১৭ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

চট্টগ্রামে কর্ণফুলী প্রকল্প


স্টাফ রিপোর্টার, চট্টগ্রাম অফিস ॥ সন্ত্রাসীদের বাধার মুখে বন্ধ হয়ে গেছে চট্টগ্রাম ওয়াসার কর্ণফুলী প্রকল্পের কাজ। দুই চীনা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান মঙ্গলবার থেকে এর কাজ বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে। এ ব্যাপারে ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে লিখিতভাবে রাঙ্গুনিয়া থানা ও চট্টগ্রাম ওয়াসায় অভিযোগ করা হয়েছে। সর্বশেষ এ ঘটনা চট্টগ্রাম নগরবাসীর পানীয় জল সমস্যা সমাধানে বাস্তবায়নাধীন ১ হাজার ৫১০ কোটি টাকার এ প্রকল্পের কাজ ফের অনিশ্চয়তার মধ্যে পড়ল। বাধা প্রদানকারীরা সরকারদলীয় লোক বলে অভিযোগে উল্লেখ করা হয়েছে। চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ প্রকল্পের কাজ বন্ধ হয়ে যাওয়ার কথা স্বীকার করে বলেন, বুধবার কাজ বন্ধ ছিল আজ বৃহস্পতিবারও বন্ধ থাকবে। স্থানীয় সন্ত্রাসীদের বাধার কারণে ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান কাজ বন্ধ করে দিতে বাধ্য হয়েছে। প্রভাবশালী মহল এক ট্রাক মালামাল লুট ও সেখানে ককটেল ছুড়েছে। তিনি আরও বলেন, দফায় দফায় বাধা আসায় যথাসময়ে প্রকল্পটির কাজ থমকে যাচ্ছে।

উল্লেখ্য, ‘কর্ণফুলী ওয়াটার সাপ্লাই প্রকল্প’র কাজটি বাস্তবায়িত হচ্ছে জাপানের সাহায্য সংস্থা জাইকার অর্থায়নে। রাঙ্গুনিয়ায় এ প্রকল্পের কাজে নিয়োজিত রয়েছে চীনের দুই ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ‘চায়না ন্যাশনাল টেকনিক্যাল ইমপোর্ট এ্যান্ড এক্সপোর্ট কর্পোরেশন’ এবং বেজিং সাইন্ড এনভায়রনমেন্টাল ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি’। এ প্রকল্প বাস্তবায়িত হলে দৈনিক অতিরিক্ত ১৩ কোটি ৬০ লাখ লিটার পানি সরবরাহ করতে পারবে ওয়াসা। এতে নগরবাসীর পানির চাহিদা শতকরা ৭৫ ভাগই পূরণ হবে। গুরুত্ব বিবেচনায় এটি ওয়াসার একটি অগ্রাধিকারভিত্তিক বড় প্রকল্প। ইতোমধ্যেই পাইপ লাইন স্থাপনসহ অনেক কাজ সম্পন্ন হয়েছে। চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় স্থাপিত হচ্ছে এটির ট্রিটমেন্ট প্ল্যান্ট। সূত্র জানায়, বড় এ প্রকল্পের কাজ শুরু হওয়ার পর এর বিভিন্ন সামগ্রী সাপ্লাইয়ের কাজ পেতে সক্রিয় হয় সরকারদলীয়রা। প্রভাব খাটিয়ে কাজ পায় একটি গ্রুপ। কিন্তু ইট, বালি, পাথর ও লোহাসহ বিভিন্ন সামগ্রী নিম্নœমানের হওয়ায় চীনা প্রতিষ্ঠান এগুলো গ্রহণে অস্বীকৃতি জানায়।

আর এতেই প্রভাবশালীরা চড়াও হয় ঠিকাদার প্রতিষ্ঠানের ওপর। চীনা প্রতিষ্ঠানকে তাদের পছন্দমতো গুণগত মানসম্পন্ন নির্মাণসামগ্রী সংগ্রহে বাধা প্রদান করা হয়। সন্ত্রাসীরা প্রকল্পের কাজে নিয়োজিত শ্রমিকদের মারধর করে। শুধু তাই নয়, চীনা প্রতিষ্ঠানের সামগ্রীবাহী গাড়ি প্রকল্প এলাকায় যেতেও বাধা প্রদান করে সন্ত্রাসীরা। গত রবিবারও দুটি গাড়ি ঢুকতে পারেনি। অবস্থা প্রতিকূল হয়ে যাওয়ায় চীনা প্রতিষ্ঠান কাজ বন্ধ করে দেয়।

চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী একেএম ফজলুল্লাহ এ অচলাবস্থার কথা স্বীকার করে জানান, বিষয়টি তিনি স্থানীয় সংসদ সদস্য সাবেক মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদকে জানিয়েছেন। আগামী শুক্রবার সংসদ সদস্যের উপস্থিতিতে এ ব্যাপারে বৈঠক হবে। বৈঠকে একটি পথ বেরিয়ে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।