্বাসনের জন্য দরকার মানবিক সহায়তা। এক্ষেত্রে দেশের বিত্তবান ব্যক্তিরা এগিয়ে এসে সরকারকে সহায়তা করলে এই অসহায় মানুষরা অনেক উপকৃত হতেন।

মঙ্গলবার ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের সভাকক্ষে দেশে বার্ন ইউনিটের উন্নয়ন ও সম্প্রসারণ সংক্রান্ত এক সভা শেষে সাংবাদিকদের ব্রীফিংকালে তিনি এ আহ্বান জানান। সভায় উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ দীন মোহাম্মদ, নূরুল হক, জাতীয় বার্ন ও প্লাস্টিক সার্জারি ইনস্টিটিউটের অবৈতনিক উপদেষ্টা সামন্ত লাল সেন, ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের পরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুস্তাফিজুর রহমান, মেডিক্যাল কলেজের বিভিন্ন বিভাগের জ্যেষ্ঠ শিক্ষক ও মন্ত্রণালয়ের উর্ধতন কর্মকর্তারা।

সংবাদ সম্মেলনে মোহাম্মদ নাসিম জানান, বার্ন ইউনিট যেন সুষ্ঠুভাবে সেবা দিতে পারে সে বিষয়টি সরকার খুব গুরুত্বের সঙ্গে নিয়েছে। উপজেলা পর্যায় পর্যন্ত সব চিকিৎসক যেন পোড়া রোগীদের প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে পারেন সেজন্য একটি নির্দেশনা তৈরি করা হচ্ছে। দ্রুতই তা সব জায়গায় পাঠিয়ে দেয়া হবে। তিনি জানান, মেডিক্যাল কলেজে এমবিবিএস পাঠ্যক্রমেই এ বিষয়ের প্রাথমিক চিকিৎসা সম্পর্কে পড়ানো হয়। তাই উপজেলায় নিয়োজিত চিকিৎসকদের পক্ষে প্রাথমিক চিকিৎসাটুকু দেয়া সম্ভব।

জনগণকে সচেতন করতে প্রিন্ট ও ইলেক্ট্রনিক মিডিয়ায় সচেতনতামূলক বার্তা প্রচারের উদ্যোগ নেয়া হচ্ছে বলেও উল্লেখ করে মোহাম্মদ নাসিম এ সময় জনগণ যেন আতঙ্কগ্রস্ত না হয় এমন সংবাদ পরিবেশন না করতে সংবাদমাধ্যমের প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, বর্তমান পরিস্থিতিতে জনগণ যেন আতঙ্কিত না হয় সেদিকে সকলকে দৃষ্টি রাখার জন্য অনুরোধ করছি। জনগণকে আশ্বস্ত করুন।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, গত কয়েকদিনে বার্ন ইউনিটে ১৫ জন চিকিৎসক ও ১৪ জন নার্স দেয়া হয়েছে। সবরকম ওষুধের পর্যাপ্ত যোগান আছে। এ পর্যন্ত সোয়া কোটি টাকার ওষুধ দেয়া হয়েছে, আরও ১০ হাজার প্যাকেট স্যালাইন পাঠানোর সব প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। ইতোমধ্যে একটি নতুন অ্যাম্বুলেন্সও প্রদান করা হয়েছে। তিনি জানান, বর্তমানে দেশের ১৪টি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বার্ন ইউনিট রয়েছে। এগুলোকে কার্যকর করে তোলা হবে। দেশে প্রতি বছর প্রায় ৬ লাখ মানুষ আগুনে বা বৈদ্যুতিক শক-এ পোড়ে এবং প্রায় ৬ হাজার মানুষ মারা যায়। এ তথ্য জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, দেশের সকল জেলায় যেন আইসিইউসহ বার্ন ইউনিট স্থাপন করা যায় সেই উদ্যোগও নেয়া হচ্ছে।

দেশে ১১০টি নতুন ডায়ালাইসিস মেশিন স্থাপনের উদ্যোগ ॥ দেশে কিডনি ডায়ালাইসিসের সুযোগ ৮ গুণ বাড়ানোর লক্ষ্যে নতুন ১১০টি ডায়ালাইসিস মেশিন স্থাপনের উদ্যোগ নিচ্ছে সরকার। ঢাকার জাতীয় কিডনি রোগ ইনস্টিটিউটে ৭০টি এবং চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪০টি মেশিন স্থাপন করা হবে। সরকারী বেসরকারী অংশীদারিত্ব (পিপিপি)-এর আওতায় এ প্রকল্প হাতে নেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্যখাতে পিপিপির আওতায় এটি প্রথম প্রকল্প।