২৩ অক্টোবর ২০১৭,   ঢাকা, বাংলাদেশ   শেষ আপডেট এই মাত্র  
Login   Register        
ADS

বিশ্বের অর্ধেক সম্পদের মালিক ১ শতাংশ মানুষ


বিশ্বের মোট সম্পদের অর্ধেক ১ শতাংশ লোকের মালিকানায়। চলতি সপ্তাহে সুইজারল্যান্ডের ডাভোসে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের বার্ষিক সম্মেলনের আগে দাতব্য সংস্থা অক্সফাম এ বিষয়ে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। খবর গার্ডিয়ান অনলাইনের।

ডাভোসের শীতকালীন পর্যটন আকর্ষণ কেন্দ্রে বৃহস্পতিবার থেকে শুরু হচ্ছে ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক ফোরামের তিনদিনের বার্ষিক সম্মেলন। সম্মেলনের আগে অক্সফাম সতর্ক করে দিয়ে বলেছে, বিশ্বে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য ব্যাপকভাবে বাড়ছে। দাতব্য সংস্থাটি দারিদ্র্য মোচনে কাজ করে যাচ্ছে। বিশ্বে ধনী দরিদ্রের ব্যবধান যে হারে বাড়ছে তাকে বিপজ্জনক বলে মনে করে সংস্থাটি। রবিবার প্রকাশিত অক্সফামের গবেষণা প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ২০০৯ সালে সেখানে বিশ্বের ৪৪ শতাংশ সম্পদের মালিকানা ১ শতাংশ মানুষের হাতে ছিল ২০১৪ সালে সম্পদের পরিমাণ বেড়ে হয়েছে ৪৮ শতাংশ। এই প্রবণতা অব্যাহত থাকলে ২০১৬ সালে ১ শতাংশের হাতে চলে যাবে ৫০ শতাংশ সম্পদ। বিশ্বের ৮০ শতাংশ সম্পদের মালিক এখন ৫.৫ শতাংশ মানুষ। অক্সফাম ইন্টারন্যাশনালের নির্বাহী পরিচালক উইনি বায়ানিমিয়া বলেন, ২০০৮-০৯ সালের অর্থনৈতিক সঙ্কট সম্পদ পুঞ্জীভূত হওয়ার প্রবণতা তৈরি করেছিল এখন এ থেকে দ্রুত বেরিয়ে আসার সময় হয়েছে। যে ছয়টি সংস্থা এভাবে ইকোনমিক ফোরামের যৌথভাবে সভাপতিত্ব করছে তার একটি হলো অক্সফাম। গার্ডিয়ানের সঙ্গে সাক্ষাতকারে বায়ানিমিয়া বলেন, বিশ্বের সবচেয়ে প্রভাবশালী ব্যবসায়ী ও রাজনীতিকদের কাছে আমরা দরিদ্র জনগোষ্ঠীর কণ্ঠস্বর তুলে ধরতে চাই। তিনি বলছেন, ‘ধনী ও দরিদ্রের মধ্যে বৈষম্য বেড়ে যাওয়া খুব বিপজ্জনক। কারণ এটি সুষম অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধ ও সুশাসনের পথে অন্তরায় তৈরি করে। আমরা লক্ষ্য করেছি সম্পদ পুঞ্জীভূত করার মাধ্যমে একদল মানুষের হাতে ক্ষমতাও পুঞ্জীভূত হচ্ছে। এর ফলে বাদবাকি জনগোষ্ঠীর কণ্ঠস্বরগুলো যেমন হারিয়ে যায় তেমনি তাদের সুবিধা অসুবিধার প্রতি কারও মনোযোগ থাকে না।’ তিনি প্রশ্ন রাখেন, ‘আমরা কি এমন একটি বিশ্বে বসবাস করতে চাই যেখানে মোট সম্পদের অর্ধেক মাত্র এক শতাংশ জনগোষ্ঠীর নিয়ন্ত্রণে।’ তার কথায় আর্থিক বৈষম্য রোধে বৈশ্বিক পর্যায়ে উদ্যোগ না নেয়া হলে দ্রুতই পরিস্থিতির আরও অবনতি ঘটবে। ক্যাথলিক খ্রীস্টান সম্প্রদায়ের ধর্মগুরু পোপ ফ্রান্সিস এবং আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্রিস্টিন লাগার্দও বিরাজমান অর্থনৈতিক বৈষম্যের বিরুদ্ধে সতর্কবাণী উচ্চারণ করেছেন। বিশ্বের শীর্ষ ৮০ জন ধনীর মোট সম্পদের পরিমাণ গত পাঁচ বছরে দ্বিগুণ হয়েছে বলে অক্সফাম জানিয়েছে।

এদিকে মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা মঙ্গলবার যে বার্ষিক স্টেট অব দ্য ইউনিয়ন ভাষণ দিচ্ছেন সেখানেও এ বিষয়টি প্রাধান্য পাবে বলে জানা গেছে। ক্ষমতার অবশিষ্ট মেয়াদে তিনি আর মাত্র একবার এ ভাষণ দিতে পারেন। এই ভাষণে তিনি মধ্যবিত্তদের প্রতি সহায়তার হাত বাড়াতে ধনীদের ওপর কর বাড়ানোর ঘোষণা দেবেন। বৃহৎ অর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলোর ওপর ফি ধার্য করে ওবামা সেটি মধ্যবিত্ত শ্রেণীর কাজে লাগাতে চান বলে ওয়াশিংটনে সিনিয়র কর্মকর্তারা জানিয়েছেন।